আন্তর্জাতিক

আফগানিস্তানে জাতীয় নির্বাচনের ভোট চলছে

প্রকাশ : ২০ অক্টোবর ২০১৮

আফগানিস্তানে জাতীয় নির্বাচনের ভোট চলছে

আফগানিস্তানের হেরাত প্রদেশের একটি ভোট কেন্দ্রে ভোট দিচ্ছেন এক ভোটার— এএফপি

  অনলাইন ডেস্ক

সন্ত্রাসী হামলার হুমকির মুখেই আফগানিস্তানের জাতীয় পার্লামেন্ট নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে।

শনিবার স্থানীয় সময় সকাল ৭টায় দেশটিতে ভোট গ্রহণ শুরু হয়। আফগানিস্তানের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষের ২৫০টি আসনের জন্য নির্বাচনে লড়ছেন আড়াই হাজারের বেশি প্রার্থী, যাদের অনেকেই নারী। খবর বিবিসি ও এএফপির

এদিকে ভোটের মাত্র দুইদিন আগে সন্ত্রাসী হামলায় কান্দাহারের পুলিশপ্রধান নিহত হওয়ায় প্রদেশটিতে নির্বাচন এক সপ্তাহ পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। 

নির্বাচন উপলক্ষে আফগানিস্তানজুড়ে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। ভোটকেন্দ্রগুলোর নিরাপত্তায় মোতায়েন করা হয়েছে ৫৪ হাজার নিরাপত্তা কর্মী।

সাড়ে ৩ কোটি মানুষের দেশ আফগানিস্তানে এবার নিবন্ধিত ভোটার ১ কোটি ৪০ লাখ। এবারের নির্বাচনে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ তালেবান জঙ্গি গোষ্ঠীর সন্ত্রাসী তৎপরতা।

আফগানিস্তানে হেরাত প্রদেশের একটি ভোটকেন্দ্রে লাইনে অপেক্ষারত নারী ভোটাররা— এএফপি

২০০১ সালে আফগানিস্তানে তালেবান শাসন পতনের পর দেশটিতে এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো পার্লামেন্ট নির্বাচন হচ্ছে। তালেবান জঙ্গিরা শুরু থেকেই এ নির্বাচন বানচালের হুমকি দিয়ে আসছে। নির্বাচনী প্রচার চলার মাঝে দেশজুড়ে হামলায় এরই মধ্যে অন্তত ১০ প্রার্থী নিহত হয়েছেন। ভোটার নিবন্ধন কেন্দ্রগুলোতেও হামলা হয়েছে। এর মধ্যে গত এপ্রিলে একটি হামলায় নিহত হয়েছেন প্রায় ৬০ জন।

এবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামা আড়াই হাজার প্রার্থীর বেশিরভাগই স্বতন্ত্র। ক্ষমতাসীন সরকারের শরিক পিপলস ইসলামিক ইউনিটি পার্টি অব আফগানিস্তান, ন্যাশনাল ইসলামিক মুভমেন্ট অব আফগানিস্তান এবং জমিয়াত-ই-ইসলামীর প্রার্থীরাও আছেন নির্বাচনী মাঠে। লড়ছেন রেকর্ড চারশ' নারী প্রার্থী।


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

নেদারল্যান্ডসে ট্রামে হামলাকারী সন্দেহে এক তুর্কি গ্রেফতার


আরও খবর

আন্তর্জাতিক

  অনলাইন ডেস্ক

নেদারল্যান্ডসের ইউট্রেট শহরে যাত্রীবাহী ট্রামে এলোপাতাড়ি গুলি চালিয়ে তিনজনকে হত্যাকারী সন্দেহে তুরস্কের এক নাগরিককে গ্রেফতার করেছে ডাচ পুলিশ।

সোমবারের ঘটনার কয়েক ঘণ্টা পর তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। খবর বিবিসির

তুর্কি বংশোদ্ভূত ৩৭ বছর বয়সী গোকম্যান তানিসকে পুলিশি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

তবে কি কারণে এই হামলা তা এখনও জানতে পারেনি পুলিশ। 

সোমবার নেদারল্যান্ডসের ইউট্রেট শহরে একটি যাত্রীবাহী ট্রামে বন্দুকধারীর এলোপাতাড়ি গুলিতে তিনজন নিহত ও নয়জন আহত হয়। স্থানীয় সময় সোমবার সকাল পৌনে ১১টার দিকে টোয়েন্টিফোর অক্টোবরপ্লেইন জংশনের কাছে এই হামলার ঘটনা ঘটে।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

