বিনোদন

মনোনয়নপত্র গ্রহণ করেই যে প্রতিশ্রুতি দিল দুই প্যানেল

প্রকাশ : ০১ অক্টোবর ২০১৯ | আপডেট : ০১ অক্টোবর ২০১৯

মনোনয়নপত্র গ্রহণ করেই যে প্রতিশ্রুতি দিল দুই প্যানেল

প্রধান নির্বাচন কমিশনার ইলিয়াস কাঞ্চনের কাছ থেকে মনোনয়ন গ্রহণ করছেন মৌসুমী ও ডি এ তায়েব প্যানেল

  বিনোদন প্রতিবেদক

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির আসন্ন নির্বাচনে লড়ছে দুটি প্যানেল। একটি মৌসুমী-ডি এ তায়েব এবং অন্যটি মিশা সওদাগর ও জায়েদ খান প্যানেল।

মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত মনোনয়ন গ্রহণ করার সুযোগ পান প্রার্থীরা। দুই প্যানেলের পক্ষ থেকে ২১ জন করে প্রার্থীর জন্য মোট ৬০টি মনোয়নয়নপত্র গ্রহণ করা হয়। এবারের নির্বাচনে স্বতন্ত্রভাবে কেউ মনোনয়নপত্র ক্রয় করেননি বলেই জানা গেছে।

মঙ্গলবার দুপুর ২টার দিকে মিশা-জায়েদ খান প্যানেলের পক্ষ থেকে জায়েদ খান, ইমন, সুব্রত জেসমিনসহ অনেকে এফডিসিতে শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার ইলিয়াস কাঞ্চনের হাত থেকে মনোনয়নপত্র গ্রহণ করেন। এ সময় নৃত্য পরিচালক মাসুম বাবুল তাদের সঙ্গে ছিলেন।

পরে বেলা ৩টার দিকে মনোনয়নপত্র গ্রহণ করতে সমিতির কার্যালয়ে আসেন মৌসুমী ও ডি এ তায়েব। তারা ইলিয়াস কাঞ্চনের হাত থেকে মনোনয়নপত্র গ্রহণ করেন। 

প্রধান নির্বাচন কমিশনার ইলিয়াস কাঞ্চনের কাছ থেকে মনোনয়ন গ্রহণ করে  মিশা  সওদাগর ও জায়েদ খান প্যানেল

মনোয়নপত্র গ্রহণ করার পর মৌসুমী বলেন, 'আমরা ২১ জন প্রার্থীর জন্য ৩০টি ফরম গ্রহণ করেছি। কিছু ফরম ভুলবশত বাদ যেতে পারে বলেই বাড়তি ৯টি ফরম নেওয়া হয়েছে। আগামী দুই দিন আমরা নিজেদের প্যানেল গোছাব। এরপর জানানো হবে প্যানেলে অন্য প্রার্থী কারা থাকছেন। কারণ অনেকেই আশ্বাস দিয়েছিলেন আমাদের সঙ্গে নির্বাচন করার। কিন্তু তারা সরে দাঁড়িয়েছেন। তাই আপাতত কারা থাকছেন সেটা এখনই বলছি না।’

এ সময় মৌসুমী নির্বাচনে জয়ী হলে কী করবেন সে প্রতিশ্রুতির কথাও জানান। আরও জানান, সমিতির যে সদস্যদের বাদ দেওয়া হয়েছে জয়ী হলে তাদের নিয়ে পুনঃরায় ভাববেন তিনি। ভোটে যেই জয়ী হোক শিল্পীদের সবাইকে একসঙ্গে কাজ করারও আহবান জানান ঢাকাই ছবির জনপ্রিয় এ নায়িকা। মৌসুমীর মনোনয়ন গ্রহণ করার সময় তার স্বামী ওমর সানী উপস্থিত ছিলেন।

মৌসুমীর প্যানেলের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী ডি এ তায়েব বলেন, ‘আমি সবসময় শিল্পীদের পাশে থেকেছি। প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে শিল্পীদের সহায়তা আনার ব্যাপারে সবসময় কাজ করছি। আমাদের প্যানেল বিজয়ী হলে কাজটি আরও গতি পাবে। মৌসুমী আপাকে সঙ্গে নিয়ে শিল্পীদের উন্নয়নে আরও কাজ করব। একই সঙ্গে বিজয়ী হলে শিল্পীদের আবাসন সমস্যার দিকে নজর দেব। তাদের জন্য রাজধানীতে ফ্ল্যাটের ব্যবস্থা করবো।’

শিল্পী সমিতির বর্তমান মেয়াদের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে আছেন জায়েদ খান। দ্বিতীয় মেয়াদে এবারের নির্বাচনের মনোনয়ন গ্রহণ করার পর তিনি বলেন, আমাদের বর্তমান কমিটি জয়ী হওয়ার পর কী করেছে সেটা সব শিল্পীই জানেন। তাদের সমর্থন নিয়ে তাই আবারও আমাদের প্যানেল নির্বাচন করছে। এবার জয়ী হলে কাজের গতি আরও বাড়বে। শিল্পীদের পাশে আগে ছিলাম এবারও থাকতে চাই।’

এদিকে নির্বিাচন ঘিরে এখন মুখর এফডিসি প্রাঙ্গণ। এবারে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করছেন জ্যেষ্ঠ নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। তিন সদস্যের আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রযোজক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম খান। বাকি দুজন সদস্য হলেন পরিচালক সোহানুর রহমান ও রশিদুল আমিন। 

২৬ সেপ্টেম্বর তফসিল ঘোষণা দিয়ে শুরু হয় ২০১৯-২১ দ্বি-বার্ষিকী নির্বাচন। শুক্রবার খসড়া ভোটার তালিকায় ৪৪৯ সদস্যের নাম প্রকাশ করা হয়। 

৩ অক্টোবর দুপুর ১২টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত নির্বাচন কমিশনারের কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া যাবে। ওই দিনই বিকেল ৫টায় প্রার্থীদের খসড়া তালিকা প্রকাশ করা হবে। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ৫ অক্টোবর। ওই দিনই চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশিত হবে।

মন্তব্য


অন্যান্য