অন্যান্য

ডিরেক্টরস গিল্ডের সঙ্গে নাট্যকার সংঘের মত বিনিময়

প্রকাশ : ০৬ নভেম্বর ২০১৮

ডিরেক্টরস গিল্ডের সঙ্গে নাট্যকার সংঘের মত বিনিময়

মত বিনিময় সভয় দুই সংগঠনের নেতারা

  অনলাইন ডেস্ক

সম্প্রতি ডিরেক্টরস গিল্ডের নতুন কার্যনির্বাহী কমিটি তাদের দায়িত্ব গ্রহণ করেছে। দায়িত্ব গ্রহণের পরপরই তাদের নিমন্ত্রণ করেছে টেলিভিশন নাট্যকার সংঘ। উদ্দেশ্য হলো ডিরেক্টরস গিল্ডের নতুন কার্যনির্বাহী কমিটিকে শুভেচ্ছা জানানো ও উভয় কমিটির সদস্যদের মধ্যে পারস্পরিক মতবিনিময়।

গতকাল সোমবার রাজধানীর নিকেতনে উভয় সংগঠনের কার্যালয় সংলগ্ন কনফারেন্স রুমে টেলিভিশন নাট্যকার সংঘের পক্ষ থেকে ডিরেক্টরস গিল্ডের নতুন কার্যনির্বাহী কমিটিকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। ডিরেক্টরস গিল্ডের সভাপতি সালাউদ্দিন লাভলু ও সাধারণ সম্পাদক এসএ হক অলিকের নেতৃত্বে ডিরেক্টরস গিল্ডের নবনির্বাচিত কমিটিকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান টেলিভিশন নাট্যকার সংঘের সভাপতি মাসুম রেজা ও সাধারণ সম্পাদক এজাজ মুন্না। 

এসময় উপস্থিত ছিলেন ডিরেক্টরস গিল্ডের সহ-সভাপতি শহীদ রায়হান, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ফরিদুল হাসান, সাংগঠনিক সম্পাদক তুহিন হোসেন, কার্যনির্বাহী সদস্য ফেরারী অমিত, শেখ রুনা ও সাজ্জাদ সুমন। এছাড়া টেলিভিশন নাট্যকার সংঘের সহ সভাপতি বৃন্দাবন দাশ, সাধনা আহম্মেদ, পান্থ শাহরিয়ার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান শান্তনু, সাংগঠনিক সম্পাদক আজম খান, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অয়ন চৌধুরী, অনুষ্ঠান বিষয়ক সম্পাদক স্বাধীন শাহ্, প্রচার সম্পাদক রেজাউর রহমান রিজভী, প্রকাশনা সম্পাদক মাসুম শাহরিয়ার, গবেষনা সম্পাদক মোস্তফা মনন, দপ্তর সম্পাদক সাজিন আহমেদ বাবু, সমাজকল্যান সম্পাদক আমিরুল ইসলাম, কার্যনির্বাহী সদস্য মহিউদ্দিন আহমেদ ও সাগর জাহান এসময় উপস্থিত ছিলেন।

ডিরেক্টরস গিল্ডের নবনির্বাচিত কমিটির সদস্যরা নাট্যকার সংঘকে ধন্যবাদ জানান তাদেরকে নিমন্ত্রণ করার জন্য। এসময় উভয় সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা তাদের পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়ে মতবিনিময় করেন। আগামীতে উভয় সংগঠন একত্রে বিভিন্ন বিষয়ে কাজ করবে বলেও সকলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

চীনে বিড়ম্বনায় ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’


আরও খবর

অন্যান্য

মিস ওয়ার্ল্ডের অন্য প্রতিযোগীদের সঙ্গে ঐশী

  অনলাইন ডেস্ক

মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতায় সেরার মুকুট করে ঐশী এখন অংশ নিয়েছেন চিনে অনুষ্ঠিত মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায়। সেখানে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছেন দেশসেরা এ সুন্দরী। তবে সেখানে ভালো নেই তিনি। পড়তে হচ্ছে বেশ বিড়ম্বনায়। সম্প্রতি ফেসবুকে লাইভে জানালেন বিড়ম্বনার কথা। 

