বিনোদন

মাইকেলকে নিয়ে নির্মিত তথ্যচিত্রেও যৌন নিপীড়ন বিতর্ক

প্রকাশ : ১১ জানুয়ারি ২০১৯ | আপডেট : ১১ জানুয়ারি ২০১৯

মাইকেলকে নিয়ে নির্মিত তথ্যচিত্রেও যৌন নিপীড়ন বিতর্ক

  অনলাইন ডেস্ক

জনপ্রিয় পপ তারকা মাইকেল জ্যাকসন মারা গেছেন প্রায় এক দশক হতে চলেছে। তবুও যেন বিতর্ক পিছু ছাড়ছে না তার। এবার বিতর্ক শুরু হয়েছে তাকে নিয়ে তৈরি তথ্যচিত্র 'লিভিং নেভারল্যান্ড' নিয়ে। 

দুনিয়া মাতানো এই সঙ্গীত শিল্পীকে নিয়ে নির্মিত তথ্যচিত্রটির এই মাসে প্রথম প্রদর্শনী হবে সানড্যান্স চলচ্চিত্র উৎসবে। কিন্তু তার আগেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। মাইকেল জ্যাকসন শিশুদের যৌন নিপীড়ন করতেন বলে এই তথ্যচিত্রে দেখানো হয়েছে। অবশ্য এর আগেও অনেকবার তার বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে। 

তথ্যচিত্রটিতে মাইকেলের যৌন নিপীড়নের শিকার হয়েছিল বলে দাবি করা দু'জনের সাক্ষাৎকার রয়েছে। এতে দু'জন পুরুষকে বলতে দেখা যায়, তাদের বয়স যখন সাত ও দশ বছর তখন মাইকেল জ্যাকসন তাদের যৌন নির্যাতন করেছিলেন। ওই দু'জনের বয়স এখন তিরিশের কোঠায়। 

১৩ বছর বয়সী এক কিশোর মাইকেল জ্যাকসনের দ্বারা যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন- এমন অভিযোগ তদন্ত করতে ২০০৩ সালে ক্যালিফোর্নিয়ার পুলিশ 'নেভারল্যান্ড' নামের তার খামারবাড়িতে তল্লাশি চালিয়েছিল। এই খামারবাড়িটির নামেই তথ্যচিত্রটির নাম রাখা হয়েছে।

'লিভিং নেভারল্যান্ড' তথ্যচিত্রে বর্ণনা করা হয়েছে, তারকাদের ঘিরে শিশুদের মনে যে ধরনের উন্মাদনা তৈরি হয়, মাইকেল জ্যাকসন সেটির অপব্যবহার করতেন, ছলচাতুরীর অবলম্বন করতেন। দুই পর্বের এই তথ্যচিত্রটি তৈরি করেছেন ড্যান রিড। এটি যৌথভাবে প্রযোজনা করেছেন ড্যান রিড, এইচবিও ও চ্যানেল ফোর।

তথ্যচিত্রটিকে 'কুরুচিপূর্ণ' উল্লেখ করেছে মাইকেল জ্যাকসনের পরিবার। এতে মাইকেল নামটিকে জঘন্যভাবে অপব্যবহারের চেষ্টা করা হয়েছে বলে এক বিবৃতিতে অভিযোগ করেন তারা। সূত্র: বিবিসি

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

কি হয়েছিল স্বরার সঙ্গে?


আরও খবর

বিনোদন
কি হয়েছিল স্বরার সঙ্গে?

প্রকাশ : ১৯ জানুয়ারি ২০১৯

স্বরা ভাস্কর- ফাইল ছবি

  অনলাইন ডেস্ক

ভারতে '#মিটু' আন্দোলনের মশাল জ্বালিয়ে দিয়ে সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে গেছেন বলিউড অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত। তবে তিনি ফিলে গেলেও এখনও বহু তারকা নিজেদের যৌন হেনস্তার ঘটনা প্রকাশ্যে জানাচ্ছেন। এবার নিজের সঙ্গে ঘটে যাওয়া যৌন হেনস্তার খবর জানালেন 'ভিরে দি ওয়েডিং' খ্যাত অভিনেত্রী স্বরা ভাস্কর।

জি-নিউজ জানায়, অন্যান্য বলিউড অভিনত্রীর মতো স্বরা ভাস্করও যৌন হেনস্তার শিকার হয়েছিলেন। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে স্বরার জীবনে ঘটে যাওয়া সেই দু:সহ স্মৃতি কথা বর্ণনা করেছেন।

