অন্যান্য

শাহবাগে দাঁড়িয়ে সালমান শাহ হত্যার বিচার চাইলেন ভক্তরা

প্রকাশ : ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | আপডেট : ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

শাহবাগে দাঁড়িয়ে সালমান শাহ হত্যার বিচার চাইলেন ভক্তরা

  বিনোদন প্রতিবেদক

ঢাকাই ছবির অমর নায়ক সালমান শাহ। ২৩ বছর আগে ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর রহস্যজনক মৃত্যু হয় তার। চির বিদায়ের এতোদিন পরেও তাকে নিয়ে ভক্তদের মাতামাতির শেষ নেই। বিদায়ের এই দিনে শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় স্মরণ করা হলো প্রিয় নায়ককে।

মৃত্যুর এতো বছর পরেও ঢাকাই ছবির অমর এ নায়কের মৃত্যু নিয়ে রহস্যের জট খোলেনি। সালমান শাহর মৃত্যু কোনো সাধারণ মৃত্যু নয় বলে দাবি তার পরিবারের। একই দাবি ভক্তদেরও। এটিকে হত্যাকাণ্ড দাবি করে দীর্ঘদিন ধরেই সেই হত্যার ন্যায়বিচার চাইছেন ভক্তরা।

ন্যায়বিচার চাইলেন আজও। সালমান শাহ চলে যাওয়ার এই দিনে তাকে হত্যার ন্যায় বিচারের দাবিতে ‘টিম সালমান শাহ’র ব্যানারে রাজধানীর শাহবাগে সমাবেশ করেছেন সালমান শাহর ভক্তরা।

শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে সালমান শাহের ভক্তরা মানবন্ধন ও সমাবেশ করেন। মানববন্ধনে ভক্তরা সালমান শাহর হত্যাকারীদের বিচারের আওতায় এনে ফাঁসির দাবি জানান। এ ব্যাপারে প্রশাসনের আরও সুদৃষ্টি কামনা করেন তারা।

‘টিম সালমান শাহ’ এবং সালমান শাহ স্মৃতি সংসদের প্রতিষ্ঠাতা মাসুদ রানা নকীব বলেন, তার মৃত্যু স্বাভাবিক নাকি অস্বাভাবিক এই ধুম্রজাল এখনও কাটেনি। আমরা তার মৃত্যুর কারণ জানতে চাই। মৃত্যুর আগে তিনি নানারকম পলিটিক্সের শিকার হয়েছিলেন। তার জনপ্রিয়তায় অনেকেই ঈর্ষাণ্বিত হয়ে বয়কটও করেছিলেন।

তৎকালীন সংবাপত্রের রেফারেন্স টেনে তিনি বলেন, সালমানের মৃত্যুর আগে কয়েকবার তাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল। তখনকার পত্রপত্রিকার রিপোর্ট তাই বলে। সবমিলিয়ে মিলিয়ে আমরা মনে করি সালমান শাহকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। আমরা এর সুষ্ঠ বিচার চাই। হত্যা করা হলে দায়ীদের ফাঁসি চাই।

সালমান শাহের প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে দেশের অনেক মসজিদ, মাদ্রাসায় 'টিম সালমান শাহে'র পক্ষ থেকে দোয়ার আয়োজন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর নিউ ইস্কাটন রোডের নিজ ফ্ল্যাটে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় সালমান শাহের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ময়নাতদন্তে এ ঘটনাকে আত্মহত্যা বললেও তার পরিবারের দাবি তাকে হত্যা করা হয়।

সম্প্রতি সালমান শাহর স্ত্রী সামিরার মামি মামলার ৮ নম্বর আসামি রুবি ফেসবুকে নিজের একটি ভিডিও বার্তায় সালমান শাহকে হত্যা করা হয়েছে দাবি করায় বিষয়টি আলোচনায় আসে। আলোচিত মামলাটি বর্তমানে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনে (পিবিআই) আছে।

মন্তব্য


অন্যান্য