তবে এ বিড়ম্বনা চীনে গিয়ে নয়  অনলাইন মোবাইল প্লাটফর্ম  মবস্টারে তার নামে একাধিক ভূয়া আইডির কারণেই বিড়ম্বনায় পড়ছেন ঐশী।  জানা গেছে, বিশ্বব্যাপী প্রতিভাবানদের সঙ্গে ভক্তদের সেতুবন্ধ তৈরি করে মোবাইল প্ল্যাটফর্ম মবস্টার। এই প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে মিশ্বসুন্দরী প্রতিযোগিতার  প্রতিযোগীরা ১৫ সেকেন্ডের ভিডিও আপলোড করতে পারেন। ভক্তদের কাছে বিজয়ী হওয়ার জন্য চাইতে পারেন ভোট।  অথচ এই প্লাটফর্মেই  রয়েছে তার একাধিক আইডি। ফলে পড়তে হচ্ছে বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখে। 

চীনে  মিস সার্বিয়ার সঙ্গে বাংলাদেশের ঐশী

সম্প্রতি এক ফেসবুক ভিডিও বার্তায ঐশী জানালেন এ কথাই। ভিডিও বার্তায় ঐশী বলেন, ‘জানিনা কে বা কারা এমনটি করছেন। কেন করছেন? মবস্টারে আমার নামে অনেকগুলো ফেক আইডি খুলেছেন। এগুলো নিয়ে আমাকে বিব্রতকর অবস্থাতে পড়তে হচ্ছে। অনুগ্রহ  করে আপনারা আমার নামের ফেক আইডিগুলো বন্ধ করে দিন। এই ফেইক আইডির কারণে আমার অনেক ক্ষতি হচ্ছে। কিছু লোকের অতি উৎসাহের কারণে অনেক বড় ক্ষতি হয়ে যেতে পারে আমার। আমাকে করা কমেন্ট লাইক শেয়ার ফেইক  আইডিতে চলে যাচ্ছে। অথচ এখন আমার সবার সহায়তা দরকার।’

বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী পোশাক শাড়িতে মিস ওয়ার্ল্ডের আসরে ঐশী

এদিকে ৮ ডিসেম্বর মিস ওয়ার্ল্ডের গ্র্যান্ড ফিনালে অনুষ্ঠিত হবে চিনের সানাইয়া শহরে। তার আগে বিশ্বের বিভিন্ন  দেশের প্রতিযোগীদের সঙ্গে বিভিন্ন সেগমেন্টে লড়তে হবে ঐশীকে। সব কটি ধাপ সফলতার সঙ্গে উতরে যাওয়ার পরই উঠতে পারবেন চূড়ান্ত পর্বে। 

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

মমতাজের পরিবারে নতুন সদস্য


আরও খবর

অন্যান্য
মমতাজের পরিবারে নতুন সদস্য

প্রকাশ : ১৯ নভেম্বর ২০১৮

নাতনি কোলে নিয়ে মমতাজ বেগম

  অনলাইন ডেস্ক

দাদি হলেন ফোক গানের জনপ্রিয় শিল্পী মমতাজ বেগম। সোমবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজের দাদি হওয়ার খবর জানান তিনি। ফেসবুকে  মমতাজ লিখেন, ‘আমার মেহেদীর ঘরে এক টুকরা চাঁদের আলো। আমার একটা নতুন নাম হলো, দিদা। সবাই দোয়া করবেন।’

ছেলে মেহেদী খানের ঘরে এসেছে নতুন এ অতিথি। বাবা হওয়ার খবর জানিয়ে মেহেদী ফেসবুকে লিখেন, ‘আমি চমৎকার একটি মেয়ের বাবা হয়েছি। সবাই ওর জন্য দোয়া করবেন।’

সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টায় রাজধানীর মহাখালীর ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মেহেদী খানের স্ত্রী চৈতি দেওয়ান এ সন্তান জন্ম দেন।  হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. আশীষ কুমার চক্রবর্তীর ভাষ্যমতে মা ও সন্তান দু’জনেই সুস্থ আছেন। 

মমতাজের গুরু মাতাল কবি রাজ্জাক দেওয়ানের ছোট ছেলে সুজন দেওয়ানের মেয়ে চৈতি দেওয়ান। ২০১৬ সালে ১৪ ফেব্রুয়ারি মমতাজপূত্র মেহেদী খানের সঙ্গে বিয়ে হয় তার।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