স্বরা জানান, এক পরিচালক তাকে যৌন হেনস্তা করে। কিন্তু তিনি যে এই বিরুপ পরিস্থিতির শিকার হয়েছিলেন, তা সে সময় বুঝতেই পারেননি নায়িকা। অবশ্য সেই পরিচালকের নাম মুখে আনেননি স্বরা।


স্বরা আরও জানান, সেই ঘটনা বুঝতে আমার ছয় থেকে আট বছর  সময় লেগেছিল। সে সময় কোনও একটা আলোচনায় আমি অন্য কাউকে তার হেনস্তার কথা বলতে শুনেছিলাম। তখন আমি ভেবেছিলাম, আমার সঙ্গে যেটা হয়েছিল কাজের জায়গায় সেটাও তো তা হলে যৌন হেনস্তা! আমাকে রীতিমতো লুঠ করেছিল ওই পরিচালক।

এতদিন পর তিনি মুখ খুললেও, সামাজিক ভাবে আরও বেশি সচেতন হওয়ার বার্তা দিয়েছেন তিনি। 

পরের
খবর

মুয়াজ্জিন থেকে সিনেমার ভিলেন


আরও খবর

বিনোদন
মুয়াজ্জিন থেকে সিনেমার ভিলেন

প্রকাশ : ১৯ জানুয়ারি ২০১৯

আশরাফুল হক ডন

  অনলাইন ডেস্ক

চলচ্চিত্রের মন্দলোক হিসেবে পরিচিত আশরাফুল হক ডন। দর্শকরা যাকে খলনায়ক ডন হিসেবেই চেনেন। অথচ এই চলচ্চিত্রে খলনায়ক হওয়ার আগে মসজিদে আযান দিতেন তিনি। মসজিদের মুয়াজ্জিনের ভুমিকা পালন করতেন। 

বগুড়ায় জন্ম ডনের। বাবা প্রয়াত হলেও মা বসবাস করছেন আমেরিকায়। দশ ভাই বোনের মধ্যে সবার ছোট ডন।  ১৯৭১ সালে জন্ম নেয়া ডন  বগুড়া ছেড়ে ঢাকায় আসার পরই পরিচিত হয় পরিচালক সোহানুর রহমান সোহানের সঙ্গে। তিনিই প্রথম তাকে চলচ্চিত্রে সুযোগ দেন। ছবির নাম ‘লাভ’। কিন্তু ডনের প্রথম মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’। তখন থেকেই  চলচ্চিত্র তার ধ্যান-জ্ঞান হয়ে যায়।

আশরাফুল হক ডন

‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছবিতে অভিনয়ের সুবাধেই পরিচিত হয় প্রয়াত নায়ক সালমান শাহর সঙ্গে। শুরু হয় তাদের বন্ধুত্বও। চলচ্চিত্র ইন্ডাষ্ট্রিতে ডন সালমান শাহর সবচেয়ে কাছের বন্ধু্টিই ছিলেন। ডনের সঙ্গে গল্প নিয়ে বসলে কোন না কোনভাবে সেখানে সালমান শাহকে নিয়ে স্মৃতি রোমন্থন করবেনই তিনি।

সম্প্রতি বৈশাখী টিভিতে নতুন বছর থেকে শুরু হয়েছে  শোবিজ মিডিয়ার তারকাদের জীবনীভিত্তিক অনুষ্ঠান ‘প্রিয়মুখ’। আজ সন্ধ্যা ৬.১৫ মিনিটে  প্রচার হবে এ অনুষ্ঠানের তৃতীয় পর্ব। এ অনুষ্ঠানের  জন্য মুখোমুখি কথা বলেছেন খলনায়ক ডন। সেখানেই নিজের সম্পর্কে নানা অজানা তথ্য শেয়ার করলেন এ খল অভিনেতা। জানালেন সালমান শাহর সঙ্গে তার বন্ধুত্বের গল্পও। 

আশরাফুল হক ডন

সালমান শাহকে নিয়ে স্মৃতি চারণ করতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন ডন। জানান বন্ধু হারানোর বেদনা। প্রিয় বন্ধুটি চলে যাওয়ায় চলচ্চিত্রের অপূরণীয় ক্ষতির কথাও। 

সালমান শাহ অভিনীত ২৭টি ছবির মধ্যে ২৪ টিতেই খলনায়কের চরিত্রে অভিনয় করেন ডন। তার অভিনীত  হিট ছবির তালিকায় রয়েছে  ‘এ জীবন তোমার আমার, বিক্ষোভ, ভালোবাসার মূল্য কত, তোমাকে চাই, ফুলের মতো বউ, বিয়ের ফুল, জীবন সংসার, ভালোবাসা কারে কয়, মহামিলন, মিলন হবে কত দিনে‘র মতো ছবি। 

