আন্তর্জাতিক

সুদানে সরকার বিরোধী বিক্ষোভ-সহিংসতায় নিহত বেড়ে ২৪

প্রকাশ : ১৩ জানুয়ারি ২০১৯ | আপডেট : ১৩ জানুয়ারি ২০১৯

সুদানে সরকার বিরোধী বিক্ষোভ-সহিংসতায় নিহত বেড়ে ২৪

রুটির দাম বাড়ানোর সরকারি সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে গত ১৯ ডিসেম্বর থেকে সুদানজুড়ে সরকার বিরোধী বিক্ষোভ শুরু হয়

  অনলাইন ডেস্ক

আফ্রিকার দেশ সুদানে গত ডিসেম্বরে শুরু হওয়া সরকারবিরোধী বিক্ষোভ ও সহিংসতায় এখন পর্যন্ত অন্তত ২৪ জন নিহত হয়েছে।

দেশটির এক কর্মকর্তার কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদনে একথা জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, রুটির দাম বাড়ানোর সরকারি সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে গত ১৯ ডিসেম্বর থেকে সুদানজুড়ে সরকার বিরোধী বিক্ষোভ শুরু হয়। বিক্ষোভকারীরা প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশিরের পদত্যাগের দাবি করছে।

বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে সৃষ্টি সহিংস ঘটনার তদন্তকারী প্রসিউিটর অফিস মনোনিত প্যানেলের প্রধান আমের ইবরাহীম বলেন, ‘১৯ ডিসেম্বর থেকে এ পর্যন্ত বিক্ষোভের ঘটনায় মোট ২৪ জন প্রাণ হারিয়েছে।’

এর আগে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল, চলমান বিক্ষোভে দুই নিরাপত্তাকর্মীসহ ২২ জন নিহত হয়েছে।

ইবরাহীম বলেন, গাদারাফ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও দুই জন বিক্ষোভকারীর মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বলছে, বিক্ষোভকালে সংঘর্ষে শিশু ও চিকিৎসা কর্মীসহ অন্তত ৪০ জন নিহত হয়েছে।

বিক্ষোভকারীরা দেশের বিভিন্ন শহরে কয়েকশ' বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে। কিন্তু দাঙ্গা পুলিশ ও নিরাপত্তা কর্মীরা কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

মানবাধিকার সংগঠনগুলো ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন বলছে, নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে গুলি চালায়।


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

মেক্সিকোয় পাইপলাইনে বিস্ফোরণে নিহত বেড়ে ৮৫


আরও খবর

আন্তর্জাতিক

বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা— এএফপি

  অনলাইন ডেস্ক

মেক্সিকোর মধ্যাঞ্চলে তেলের পাইপলাাইনের ছিদ্র থেকে বিস্ফোরণের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৫ জনে। দগ্ধ হয়েছে একশ’র বেশি মানুষ।

দেশটির কর্মকর্তাদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের বরাত দিয়ে সোমবার বার্তা সংস্থার এএফপির এক প্রতিবেদনে একথা বলা হয়েছে।

কর্তৃপক্ষ জানায়, শুক্রবার রাতে সন্দেহভাজন জ্বালানি তেল চোরদের ছিদ্র করা একটি পাইপলাইনে হঠাৎ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৮৫ জনে পৌঁছেছে। এছাড়া আহত হয়েছে শতাধিক মানুষ।

মেক্সিকোর রাষ্ট্রীয় তেল কোম্পানি পিমেক্স জানায়, রাজধানী মেক্সিকো সিটি থেকে ১০০ কিলোমিটার উত্তরে হিডালগু রাজ্যের একটি ছোট শহরে জ্বালানি চোরেরা পাইপলাইনে ছিদ্র করে দিলে সেখান থেকে দ্রুত তেল ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে। স্থানীয় অনেক বাসিন্দা বালতিসহ অন্যান্য পাত্র দিয়ে চুইয়ে পড়া তেল সংগ্রহ করতে থাকেন। পাইপলাইনের ফুটো দিয়ে বের হওয়া তেলের ফোয়ারা ছিল অনেক উঁচুতে। এক পর্যায়ে আগুন লেগে পাইপলাইনটি বিস্ফোরিত হয়।

এর আগে ২০১০ সালের ডিসেম্বরে মধ্য মেক্সিকোর পুয়েবলা প্রদেশে সন্দেহভাজন জ্বালানি তেল চোরদের ছিদ্র করা তেলের পাইপলাইনে বিস্ফোরণের ঘটনায় ১৩ শিশুসহ ২৮ জন নিহত হয়।

প্রসঙ্গত, মেক্সিকোতে প্রতিবছর ৩০০ কোটি মার্কিন ডলারের তেল চুরির অবৈধ বাণিজ্য হয়। এটি রোধ করতে আক্রমণাত্মক পদক্ষেপ নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদর।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

সিরিয়ার 'ইরানি লক্ষ্যবস্তুতে' ইসরায়েলের হামলা


আরও খবর

আন্তর্জাতিক

সিরিয়ার অভ্যন্তরে ইরানি লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করেছে ইসরায়েলি বাহিনী— ইপিএ

  অনলাইন ডেস্ক

সিরিয়ায় 'ইরানি লক্ষ্যবস্তুতে' হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল।

ইসরায়েল ডিফেন্স ফোর্সেস (আইডিএফ) জানিয়েছে, তারা কুদস বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে, যে বাহিনীটি ইরানের রেভুলশনারি গার্ডের এলিট ফোর্স হিসেবে পরিচিত।