নেদারল্যান্ডসে ট্রামে গুলিতে নিহত ৩


আরও খবর

আন্তর্জাতিক

  অনলাইন ডেস্ক

নেদারল্যান্ডসের উট্রেখট শহরে একটি যাত্রীবাহী ট্রামে বন্দুকধারীর গুলিতে তিনজন মারা গেছেন। এ ছাড়া আহত হয়েছেন পাঁচজন। 

উট্রেখট শহরের মেয়র বিবিসিকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

স্থানীয় সময় সোমবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এটিকে ‌সন্ত্রাসী হামলা মনে করছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।

ঘটনার পর থেকে গোকমেন টানিস নামে ৩৭ বছর বয়সী এক তুর্কি নাগরিককে খুঁজছে পুলিশ। তাকে এ হামলার সন্দেহভাজন হিসেবে ধরা হচ্ছে।

নেদারল্যান্ডসের প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুট নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, পুলিশ হামলাকারী খুঁজছে এবং ঠিক কী ঘটেছিল তা জানার চেষ্টা করছে। 


সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

বিজ্ঞাপন দিয়ে ‘ব্রেক-আপ’!


আরও খবর

আন্তর্জাতিক

  অনলাইন ডেস্ক

সম্পর্কে জড়ানো কিংবা ভেঙে যাওয়া-দু’টিই স্বাভাবিক ঘটনা। যে কারও সঙ্গেই এটা ঘটতে পারে। ব্রেক-আপের পর অনেকেই মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন। কারও কারও ক্ষেত্রে এই ধাক্কা সমালানোও কঠিন হয়ে পড়ে। ব্রেক-আপের পর অনেকেই নানা ধরনের পাগলামী করেন। তবে এমন ঘটনার পর শহরময় প্রেমিকার পোস্টার লাগানোর ঘটনা খুব কম লোকই করেন। সম্প্রতি এভাবেই নিজের বিচ্ছেদের কথা জানিয়েছেন এক প্রেমিক।

ঘটনাটি ঘটেছে ইন্দোনেশিয়ায়। ব্যতিক্রমী ওই প্রেমিক দাবী করেছেন তার প্রেমিকা তার সঙ্গে প্রতারণা করেছেন। সাধারণত এরকম ঘটনা হলে একজন আরেকজনের সঙ্গে ব্রেক-আপের কথা মুখেই বলে দেন। কেউ বা আবার মেসেজের মাধ্যমে জানান। কিন্তু এই ব্যক্তি এমন কিছু করেননি। তিনি গোটা শহরজুড়ে বিল বোর্ডে প্রেমিকার পোস্টার লাগিয়েছেন। পোস্টার না বলে সেটাকে অনেকে বিজ্ঞাপন বলছেন। কারণ অন্যান্য বিজ্ঞাপনের সঙ্গেই শহরের রাস্তায় রাস্তায় বিলবোর্ডে শোভা পাচ্ছে মেয়েটির ছবি। নিচে লেখা, ‘তুমি আমার হৃদয় ভেঙেছ। আমার সঙ্গে প্রতারণা করেছ। আমি তোমার সঙ্গে ব্রেক-আপ করতে চাই।’

ব্রেক-আপের ছবিগুলো এখন ঘুরে বেড়াচ্ছে সামাজিক মাধ্যমে। ইন্টারনেটে ছবিগুলো রীতিমতো ভাইরাল হয়ে উঠেছে। 

তবে ওই প্রেমিক শুধু বিলবোর্ড দিয়েই ক্ষান্ত হননি,নিজেদের ব্রেক-আপ নিয়ে একটা ভিডিও তিনি আপলোড করেছেন সামাজিক মাধ্যমে। সেখানে দেখা গিয়েছে, ব্যস্ত সড়কে ঝগড়া করছেন ওই যুবক ও তার প্রেমিকা।

এরই মধ্যে ভিডিওটি একই সঙ্গে টুইটার এবং ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে উঠেছে। সূত্র : ইণ্ডিয়া টুডে

সংশ্লিষ্ট খবর