অন্যান্য

সেলিম আল দীন স্মরণে শিল্পকলায় 'রহু চন্ডালের হাড়'

প্রকাশ : ২২ আগষ্ট ২০১৯

সেলিম আল দীন স্মরণে শিল্পকলায় 'রহু চন্ডালের হাড়'

  বিনোদন প্রতিবেদক

নাট্যাচার্য ড. সেলিম আল দীন স্মরণে  শুক্রবার অনুষ্ঠিত হবে 'রহু চন্ডালের হাড়' নাটকের দুটি বিশেষ প্রদর্শনী। এদিন বিকাল ৪টায় এবং সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় শিল্পকলা একাডেমির এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে মঞ্চস্থ হবে নাটকটি।

বর্ণনাত্মক রীতির আদলে নির্মিত হয়েছে আরশিনগরের দ্বিতীয় এই প্রযোজনা। অভিজিৎ সেনের উপন্যাস অবলম্বনে বিস্তৃত হয়েছে নাটকের কাহিনি। প্রযোজনাটির নির্দেশনা দিয়েছেন রেজা আরিফ। 

ভারতবর্ষের প্রায় দেড় শ’ বছরের ইতিহাসের সঙ্গে বাজিকরের পাঁচ পুরুষের পরিক্রমণ, থিতু হওয়ার চেষ্টা আর বিতাড়িত হওয়ার বেদনাগাথা নিয়ে আবর্তিত হয়েছে রহু চণ্ডালের কাহিনি। ঘটনার সময়কাল উনবিংশ শতকের মাঝামাঝি। রাজমহলের গঙ্গার গড়ে ওঠে বেদে জনগোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত বাজিকরের অস্থায়ী ছাউনি। 

বাজিকরদের জীবনের প্রবাহমান বাস্তবতার চিত্র উঠে এসেছে নাটকটির গতিময় উপস্থাপনায়। সমগ্র ভারতবর্ষ-জুড়ে সাঁওতাল বিদ্রোহ যখন তুঙ্গে তখন কেমন করে যেন বাজিকরেরা মিশে যায় সেই বিদ্রোহের সঙ্গে। এমনি প্রেক্ষাপটে সর্দার পীতেম চেয়েছিল থিতে হোক তার জীবন। এক টুকরো জমি হোক; হোক জাতপাতের পরিচয়। কিন্তু কোথায় হবে সেই স্থির দেশ আর স্থিতিশীল জীবন। তাই তো আকাঙ্ক্ষার সঙ্গে মেলে না বাস্তবতা। 

ধর্ষিতা হয় পীতেমের মেয়ে পেমা। বাজিকর পীতেম আর সালমার বেঁচে থাকার নিরন্তর চেষ্টা কিংবা লুবিনী জামিরের স্বপ্নময় ভালবাসার কথা নিপুণ নাট্যকৌশলে প্রাণ পেয়েছে নাটকে। 

পাশাপাশি জামিরের জীবন সমুন্দ্রে রাধার আগমন, যেন মানুষের ভেতরকার দ্বৈতসত্তার শিল্পিত চিত্র। পরতাপের মাঝেও জেগে ওঠে গৃহী হওয়ার বাসনা। পরবর্তী প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দিতে চায় সেই বাসনাকে। ঠিক তখনই আবার গৃহস্থ মানুষ দ্বারা আক্রান্ত হয় বাজিকরের জীবন। দেদোন ঘোষের অত্যাচার আর প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে তলিয়ে যাওয়া যাযাবর মানুষগুলো আবার বেঁচে থাকার স্বপ্ন নিয়ে মহাকালের দিকে অগ্রসর হয়। এভাবেই এগিয়েছে নাটকের কাহিনি।

এতে রহু চরিত্রে অভিনয় করছেন- আসাদুজ্জামান আবির। অন্যান্য চরিত্রে রয়েছেন- স্বপ্নীল সোহেল, শ্যামাঙ্গিনী শ্যামা, শারমিন ডেইজি, ওয়াহিদ খান সঙ্কেত, নুসরাত জিসা, বৈজয়ন্তী খীসা, হৃদয় বসাক, ফারজানা মুক্ত, তানজিম আহমেদ, প্রিন্স সিদ্দিকী, নাজমুল রিগান, নওরীন নিপু, হাসান অমিত, জিনাত জাহান নিশা, আইনুন পুতুল প্রমুখ। 

শাহীন রহমানের  আলোক পরিকল্পনায় নাটকের পোশাক পরিকল্পনা করেছেন রেজওয়ানা মৌরি রেজা।নাটক প্রসঙ্গে রেজা আরিফ বলেন, ‘এ নাটকটি মূলত যাযাবর-বাজিকরদের জীবন-প্রবাহের বাস্তবতা নিয়ে আবৃত। এ নাটকের মধ্য দিয়ে সঙ্গীতের অপূর্ব ব্যবহার আর কুশলীদের শৈল্পিক উপস্থাপনায় আরশিনগর নাট্যপ্রেমীদের বিশেষ কিছু উপহার দিতে চায়। অনেকদিন ধরেই আমরা টানা মহড়ার মধ্য দিয়ে একটা ভালো নাটক দর্শকের সামনে নিয়ে আসার চেষ্টা করছি। আশা করছি, নাটকটি সবার জন্য দারুণ উপভোগ্য হবে। 

মন্তব্য


অন্যান্য