ডন অভিনীত  ছবির সংখ্যা প্রায় সাড়ে ৬শ’ । চলচ্চিত্র ছাড়াও বেশ কয়েকটি টিভি নাটকেও অভিনয় করেন তিনি। কৌশিক হোসেন তাপস পরিচালিত ‘কত ভালোবাসি তোমাকে’ টেলিফিল্মে নায়িকা জনার বিপরীতে নায়কও চিলেন তিনি।  অভিনয়ের পাশাপাশি ‘এক জনমের ভালোবাসা’ নামে একটি চলচ্চিত্রও প্রযোজনা করেন।

গড়ে তুলেছেন ব্যান্ড দল ‘আর্কাইভ’। জড়িত আছেন নানা রকম সামাজিক কর্মকাণ্ডে। এক সময় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদকের দায়িত্বও পালন করেন তিনি।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

নাঈম-টয়ার ‘রঙ বদল’ দেখা যাবে আজ


আরও খবর

বিনোদন

টয়া ও নাঈম

  অনলাইন ডেস্ক

রাতুল প্রতি বছর একটি নির্দিষ্ট দিনে নেপালে ঘুরতে যায়। তার স্ত্রী মারা যাওয়ার পর থেকেই এই যাওয়ার কারণ। এখন সঙ্গী তার একমাত্র ছোট বোন। তারা এবছরও ঘুরতে আসায় সেখানে থাকা টুরিস্ট অফিসে কর্মরত হানির সঙ্গে রাতুলের পরিচিত ঘটে। প্রতি বছর একই সময়ে এখানে আসায় কৌতুহলের বশে রাতুলের সঙ্গে নিজ থেকেই পরিচিত হানি। এভাবে কথা শুরু হয়ে কিছুদিনর মধ্যেই তাদের মধ্যে প্রেম হয়ে যায়।

হানি তার ব্যাক্তি জীবনের সব কিছু খোলসা করে রাতুলের কাছে। রাতুলও তার নেপালে আশার বিশেষ কারণ বলে। রাতুলের সঙ্গে হানি কথায় কথায় গাঢ় হতে থাকে তাদের প্রেম।অন্যদিকে,হুট করেই কিডন্যাপ হয় রাতুলের ছোট বোন। বিপাকে পরে যায় সে। সাহায্যের হাত বাড়ায় হানি। একদিকে তাদের প্রেম অন্য দিকে রাতুলের কিডন্যাপড বোন। রাতুলের বোন আদৌ কি উদ্ধার হয় বা তাদের প্রেমের শেষ পরিনতি কি ঘটে? এমনই মানসিক টানাপোড়েনের গল্পে ঘটে যায় আরেক বিপত্তি। কি সেই বিপত্তি?

নাঈম ও টয়া

তপু খানের গল্প ভাবনায় নাটকটি রচনা করেছেন কুদরত উল্লাহ। পরিচালনায় মাহাদী শাওন। এতে রাতুল চরিত্রে দেখা যাবে রোমান্টিক অভিনেতা এফ এস নাঈম ও হানি চরিত্রে আছেন সাবলীল অভিনেত্রী মুনতাহিনা টয়া। নাটকটিতে আরও অভিনয় করেছেন আজিজুর রহমান আজাদ, সোহানি, আনিসুর রহমান রাজীব, বিকাশ বঙ প্রমুখ। 

নাটকটি নিয়ে এফ এস নাঈম বলেন, ‘দেশের বাইরে শুটিং তাই খুব যতনে অভিনয় করতে হয়েছে। পুরো টিম অনেক পরিশ্রম করেছি। বিশেষ করে নাটকটির পরিচালক মাহাদী শাওন অনেক চেষ্টা ও পরিশ্রম করেছে। যাতে নাটকটির মান সবদিক দিয়ে ভালো হয়। খুবই ভালো একটি নাটকে কাজ করলাম।’

নাটকটি নিয়ে অভিনেত্রী টয়া বলেন, ‘দেশের বাইরে শুটিং করতে গিয়ে এই নাটকটিতে অভিনয় করতে হয়েছে নেপালে। সেখানকার পরিবেশ এমনিতেই সুন্দর। গল্প ও রচনা সব মিলিয়ে বলতে গেলে অসাধারণ টুইস্ট আছে। যে টুইস্ট গুলো বিদেশে দৃশ্যধারণ করা নাটক গুলোতে অনেক প্রয়োজন। দর্শক “রং বদল” নাটকটি দেখলে বেশ মজা পাবেন’।

আজ রাত ৯টা ৫মিনিটে এনটিভিতে প্রচার হবে নাটকটি। 

সংশ্লিষ্ট খবর