বিনোদন

পথশিশুদের সঙ্গে জন্মদিন উদযাপন করলেন নায়ক

প্রকাশ : ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮

পথশিশুদের সঙ্গে জন্মদিন উদযাপন করলেন নায়ক

সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সঙ্গে কেক কাটছেন নায়ক বাপ্পি চৌধুরী- সমকাল

  অনলাইন ডেস্ক

ভক্তদের কাছে তারকা মানেই ভিন্ন কিছু। স্বপ্নের জগতের মানুষ। পছন্দের তারকার সঙ্গে একটু দেখা করা, সেলফিবন্দি হওয়া, প্রিয় তারকার সঙ্গে সামান্য কথা বলা- এসব মানেই যেন ভক্তদের পরম পাওয়া। এই ভক্তদের জন্যই তারকা তারা। তাই  তাদের প্রতি থাকে অগাধ ভালোবাসা।

ভক্ত ও পথশিশুদের নিয়ে নায়কের জন্মদিন উদযাপন - সমকাল

ভক্তদের 'মিষ্টি যন্ত্রণা' তারকাদের সামান্য বিব্রত করলেও এটাকে  তারা ভালোবাসার বহি:প্রকাশ বলেই ধরে নেন। ঢাকাই ছবির অন্যতম জনপ্রিয় নায়ক বাপ্পি চৌধুরী। ভক্তরা ভালোবেসে তার নামে অনেক ফ্যানপেজে বা গ্রুপ খুলেছেন স্যোস্যাল মাধ্যমে। এর অন্যতম দুটি অফিসিয়াল গ্রুপ হচ্ছে  ‘হার্ট অব বাপ্পি চৌধুরী গ্রুপ’ ও ‘টিম বাপ্পি’। 

বৃহস্পতিবার জন্মদিন উপলক্ষে দুটি গ্রুপ থেকেই আয়োজন করা হয় কেক কাটার। ধানমন্ডির একটি রেস্টুরেন্টে হার্ট অব বাপ্পি চৌধুরী গ্রুপ প্রিয় নায়ককে নিয়ে কাটে কেক। এ সময় বাপ্পি চৌধুরী তার ফেসবুকে ফ্যানপেজে লাইভে এসে এ দৃশ্য দেশব্যাপি অগণিত ভক্তদের সঙ্গে শেয়ারও করেন। 

ভক্ত ও পথশিশুদের নিয়ে নায়কের জন্মদিন উদযাপন- সমকাল 

এরপরই ছুটে যান ধানমন্ডির ১২ নাম্বারে। কারণ সেখানে ‘টিম বাপ্পি চৌধুরী’র সদস্যরা অপেক্ষা করছিলেন এ নায়কের জন্য। নায়ক এলে পথশিশুদের নিয়ে জন্মদিনের কেক কাটা হবে। এখানে পৌছুলে পথশিশুরা হৈ চৈ করে ঘিরে ধরে নায়ককে। এরপর পথশিশুদের সঙ্গে কেক কাটেন বাপ্পি। তাদের হাত থেকে কেক খান। নিজেও তাদের খাইয়ে দেন। ভক্তদের এমন আয়োজনের মুহূর্তে বেশ আবেগপ্রবণ হয়ে যান এ নায়ক। 

সমকাল অনলাইনকে বাপ্পি চৌধুরী বলেন, ‘এটাই হচ্ছে আসল ভালোবাসা। অথচ আমাদের কাছে তাদের কোন স্বার্থ নেই। ভক্তরা বাংলা ছবিকে ভালোবেসে আমাদের এমন সম্মান দিচ্ছেন। এমন ভালোবাসছেন আমাকে। এরচেয়ে বড় পাওয়া আর কী হতে পারে? পথশিশুদের সঙ্গে অনেকটা সময় কাটালাম। সময়টা আমার জন্য স্মরীয় হয়ে থাকবে। সবার প্রতি অনেক অনেক ভালোবাসা।’

বাপ্পি  চৌধুরী ফ্যান ক্লাবের সদস্যদের সঙ্গে বাপ্পি- সমকাল

২০১২ সালে ‘ভালোবাসার রং’ ছবির মাধ্যমে চলচ্চিত্রে আসেন তিনি। এরই মধ্যে অভিনয় দিয়ে ঢালিউডে নিজের শক্ত অবস্থান তৈরি করেছেন বাপ্পী। প্রথম দুটি চলচ্চিত্র জাজ মাল্টিমিডিয়ার ব্যানারে হলেও পরে অন্য প্রযোজনা সংস্থার সঙ্গেও ছবি করেছেন বাপ্পী। এ পর্যন্ত তার প্রায় ৩২টি ছবি মুক্তি পেয়েছে । সর্বশেষ বাপ্পীর মুক্তি পাওয়া ‘নায়ক’ ছবিটি বেশ প্রশংসিত হয়।