দ্বিতীয় দিনের ফোক ফেস্ট মাতাবেন যারা


আরও খবর

অন্যান্য

ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ফোক ফেস্ট ২০১৮

দ্বিতীয় দিনের ফোক ফেস্ট মাতাবেন যারা

প্রকাশ : ১৬ নভেম্বর ২০১৮

মমতাজ বেগম

  অনলাইন ডেস্ক

বৃহস্পতিবার রাতে বর্ণাঢ্য আয়োজনের মাধ্যমে শুরু হয়েছে 'ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ফোকফেস্ট ২০১৮'।রাজধানীর আর্মি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত এ উৎসবে  আজ দ্বিতীয় দিনে দর্শক মাতাতে মঞ্চে উঠবেন ফোকসম্রাজ্ঞী খ্যাত কণ্ঠশিল্পী মমতাজ। এ ছাড়াও  থাকছে গানের দল স্বরব্যাঞ্জো ও দ্য রঘু দীক্ষিত প্রজেক্টের পরিবেশনা। পাশাপাশি তালিকায় আছে বাহরাইনের সাড়া জাগানো ব্যান্ড মাজায ও গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ড জয়ী যুক্তরাষ্ট্রের ব্যান্ড লস টেক্সমেনিয়াক্স।

স্বরব্যাঞ্জো 

রাজশাহীর গানের দল 'স্বরব্যাঞ্জো'। এটি একটি ফোক-ফিউশন ব্যান্ড। ২০১৪ সালে গঠিত হওয়া এই ব্যান্ডের সদস্য বেড়েই চলেছে। স্বরব্যাঞ্জোর প্রধান সদস্যরা ঠিক থাকলেও ব্যান্ডে যে কেউ সদস্যভুক্ত হতে পারে। এই ব্যান্ড সবাইকে নিজেদের সহচর বলেই ভাবে। বর্তমানে তাদের দলে আছে বগা তালেব, রূপক আহমেদ, আসিফ হাসান নিলয়, রাতুল সরকার, শহিদুল আলম জীবন।

রঘু দীক্ষিত

রঘুপতি দ্বারকানাথ দীক্ষিত। একাধারে গায়ক, সুরকার, মিউজিক প্রযোজক। ভারতের আলোচিত লোকসঙ্গীতশিল্পী তিনি। ২০০৫ সালে তিনি তৈরি করেন রঘু দীক্ষিত প্রজেক্ট নামে একটি ব্যান্ড। মডার্ন এবং আন্তর্জাতিক সুরকে সঙ্গী করে রঘু দীক্ষিত প্রজেক্ট পরিবেশন করেন ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলের লোকসঙ্গীত। রঙিন লুঙ্গি এবং ফতুয়া পরে মঞ্চ মাতানো এই দলটির গানে পাওয়া যায় কানড়বাড়া কবিতার অনুপ্রেরণা। 

লস টেক্সমেনিয়াক্স 

তেহানো মিউজিক থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে ম্যাক্স বাকা ১৯৯৭ সালে লস টেক্সমেনিয়াক্স ব্যান্ডটি গঠন করেন। পরবর্তীতে ব্লুস, ফোক, কান্ট্রি, জ্যাজ এবং রক মিউজিকের প্রভাব পাওয়া যায় টেক্সাস শহরে গড়ে ওঠা এই ব্যান্ডটির গানে। ২০১০ সালে 'বেস্ট তেহানো অ্যালবাম' বিভাগে জয় করেন সঙ্গীতের সবচেয়ে বড় পুরস্কার গ্রামি অ্যাওয়ার্ড। 

মাজায 

২০১৩ সালে অ্যারাবিয়ান উপদ্বীপ ছোট্ট আইল্যান্ড বাহরাইনের প্রগ্রেসিভ ফিউশন ব্যান্ড মাজায গঠিত হয়। প্রথমদিকে ব্যান্ডটি 'মাজায' নামে গঠিত হলেও পরবর্তীতে সৃজনশীল এবং সাদৃশ্যের কারণে নাম বদল করা হয়। টানা কয়েক বছর তাদের লাইভ পারফরম্যান্স দিয়ে দর্শকদের মন জয় করার পর ২০১৬ সালের অক্টোবর মাসে মুক্তি পায় তাদের প্রথম সিঙ্গেল।

সংশ্লিষ্ট খবর