অন্যান্য

ঢাকার সাহিত্য উৎসবে আসছেন চলচ্চিত্রের তিন তারকা

প্রকাশ : ০৭ নভেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ০৭ নভেম্বর ২০১৮

ঢাকার সাহিত্য উৎসবে আসছেন চলচ্চিত্রের তিন তারকা

টিলডা সুইনটন, মনীষা কৈরালা ও নন্দিতা দাস

  অনলাইন ডেস্ক

আগামীকাল বাংলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ঢাকা আন্তর্জাতিক সাহিত্য উৎসব। এবারের উৎসবে হাজির হচ্ছেন বিশ্ব চলচ্চিত্রের তিন জনপ্রিয় তারকা। এর মধ্যে রয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী মনীষা কৈরালা, বাঙালি বংশোদ্ভূত ও বলিউডের অভিনেত্রী ও পরিচালক নন্দিতা দাস এবং ব্রিটিশ অভিনেত্রী টিলডা সুইনটন। 

উৎসবে বক্তব্য দিবেন তারা। সাহিত্য আর চলচ্চিত্রের মধ্যেকার যোগসূত্রের কথা জানাবেন নিজ নিজ বক্তব্যে। সেই সঙ্গে তাদের তাদের জীবনের নানা অভিজ্ঞতার কথাও জানাবেন। 

উৎসব শুরু হবে আগামীকাল। পরের দিন শুক্রবার বক্তব্য দিবে বলিউডের ক্যান্সােরের সঙ্গে লড়াই করে জয়ী হওয়া অভিনেত্রী মনীষা কৈরালা। শুক্রবার বেলা সোয়া ১১টায় ‘ব্রেকিং ব্যাড’ অধিবেশনে কথা  ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করে ফেরার গল্প বলবেন তিনি। বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনের এ অধিবেশনে তার সঙ্গে আরও থাকবেন বলিউড অভিনেত্রী ও পরিচালক নন্দিতা দাস এবং অন্যতম উৎসব পরিচালক সাদাফ সাজ।

অন্যদিকে উৎসবের প্রথম দিন বিকেল সোয়া চারটায় একই মিলনায়তনে থাকবে নন্দিতা দাস পরিচালিত ছবি ‘মান্টো’র প্রদর্শনী। এরপর এ ছবি নিয়ে ‘ডিরেক্টরস কাট’ অধিবেশনে কথা বলবেন নন্দিতা। ‘বিফোর দ্য রেইন’ ও ‘ফায়ার’-এর মতো চলচ্চিত্রে অভিনয় করে সবার নজরে এসেছিলেন এই অভিনেত্রী। পরে নিজেই চলচ্চিত্র পরিচালনা শুরু করেন। এ বছর সেপ্টেম্বর মাসে মুক্তি পায় তার পরিচালনায় ‘মান্টো’ ছবিটি।

উৎসবের দ্বিতীয় দিন বেলা ২টায় একই মিলনায়তনে অস্কার, বাফটা ও গোল্ডেন গ্লোবজয়ী অভিনেত্রী টিলডা সুইনটনের অধিবেশন ‘রিডিং’।  ঢাকা আন্তর্জাতিক সাহিত্য উৎসবে এবারই কিন্তু প্রথম নন তিনি। এসেছিলেন গতবারের উৎসবেও।


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

বাবার মৃত্যু দিবসে শপথ ও পদক


আরও খবর

অন্যান্য
বাবার মৃত্যু দিবসে শপথ ও পদক

প্রকাশ : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

সুবর্ণা মুস্তাফা

  বিনোদন প্রতিবেদক

‘সংরক্ষিত আসনে নারীদের প্রতিনিধিত্ব করতে আসাটা কিন্তু সহজ বিষয় নয়। নারী ক্ষমতায়নের জন্য এটা একটা সুযোগ। আমার জন্য এ অঙ্গনটাও একেবারে নতুন।  আমার বিশ্বাস আমরা যারা আজকে শপথ গ্রহণ করেছি তারা নিজেদের কাজের জায়গাটা খুব শিগগিরই বুঝে উঠতে পারব। কারণ, আমি ছাড়া বাকিরা সবাই একেবারে তৃণমূল পর্যায়ে রাজনীতি করে উঠে এসেছেন।’ বলছিলেন সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়া অভিনেত্রী সুবর্ণা মুস্তাফা। 

একাদশ জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনের নবনির্বাচিত ৪৯ সংসদ সদস্য শপথ নিয়েছেন। বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় জাতীয় সংসদের শপথ কক্ষে শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।  স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী তাদের শপথ পড়ান। শপথ গ্রহণ করেন অভিনেত্রী সুবর্ণা মুস্তাফাও। শপথ শেষ সাংবাদিকদের কাছে কথাগুলো বলেন এ অভিনেত্রী। 