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

শুটিংয়ে আহত ক্যাটরিনা


আরও খবর

বিনোদন
শুটিংয়ে আহত ক্যাটরিনা

প্রকাশ : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

ক্যাটরিনা কাইফ- ফাইল ছবি

  অনলাইন ডেস্ক

বলিউড অভিনেত্রী ক্যাটরিনা কাইফ অভিনীত 'ভারত' ছবির শুটিং শেষের দিকে। সবকিছু ঠিকঠাক চলছিল। কিন্তু ছবির একটি অ্যাকশন দৃশ্যের শুট করতে গিয়ে বিপাকে পড়েন 'বিউটি কুইন'। 

জি-নিউজ জানায়, আলী আব্বাস জাফরের 'ভারত' ছবিতে ক্যাটরিনার নায়ক হিসেবে আছেন বলিউড সুপারস্টার সালমান খান। ছবিটির কাজ প্রায়ই শেষ। বাকি ছিল শুধু একটি গানের শুটিং। ওই শুটিংয়ে ক্যাটরিনা গোড়ালিতে চোট পাওয়ায় আপাতত বন্ধ রয়েছে গানটির কাজ। 

ক্যাট একটি অ্যাকশন সিকোয়েন্সের শুটিংয়ে চোট পেয়েছেন বলে জানা গেছে। তার চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, গোড়ালিতে গুরুতর চোট পেয়েছেন ক্যাটরিনা। চোটের কারণে ঠিকমতো হাঁটতেও পারছেন না তিনি। এজন্য বেশ কিছুদিন তাকে বিশ্রামে থাকতে হবে।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

ভাষার আর্তনাদে সজল-রুহী


আরও খবর

বিনোদন
ভাষার আর্তনাদে সজল-রুহী

প্রকাশ : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

সজল ও রুহী

  বিনোদন প্রতিবেদক

রাহা ইংরেজি বাংলা মিশিয়ে বাংলিশে কথা বলতেই বেশি ভালোবাসে। এই সময়ের ডিজুস টাইপের ছেলেমেয়েদের একটা সার্কেলও আছে তার। রাহার দু:সম্পর্কের আত্মীয়র ছেলে আবির আসে আমেরিকা থেকে তাদেরই বাসায়।

যে ছেলে আমেরিকার মতো দেশে থেকেও নিজের দেশ, ভাষা ও সংস্কৃতিকে এতো ভালোবাসে, অথচ দেশে থেকেও এখনকার ছেলেমেয়েরা যেনো আল্টামডার্ন হওয়ার প্রতিযোগিতায় ব্যতিব্যস্ত। তাই তো আবিরের সাথে রাহা ও তার বন্ধুবান্ধবের একটা দ্বন্দ্ব লেগে যায়। একটা পর্যায়ে রাহা বন্ধুদের সহায়তা চায় এই বিদেশী ছেলেটাকে শিক্ষা দেয়ার জন্য। ঘটনা মোড় নিতে থাকে ভিন্ন দিকে। তাই তো আবির দেশ ছেড়ে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। তবে যাওয়ার আগে কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারে যায় সে। ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে। কারন এই ভাষা শহীদদের মধ্যে যে আবিরের দাদাও আছেন।

নাটকের অন্যান্য  অভিনয় শিল্পীরা

যে ভাষার জন্য একদিন এদেশের সন্তানেরা জীবন দিয়েছিল, সেই ভাষার অবস্থা দেখে, সেই ভাষার আর্তনাদে আবিরের সত্যিই কষ্ট লাগে। শেষমেষ আবির রাহাদের বাসায় একটি চিঠি লিখে যায়। কি থাকে সেই চিঠিতে?  দর্শকরা নাটকটি দেখলেই জানতে পারবেন সেটা। 

ফ্যাক্টর থ্রি সলিউশনস নিবেদিত ও ত্রিধারা মিডিয়া প্রযোজিত নাটকটিতে আবির চরিত্রে সজল ও রাহা চরিত্রে নুসরাত জান্নাত রুহী অভিনয় করেন।

এতে অভিনয় প্রসঙ্গে সজল বলেন,‘এই সময়ের পুত পুত প্রেমের বাইরে গিয়ে একেবারেই ভিন্ন টাইপের একটা গল্পের নাটক ‘ভাষার আর্তনাদ’। এই নাটকে আমার চরিত্রটির মধ্যে একটা শিক্ষামূলক বিষয় আছে। একেবারেই সময় উপযোগী একটা নাটক। যা দেখলে দর্শক আমাদের বাংলা ভাষার প্রতি অন্যরকম ভালোবাসা অনুভব করবেন।’ 

রুহী বলেন, ‘আমার ক্যারিয়ারে এই প্রথম আমি এমন একটি চরিত্রে অভিনয় করেছি। এখনকার কিছু প্রজন্ম আছে যারা বাংলা ভাষাটাকে ইংরেজি আর বাংলায় মিশিয়ে ‘বাংলিশ’ ভাষায় কথা বলে। যা অবশ্যই ভাষা শহীদদের রক্তে অর্জিত এই বাংলা ভাষার জন্য মান হানিকর। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে এমন একটি শিক্ষামূলক নাটকে কাজ করতে পেরে বেশ ভালো লাগছে।’ 

