বিনোদন

'জীবনের শেষদিন পর্যন্ত গান গেয়ে যাব'

প্রকাশ : ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮

'জীবনের শেষদিন পর্যন্ত গান গেয়ে যাব'

লতা মঙ্গেশকর- ফাইল ছবি

  অনলাইন ডেস্ক

ভারতের কিংবদন্তি সঙ্গীতশিল্পী লতা মুঙ্গেশকর। এখন পর্যন্ত তিনি দেশী-বিদেশী মিলিয়ে হাজারের ওপর সিনেমার গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। গানের সুরে কয়েক দশক জুড়ে তার বিজয়ী বিচরণে বিমোহিত হয়েছে বিশ্ব। সুরেলা কণ্ঠের এই অধিকারী ঘরে তুলেছেন একাধিক পুরস্কারও। সম্প্রতি গুজব রটে গান গাওয়া থেকে অবসর নিয়েছেন ৮৯ বছর বয়সী এই সঙ্গীতশিল্পী!

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানায়, হঠাৎ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব রটে, লতা মুঙ্গেশকর আর গান গাইবেন না। এহেন খবরে যারপনাই নাখোশ হন তিনি। অনেকটাই বিরক্ত হয়ে বিষয়টি গুজব বলে উড়িয়ে দেন লতা মঙ্গেশকর।

এ বিষয়ে সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে লতা বলেন,‌ 'জানি না কারা, কে কেন এই গুজব ছড়াচ্ছে! আমি একটি কথাই বলব, যাদের কোনো কাজ নেই, তারাই কেউ এমনটা করছে।' 

দু'দিন আগে থেকে এ বিষয়ে শুভাকাঙ্খিদের কাছ থেকে বার্তা পাচ্ছি, ফোন পাচ্ছি। আমার অবসরের কথা শুনে অনেকেই বিষ্ময় প্রকাশ করেছেন।'

লতা মঙ্গেশকর জানান, ৫ বছর আগে অর্থাৎ ২০১৩ সালে মারাঠি ভাষায় একটা গান গেয়েছিলাম। ওই সময় সংগীত পরিচালক সলিল কুলকার্নি গানটা তার কাছে নিয়ে আসেন। আর এই গানটি লিখেছেন প্রখ্যাত কবি বালাকৃষ্ণ ভগবন্ত বরকার। গানটি গাওয়ার ব্যাপারে লতা মঙ্গেশকর রাজি হন।

কিংবদন্তিদের সঙ্গে গানের রেকডিংয়ে লতা মঙ্গেশকর 

তিনি আরও জানান, এই কবির কোনো কবিতা থেকে এর আগে আমি কোন গান গাইনি। কিন্তু তখন একবারও ভাবতে পারিনি, কিছু নিচু মন-মানসিকতার মানুষ এটিকে আমার শেষ গান হিসেবে গুজব বলে রটিয়ে দিবে।'

অবসর প্রসঙ্গে  লতা বলেন, 'আমি মোটেই অবসর নিচ্ছি না। জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত গান গেয়ে যাব। সংগীত আমার অস্তিত্বে মিশে আছে।'

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

রাজকীয় বিয়েতে নাচলেন হিলারি-কেরি-শাহরুখ-ঐশ্বরিয়া


আরও খবর

বিনোদন

  অলাইন ডেস্ক

চোখ ধাঁধানো আলোয় মোড়া মঞ্চে বাজছে একের পর এক বলিউডি গান। সেসব গানের সঙ্গে নাচছেন অভিনেতা শাহরুখ খান, আমির খান, অভিষেক বচ্চন, ঐশ্বর্য রাই বচ্চনের মতো তারকারা। 

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পরারাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটনের সঙ্গে নাচেন নীতা আম্বানি। আরেক সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরিকে নিয়ে মঞ্চে নাচেন মুকেশ আম্বানিও।

বলিউড সেলিক্রেটি থেকে শুরু করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পররাষ্ট্র মন্ত্রী- মেয়ে ইশার বিয়েতে সবাইকে এভাবেই নাচিয়ে ছাড়লেন ধনকুবের মুকেশ আম্বানি। 

মুম্বাইয়ের অ্যান্টিলিয়া প্রাসাদে হচ্ছে ইশা আম্বানির বিয়ের অনুষ্ঠান। এর আগে রাজস্থানের উদয়পুরে বিয়ের আগের আনুষ্ঠানিকতা সেরেছে আম্বানি পরিবার। সেখানে হাজির ছিলেন পিরামল পরিবারের সদস্যরাও। 

বিয়ে উপলক্ষে অ্যান্টিলিয়া প্রাসাদ আলো ঝলমলে রূপে সেজেছে। ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জিও যোগ দিয়েছেন আড়ম্বপূর্ণ এ বিয়ের অনুষ্ঠানে। 

ঈশার বিয়েতে ব্যবসা ও বিনোদন জগতের সেলিব্রেটি ছাড়াও ক্রীড়াঙ্গণের তারকারাও যোগ দিচ্ছেন বলে শোনা যাচ্ছে। আগামী ১৪ ডিসেম্বর জিও গার্ডেনে রাজকীয় প্রীতিভোজের আয়োজন করেছে আম্বানি পরিবার। রয়েছে সংগীত সন্ধ্যাও। সূত্র: জিনিউজ 


সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

আম্বানিকন্যার বিয়েতে কত আয় বিয়ন্সের


আরও খবর

বিনোদন

ফাইল ছবি

  অনলাইন ডেস্ক

ভারতীয় ধনকুবের মুকেশ আম্বানিকন্যার বিয়ে বলে কথা। আর সেই বিয়ের আগে সঙ্গীতানুষ্ঠানে বিশ্বের সেরা শিল্পী অংশ নেবেন- এটাই স্বাভাবিক। এ উপলক্ষে সুদূর যুক্তরাষ্ট্র থেকে উড়ে এসেছেন গ্র্যামিজয়ী বিয়ন্সে নোয়েলস।

এই অনুষ্ঠানে পারফর্ম করার জন্য যে পরিমাণ তিনি আয় করেছেন, এ তথ্য জানলে অবাক হবেন বটে!

হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, উদয়পুরে ইশা অম্বানির প্রাক-বিয়ে থেকেই বসেছিল চাঁদের হাট। বলিউডের রথি-মহারথী ছাড়াও সে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিন্টন, ভারতের ধনকুবের লক্ষ্মী মিত্তাল, ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকার, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফডনবিশ, মিডিয়া মোগল আরিয়ানা হাফিংটন, সৌদি আরবের মন্ত্রী খালিদ আল ফালি প্রমুখ।

বিয়ন্সে নোয়েলস 

তবে প্রাক-বিয়ের আসরে বড় চমক ছিল গায়িকা বিয়ন্সের উপস্থিতি। এদিন গানের সঙ্গে শরীরী লাস্যে আগুন ঝড়ান তিনি।

জানা গেছে, এই শিল্পীকে আনতে মুকেশ আম্বানিকে গুনতে হয়েছে ২১-২৮ কোটি রুপির মতো।

বুধবার নিজেদের বিলাসবহুল বাড়ি 'আনতিলিয়া'তে আনন্দ পিরামলের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন ইশা অম্বানি।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

এফডিসিতে হবে আধুনিক মসজিদ


আরও খবর

বিনোদন
এফডিসিতে হবে আধুনিক মসজিদ

প্রকাশ : ১২ ডিসেম্বর ২০১৮

এফডিসির আধুনিক মসজিদের ভিত্তিপ্রস্তুর অনুষ্ঠানে তারকারা

  অনলাইন ডেস্ক

দুই কোটি ৯ লাখ টাকা ব্যয়ে চলচ্চিত্রপাড়া খ্যাত এফডিসিতে নির্মিত হচ্ছে আধুনিক সুসজ্জিত মসজিদ। মজিল মোল্লা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ও সমাজ সেবক আবদুল কাদির মোল্লার অর্থায়নে চিত্রপাড়ার ঝর্ণা শুটিং স্পট পুরাতন জামে মসজিদের জায়গায় নির্মিত হচ্ছে মসজিদটি। 

বুধবার বিকেলে মসজিদটির ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা হয়। ভিত্তি প্রস্তুর স্থাপন করেন আবদুল কাদির মোল্লা। উপস্থিত ছিলেন চলচ্চিত্র অভিনেতা ফারুক, এফডিসির এমডি আমির হোসেন, চিত্রনায়ক ওমর সানি, জায়েদ খান, বাপ্পী চৌধুরী, সাইমন সাদিক, জয় চৌধুরী, সনি রহমান, চিত্রপরিচালক মুশফিকুর রহমান গুলজার, বদিউল আলম খোকন, শাহীন সুমন প্রমুখ।

এফডিসি জামে মসজিদের ভিত্তিপ্রস্তর

এ সময় চিত্রনায়ক ফারুক বলেন, বাইরের মানুষ মনে করেন চলচ্চিত্রে যারা কাজ করেন তারা ধর্মভীরু নন। কিন্তু এটা পুরোপুরি ভুল ধারণা। বরং চলচ্চিত্রের মানুষ আল্লাহকে বেশি ডাকে। ধর্ম পালনে সচেতন থাকে। যিনি মসজিদ তৈরি করে দিলেন তার কাছে আমরা ঋণি। যদিও এ ঋণ শোধ করতে পারবো না। সবাই তার জন্য দোয়া করবেন।’ 

ভিত্তিপ্রস্তার স্থাপন অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে শিল্পী সমিতির সেক্রেটারি জায়েদ খান বলেন, 'শিল্পী সমিতি সবসময় ভালো কাজের সঙ্গে রয়েছে। সনি রহমান যখন উদ্যোগ নিয়ে আমাদের কাছে বিষয়টি বলে, তখন থেকেই শিল্পী সমিতি তাকে সহায়তা করে আসছে। অবশেষে মসজিদটির কাজ শুরু হচ্ছে। আশা করি দ্রুত কাজ শেষ হবে।' 

ভিত্তিপ্রস্তুর উদ্ভোধন শেষে  মোনাজাতে সবাই

মসজিদ নির্মাণের কাজ তদারককারী অভিনেতা সনি রহমান সমকাল অনলাইনকে বলেন, 'মসজিদটি পুনঃনির্মাণ কাদির মোল্লার অর্থায়নেই হচ্ছে। কাদির মোল্লা এর আগে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়সহ সারা দেশের সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে শতাধিক মসজিদ নির্মাণ করেছেন। এখন ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হলো। এফডিসি কর্তৃপক্ষ যত দ্রুত পুরোনো স্থাপনা সরিয়ে কাজের সুযোগ করে দেবে তত দ্রুত আমরা মসজিদটির কাজ শুরু করতে পারবো।’

তিনি জানান, আধুনিক সব সুবিধা নিয়েই নির্মিত হবে মসজিদটি। আশা করা হচ্ছে ২০১৯ সালেই নির্মাণ কাজ শেষ হবে।

সংশ্লিষ্ট খবর