অন্যদিকে আজ একুশে পদকও গ্রহণ করবেন তিনি। এ দুই অর্জন এমন দিনে যে দিনে তার বাবা প্রয়াত প্রখ্যাত অভিনেতা গোলাম মুস্তাফার মৃত্যুবার্ষিকী। বাবার মৃত্যুর দিনে সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ ও একুশে পদক গ্রহণকে কাকতালীয় উল্লেখ করেন তিনি।  সুবর্ণা মুস্তাফা বলেন, আসলে জীবনটাই এমনই। কাকতালীয়ভাবে এই জীবনের সুখ-দুঃখ মিলে-মিশে একাকার হয়ে যায়।

আজ বিকেল ৪টায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদকপ্রাপ্তদের হাতে সম্মাননা তুলে দেবেন। সুবর্ণা মুস্তাফা ছাড়ও এবার সংস্কৃতি অঙ্গন থেকে পদক গ্রহণ করবেন কণ্ঠশিল্পী সুবীর নন্দী,  খায়রুল আনাম শাকিল, লাকী ইনাম, লিয়াকত আলী লাকী। এবং মরনোত্তর একুশে পদক পাচ্ছেন পপগুরু আজম খান। 

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

কলকাতার গায়ক প্রতীক চৌধুরী আর নেই


আরও খবর

অন্যান্য
কলকাতার গায়ক প্রতীক চৌধুরী আর নেই

প্রকাশ : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

প্রতীক চৌধুরী

  অনলাইন ডেস্ক

চির বিদায় নিয়ে চলে গেলেন কলকাতার বাংলা গানের জনপ্রিয় শিল্পী প্রতীক চৌধুরী। মঙ্গলবার রাতে হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। তার মৃত্যুতে কলকাতার সঙ্গীত জগতে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

মৃত্যুকালে প্রতীক চৌধুরীর বয়স হয়েছিল ৫৫ বছর। কলকাতার সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউয়ে অবস্থিত নিজের অফিসে হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হন এ শিল্পী। পরে দ্রুত তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতাল থেকে আর বাড়ি ফেরা হলো না তার।  রাত আটটার দিকে চিকিৎসকেরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন তিনি। চলে যাওয়ার ক সপ্তাহ আগে পরিচালক অনিকেত চট্টোপাধ্যায়ের ছবির ‘হবুচন্দ্র রাজা, গবুচন্দ্র মন্ত্রী’ গানটি রেকর্ড করেন তিনি। কলকাতার বহু বাংলা গানের কণ্ঠ দিয়েছেন প্রতীক। দিয়েছেন সিনেমার নেপথ্য কণ্ঠও। পাশাপাশি বহু বিজ্ঞাপনেও কণ্ঠ রয়েছে তার। 

পরের
খবর

চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব মুহম্মদ খসরু মারা গেছেন


আরও খবর

অন্যান্য

সুস্থ চলচ্চিত্র আন্দোলনের পুরোধা মুহম্মদ খসরু

  বিনোদন প্রতিবেদক

বাংলা চলচ্চিত্র বিষয়ক অন্যতম পত্রিকা ‘ধ্রুপদী’ ও ‘চলচ্চিত্র’ এর সম্পাদক মুহম্মদ খসরু মারা গেছেন। সুস্থ চলচ্চিত্র আন্দোলনের পুরোধা ব্যক্তিত্ব তিনি। মঙ্গলবার দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজধানীর ইব্রাহিক কার্ডিয়াক হাসপাতালে (বারডেম) শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন এ ব্যক্তিত্ব।

পরিবারের বরাতে জানা গেছে, শ্বাসকষ্ট, ডায়াবেটিস, অ্যাজমার সমস্যায় অনেক দিন ধরেই ভুগছিলেন মুহম্মদ খসরু। গত মাসে হঠাৎ তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে কেরানীগঞ্জের রোহিতপুরের বাড়ি থেকে ঢাকায় আনা হয়। ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে তাকে সিসিইউ’তে রাখা হয়। 

শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলে হাসপাতাল ছাড়েন তিনি। কিন্তু হলো না শেষ রক্ষা। চলে গেলেন সবাইকে ছেড়ে।

মুহম্মদ খসরুকে সুস্থ চলচ্চিত্র আন্দোলনের পুরোধা বলা হয়। প্রখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক ও অভিনেতা রাজেন তরফদারের বিখ্যাত চলচ্চিত্র ‘পালঙ্ক’-এ সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন তিনি। লিখেছেন বহু গ্রন্থ।