সৈয়দ ইকবালের রচনায় নাটকটি পরিচালনা করেছেন স্বাধীন ফুয়াদ। সম্প্রতি জাতীয় শহীদ মিনার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ফুলার রোডসহ উত্তরা বিভিন্ন লোকেশনে নাটকটির চিত্রায়ণ করা হয়। এতে বিভিন্ন চরিত্রে আরও অভিনয় করেছেন নিশাত খুশবু, শিরিন আলম, পীরজাদা শহিদুল হারুন, আশরাফুল আলম সোহাগ, অনিক, তুরিন, সুমন, তুষার প্রমুখ। 

২১শে ফেবরুয়ারিতে রাত ৯ টায় নাগরিক টিভিতে প্রচার হবে নাটকটি।         

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

ঢাকায় ‘হাউ টু ট্রেইন ইওর ড্রাগন’


আরও খবর

বিনোদন
ঢাকায় ‘হাউ টু ট্রেইন ইওর ড্রাগন’

প্রকাশ : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

‘হাউ টু ট্রেইন ইওর ড্রাগন’ ছবির একটি দৃশ্য

  অনলাইন ডেস্ক

হাউ টু ট্রেইন ইওর ড্রাগন যারা দেখেছেন তারা টুথলেসকে ভালোবেসে ফেলেননি, এমন খুব কমই পাওয়া যাবে। শুধু কি টুথলেস? হিকাপ, অস্ট্রিড পুরো সিরিজটিই যেন হলিউডের দর্শকদের জন্য অন্যরকম ভালোবাসার নাম। ২০১৪ সালে মুক্তি পেয়েছিলো হাউ টু ট্রেইন ইওর ড্রাগন টু। বিশ্বব্যাপী দারুণ সাফল্য পাওয়া ছবিটির রেশ এখনো অনেকের মনে লেগে আছে নিশ্চয়ই। ২০১০ সালেই ড্রিমওয়ার্কস থেকে ঘোষণা দেওয়া হয়েছিলো, হাউ টু ট্রেইন ইওর ড্রাগন তিন পর্বের একটি সিরিজ হবে। সেই থেকে পরবর্তী ছবির জন্য দর্শকদের অপেক্ষা শুরু। হাউ টু ট্রেইন ইওর ড্রাগন টু অপেক্ষার তীব্রতা আরো বাড়িয়ে দেয়। এবার অপেক্ষার অবসান হতে চলেছে। ২২ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিকভাবে মুক্তি পেতে যাচ্ছে হাউ টু ট্রেইন ইওর ড্রাগন: দ্য হিডেন ওয়ার্ল্ড। একই দিনে বাংলাদেশের স্টার সিনেপ্লেক্সে মুক্তি পাবে ছবিটি। 

বরাবরের মতো ড্রিমওয়ার্কস আর ইউনিভার্সাল পিকচার্স নিয়ে আসছে ক্রেসিডা কাওয়েলের বইয়ের ওপরে নির্মিত অ্যানিমেশন ছবিটি। গত ৩ জানুয়ারি অস্ট্রেলিয়ায় মুক্তি পেয়েছে ছবিটি। ১২৯ মিলিয়ন ডলার খরচ করে নির্মিত ছবিটি মুক্তির আগেই আয় করে নিয়েছে ৪১ মিলিয়ন ডলার। সমালোচকদের মতে, আগের দুটি ছবির ধারা বজায় রাখতে সফল হয়েছে হাউ টু ট্রেইন ইওর ড্রাগন: দ্য হিডেন ওয়ার্ল্ড। শুধু তাই নয়, শেষ অংশে এসে দর্শকদের আবেগতাড়িতও করেছে চলচ্চিত্রটি। সাফল্যের দিক থেকে আগের ছবিকে ছাড়িয়ে যাবে বলে প্রত্যাশা নির্মাতাদের। 

এবারের ছবির গল্প এগিয়ে যাবে হাউ টু ট্রেইন ইওর ড্রাগন টু-এর পর থেকে। হিকাপ আগের মতোই নিজের সঙ্গী ড্রাগন রাইডারদের নিয়ে দুস্থ ও অসহায় ড্রাগনদের বাঁচিয়ে তোলার কাজ করে যাচ্ছে। ড্রাগন আর মানুষ বন্ধু হিসেবে একে অন্যের সঙ্গে থাকবে এমনটাই চিন্তা তার। কিন্তু এতে করে হিতে বিপরীত হলো। ধীরে ধীরে হিকাপের আবাসস্থলে থাকা কঠিন হয়ে পড়ল। এমন সংকটের মধ্যে হিকাপের মাথায় খেলা করল তার বাবা স্টয়িকের কথা। বাবা বলেছিল ড্রাগনদের জন্য একটা গোপন পৃথিবী খুঁজে বের করতে, যেখানে তারা নিজেদের মতো করে জীবনযাপন করবে। বাবার কথার সূত্র ধরে শুরু হয়ে গেল হিকাপের সেই গুপ্ত দুনিয়া খোঁজার অভিযান। সঙ্গী হলো বরাবরের মতো টুথলেস। কিন্তু এমন কোনো জায়গার খোঁজ কি হিকাপ পাবে?

সংশ্লিষ্ট খবর