ফ্যাশন

ঠোঁট সজ্জায় চার কোটি টাকা!

প্রকাশ : ০৮ জানুয়ারি ২০১৯ | আপডেট : ০৮ জানুয়ারি ২০১৯

ঠোঁট সজ্জায় চার কোটি টাকা!

এই ঠোঁট-সজ্জার পিছনে খরচ হয়েছে ৫৪০,৮৫৮.৫৯ মার্কিন ডলার

  অনলাইন ডেস্ক

ঠোঁটের সাজ বলতে নতুন কিছু নয়। প্রায় সব নারীরাই তাদের বাহারি লিপস্টিকের মাধ্যমে তাদের ঠোঁটের সৌন্দর্যবর্ধন করে থাকেন।  তাই লিপস্টিক দিয়েই শুধু ঠোটের সাজ সম্ভব ধারণা অনেকের।   ভুল ভেঙ্গে যাবে এবার।  সম্প্রতি এমন এক ওষ্ঠ-সজ্জার খবর উঠে এসেছে, যা তাক লাগিয়ে দিয়েছে বিশ্বকে। 

সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা যায় অস্ট্রেলিয়ার বিখ্যাত জহুরি সংস্থা রোসেনডর্ফ ডায়ামন্ডস তাদের ৫০তম বর্ষে এমন এক লিপ আর্ট পেশ করেছে যা ইতোমধ্যে নেট দুনিয়ায় ভাইরাল।

১২৬টি হীরা দিয়ে সজ্জিত এই ওষ্ঠ-সজ্জার পিছনে খরচ হয়েছে ৫৪০,৮৫৮.৫৯ মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি টাকায় যা দাঁড়ায় প্রায় চার কোটি। এতে ব্যবহৃত হয়েছে ২২.৯২ ক্যারাট ওজনের হীরা। ভাবা যায়! 

মেক আপ আর্টিস্ট ক্লেয়ার ম্যাক এই হীরা গুলিকে সেট করেন মডেলের ঠোঁটে। প্রথমে ব্ল্যাক ম্যাট লিপস্টিক ও পরে কৃত্রিম আইল্যাশ লাগানোর আঠা দিয়ে ১২৬টি হীরা মডেলের ঠোঁটে সেট করা হয়। পুরো কাজটি করতে সময় লাগে আড়াই ঘণ্টা। 

এই চমকে দেওয়া লিপ আর্ট-এর মডেল চার্লি অক্টাভিয়া। বিশ্বের সব থেকে দামি লিপ আর্ট হিসেবে এই প্রকল্পকে স্বীকৃতি দিয়েছে ‘গিনেস বুক অফ রেকর্ডস। এমন রেকর্ডে খুশি রোসেনডর্ফ ডায়ামন্ডস, খুশি মডেল অক্টাভিয়াও।  


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

৫০ বছর ধরে একই হ্যান্ডব্যাগ ব্যবহার করছেন রানী!


আরও খবর

ফ্যাশন

  অনলাইন ডেস্ক

রাজপরিবারে বিলাসবহুল জিনিসের আধিক্য থাকবে এটাই স্বাভাবিক। প্রকাশ্যে একই পোশাক কিংবা জিনিস বারবার খুব কমই ব্যবহার করেন তারা। তবে আশ্চর্যজনক হলেও সত্যি যে, ব্রিটিশ রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ লুনার ব্র্যান্ডের একটি হ্যান্ডব্যাগ ব্যবহার করছেন ৫০ বছর ধরে।

সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের দ্য মিরর পত্রিকায় এই সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। প্রকাশিত ওই প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ব্যাগটি রানীর খুব পছন্দের এবং অত্যন্ত প্রিয় ।বিভিন্ন অফিয়াল কাজকর্ম, রাষ্ট্রীয় সফর এবং অনেক উল্লেখযোগ্য স্থানে তাকে ব্যাগটি ব্যবহার করতে দেখা যায়। 

প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১৯৬৮ সালে রানী এলিজাবেথ লুনার ব্রান্ডকে রয়েল ওয়ারেন্ট প্রদান করেন। এরপর তারা নিজেদের ব্রান্ডের চিহ্নযুক্ত একটি হ্যান্ডব্যাগ তৈরি করে দেয় রানীর জন্য। 

জানা গেছে, এ পযর্ন্ত বহু গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় ব্যাগটি রানী এলিজাবেথের হাতে দেখা গেছে। ১৯৭০ সালে রানী যখন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী এডওয়ার্ড হিথের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্সনের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন তখন তার হাতে ছিল প্রিয় হ্যান্ডব্যাগটি। যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন ও তার স্ত্রী হিলারি ক্লিনটন ২০০০ সালে যখন তার আতিথেয়তা গ্রহণ করেন তখনও রানীর হাতে ওই ব্যাগটি দেখা গেছে। ২০০৩ সালে চেটেনহ্যাম গোল্ড কাপ, রয়েল হর্স আর্টিলারি প্যারেড অনুষ্ঠানেও তিনি ব্যাগটি ব্যবহার করেছেন। এছাড়া এখন পযর্ন্ত অনেক জায়গাতেই রানীর সফর সঙ্গী হয়েছে প্রিয় হ্যান্ডব্যাগটি। সূত্র: মিড ডে