এ বিষয়ে বিস্তারিত না জানা গেলেও সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে সোমবার সকালে হামলার খবর পাওয়া গেছে বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

সিরিয়ার গণমাধ্যম বলছে, 'একটি ইসরায়েলি বিমান আক্রমণ' প্রতিহত করেছে সিরিয়া প্রতিরক্ষা বাহিনী।

রোববার আইডিএফ জানিয়েছে, গোলান হাইটসের ওপর একটি রকেটের পথরোধ করেছে তারা। সোমবার সকালে এক টুইটের মাধ্যমে এই অভিযানের খবর প্রকাশ করে আইডিএফ।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানায়, ইসরায়েলি রকেট সিরিয়ার 'রাজধানী দামেস্কের নিকটবর্তী' স্থানে আক্রমণ করছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, দামেস্কে ব্যাপক বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে। তবে এই আক্রমণের ফলে কী পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা এখনো জানা যায়নি।

ইসরায়েলিদের ভাষ্য অনুযায়ী, 'গোলান হাইটসের উত্তরাঞ্চলে রকেট হামলা করা হলে তা প্রতিহত করে আয়রন ডোম এরিয়াল ডিফেন্স সিস্টেম'; আর এর পরেই সিরিয়ায় অভিযান শুরু হয়। গোলান হাইটসের জনপ্রিয় শীতকালীন পর্যটন কেন্দ্র মাউন্ট হেরমন সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে এর কারণে।

ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনয়ামিন নেতানিয়াহু রোববার চাদ সফরের সময় একটি সতর্কবার্তা জারি করেন। তিনি বলেন, 'আমাদের একটি নির্দিষ্ট নীতি রয়েছে, সেটি হলো সিরিয়ায় ইরানি স্থাপনায় আঘাত করা এবং যারা আমাদের ক্ষতি করার চেষ্টা করেছে তাদের ক্ষতি করা।'

সিরিয়ার অভ্যন্তরে আক্রমণ চালানোর বিষয়টি কদাচিৎ স্বীকার করে ইসরায়েল। তবে ২০১৮ সালের মে মাসে সিরিয়ার অভ্যন্তরের প্রায় সবকটি সেনাঘাঁটিতে আঘাত করার দাবি করেছিল ইসরায়েল।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

বেতন না পাওয়া নিরাপত্তা কর্মীদের জন্য পিৎজা নিয়ে গেলেন বুশ


আরও খবর

আন্তর্জাতিক

ছবি: জর্জ ডব্লিউ বুশের ইনস্টাগ্রাম থেকে নেওয়া

  অনলাইন ডেস্ক

মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণ ইস্যুতে বিতর্কের জেরে মাসখানেক ধরে বেতন পাচ্ছেন না যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল সরকারের বহু কর্মকর্তা-কর্মচারী। এ অবস্থায় নিজ নিরাপত্তা কর্মীদের জন্য পিৎজা নিয়ে গেলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ। 

সীমান্তে দেয়াল নির্মাণ ইস্যু নিয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ডেমোক্র্যাটদের টানাপোড়েনে ফেডারেল সরকারের ২৫ শতাংশের কাজ বন্ধ রয়েছে। শাটডাউন নাম দেওয়া এই অবস্থার কারণে বেতন না পাওয়া নিরাপত্তা কর্মীদের জন্য নিজেই পিৎজা বহন করে নিয়ে যান বুশ।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করা একটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে, সিক্রেট সার্ভিস সদস্যদের কাছে বুশ নিজে পিৎজা বহন করে নিয়ে যাচ্ছেন। ছবিটি ফ্লোরিডায় তোলা হয়েছে বলে বুশের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন।

ইনস্টাগ্রামে সাবেক এই মার্কিন প্রেসিডেন্ট লিখেছেন, এখন আমাদের উভয়পক্ষের নেতাদের রাজনীতি দূরে সরিয়ে রেখে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার সময়।

তিনি আরও লিখেছেন, বেতন না পাওয়ার পরও কাজ করার জন্য সিক্রেট সার্ভিস সদস্য ও ফেডারেল কর্মীদের প্রতি তিনি ও তার স্ত্রী লরা বুশ কৃতজ্ঞ। যারা এই কর্মীদের সহায়তা করছে তাদেরও ধন্যবাদ জানান বুশ।

সম্প্রতি মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণে ৫৭০ কোটি ডলার অর্থ বরাদ্দ চান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে কংগ্রেসে এ বরাদ্দের বিল আটকে দেয় ডেমোক্র্যাটরা। এ জের ধরে অন্যান্য বাজেট বরাদ্দের নথিতে সই করা থেকে বিরত রয়েছেন ট্রাম্প। 

এর ফলে গত ২২ ডিসেম্বর থেকে ফেডারেল সরকারের কয়েকটি বিভাগের প্রায় আট লাখ কর্মী বাজেটের অভাবে বেতন পাচ্ছেন না। এর মধ্যে সাড়ে তিন লাখ কর্মীকে ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। বাকিরা বিনা পারিশ্রমিকে কাজ চালিয়ে যেতে বাধ্য হচ্ছেন। এ অবস্থায় হাজার হাজার কর্মী এরই মধ্যে বেকার ভাতা পেতে আবেদন করেছেন।  সূত্র: বিবিসি

সংশ্লিষ্ট খবর