পরের
খবর

বাংলাদেশে জাভেদ হাবিবের হেয়ার এন্ড বিউটি পার্লার


আরও খবর

ফ্যাশন

‘জাভেদ হাবিব হেয়ার এন্ড বিউটি'র উদ্বোধন মঞ্চে জাভেদ হাবিব

  অনলাইন ডেস্ক

জাভেদ হাবিব। আন্তর্জাতিক খ্যাতনামা হেয়ার স্টাইলিস্ট তিনি। বলিউডের শীর্ষ তারকাদের কাঙ্ক্ষিত ফ্যাশন ব্যক্তিত্ব হিসেবে বিশ্বব্যাপী পরিচিতি তার। হেয়ার স্টাইলিংয়ের আইকন হিসেবেও পরিচিত তিনি। এ জাভেদ হাবিব ভারতের ৯২ টি শহরে প্রতিষ্ঠিত করেছেন ৮০০  টির বেশি বিউটি পার্লার। আগামী পাঁচ বছরে বিশ্বব্যাপী ২৫০০ বিউটি পার্লার প্রতিষ্ঠা করবেন তিনি। বাংলাদেশেও তার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। 

বাংলাদেশে ১৩ ডিসেম্বর উদ্বোধন করলো “জাভেদ হাবিব হেয়ার এন্ড বিউটি” পার্লার উদ্ভোধন করলেন জাভেদ হাবিব। বৃহস্পতিবার দুপুরে ১২টায় জাভেদ হাবিব উপস্থিত হয়ে রিবন কেটে উদ্বোধন করেন নতুন পার্লার। বাংলাদেশ ম্যাজিক মিরর প্রতিষ্ঠানের হাত ধরে আনুষ্ঠানিকভাবে জাভেদ হাবিব আবার বাংলাদেশে যাত্রা শুরু করলেন।   

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জাভেদ হাবিব বলেন,  মানুষের সৌন্দর্য থাকে তার ভিতরে আর ফ্যাশন কেবলমাত্র তার বহিঃপ্রকাশ ঘটায়।  চুলের ফ্যাশন একজন মানুষের ব্যক্তিত্বকে তুলে ধরে,  প্রকাশিত করে ভিতরের ললিত অন্তর্নিহিত রুচিকে। ফলে দিনে দিনে বিশ্বব্যাপি হেয়ার স্টাইলিং এর  গুরুত্ব বাড়ছে। সেই সাথে জীবন যাপন পদ্ধতি, খাদ্যভ্যাস এবং  আবাহাওয়াগত কারনে চুল পড়া, ক্ষয়ে যাওয়া ও অকালপক্কতাসহ নানবিধি সমস্যার মুখমুখি হতে হয়। সুতরাং হেয়ার স্টাইলের পাশাপাশি চুলের স্বাস্থ্যগত পরিচর্যা এখন মুখ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন ম্যাজিক মিররের চেয়ারম্যান জাকের আহমেদ ভূঁইয়া। তিনি বলেন, সৌন্দর্যের বৃদ্ধির পাশাপাশি চুল নিয়ে নান সমস্যার কথা আমরা শুনে থাকি ফলে এটি এখন শুধু স্টাইলের বিষয় নয়।  এটি একটি স্বাস্থ্যগত ব্যাপারও বটে। এ জন্য প্রয়োজন বিজ্ঞানসম্মত ট্রিটমেন্ট এবং প্রশিক্ষিত এক্সপার্ট। জাভেদ হাবিব হেয়ার এন্ড বিউটির এক্সপার্টরা প্রত্যেকেই জাভেদ হাবিব একাডেমী থেকে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত ফলে এখান থেকে আপনি নির্ভরযোগ্য সেবাটি পাবেন। এতটুকু আমরা নিশ্চিত করতে পারি।

জাভেদ হাবিব হেয়ার এন্ড বিউটি’ উদ্বোধনের কার্যক্রম হিসেবে ১৩ ও ১৪ ডিসেম্বর  দু-দিনব্যাপী হেয়ার কাট ও মেহেদি ফেস্টিভ্যালের আয়োজন করা হয়েছে। এ  আয়োজনের বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে রাখা হয়েছে মাত্র =৪৯৯/-  টাকায় হেয়ার কাট সাথে ফ্রি মেহেদি উৎসব। এর সঙ্গে পুরো ডিসেম্বর মাসজুড়ে থাকছে ২০ পারসেন্ট মূল্য ছাড়।