শিক্ষা

ছাত্রলীগকে রক্ষা করার দায়িত্ব সবার: শোভন

প্রকাশ : ১৪ মে ২০১৯ | আপডেট : ১৪ মে ২০১৯

ছাত্রলীগকে রক্ষা করার দায়িত্ব সবার: শোভন

রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন -ফাইল ছবি

  বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

ছাত্রলীগ সকলের প্রাণের সংগঠন, এটি রক্ষার দায়িত্ব আমাদের সবার উল্লেখ করে ছাত্রলীগের ভাবমূর্তি রক্ষার জন্য নিজ নিজ জায়গা থেকে সচেষ্ট থাকার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন সংগঠনের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন। 

মঙ্গলবার দুপুরে মধুর ক্যান্টিনে আসেন শোভন ও সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। এ সময় সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় এ আহ্বান জানানো হয়।

শোভন বলেন, বৃহত্তর এই সংগঠনে পদ প্রত্যাশী রয়েছে এক থেকে দুই হাজার কর্মী। কিন্তু কমিটি দিয়েছি ৩০১ সদস্যের। ত্যাগী কর্মীদের আসলে পদ দ্বারা সীমাবদ্ধ করা সম্ভব নয়। 

কমিটিতে যাদের নিয়ে বিতর্ক হচ্ছে তাদের বিষয়ে তদন্ত কমিটি করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, প্রমাণ হলে তাদের পদগুলো শূণ্য ঘোষণা করে যোগ্যদের মূল্যায়ন করা হবে।

সোমবারে মধুর ক্যান্টিনে অনাকাঙ্খিত ঘটনার প্রশ্নে তিনি বলেন, ছাত্রলীগ সকলের প্রাণের সংগঠন। এটা রক্ষা করার দায়িত্ব আমাদের সবার।

পদবঞ্চিতদের বিষয়ে শোভন বলেন, যারা পদ পায়নি, তাদের রাজনীতি থেমে গেছে এমনটি ভাবার কিছু নেই। তাদের (পদবঞ্চিতরা) প্রতি আহ্বান জানাবো ছাত্রলীগের ভাবমূর্তি রক্ষার জন্য তাদের নিজ নিজ জায়গা থেকে সচেষ্ট থাকবে। কিছুদিন পরে এই কমিটি বর্ধিত করে আরো কিছু-যারা বেশি যোগ্য, যাদেরকে পদ দিতে পারি নাই তাদের কমিটিতে আনবো। বিচার বিশ্লেষণ করে যেসকল ত্যাগী এবং যোগ্যরা বাদ পড়েছে, নেত্রীর সঙ্গে কথা বলে কিছু পদ যদি বাড়ানো যায়, সেই বিষয়ে আমরা কথা বলবো।

গোলাম রাব্বানী বলেন, যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আসছে, আমরা আজই তদন্ত কমিটি করে দিচ্ছি। অভিযোগকারীরা দালিলিক তথ্য কমিটির কাছে দিবে। যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আসছে তারাও প্রমাণ করবে যে এই অভিযোগ মিথ্যা। সেই তদন্ত প্রতিবেদন ‘পাবলিকলি’ প্রকাশ করবো।

পদ বঞ্চিতদের বিক্ষোভ ও তাদের উপর হামলার ঘটনায় তিনি বলেন, অনেকে সাবেক কমিটিতে পোস্টেড ছিল। ৩০১ জনের মধ্যে ১৩৩ জন সরাসরি বিগত কমিটিতে কেন্দ্রের পোস্টেড ছিল। আমাদের সাবেক নেতৃবৃন্দ ২০০ জনের তালিকা দিয়েছিল। এর মধ্যে সরাসরি ৯০ জনকে নেওয়া হয়েছে। সবমিলিয়ে ১৭৪ জন সাবেক নেতাদের পছন্দের। সবাইকে খুশি করা সম্ভব নয়। আমরা আমাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি যোগ্যতার মূল্যায়ন করার জন্য। বিগত কোনো কমিটিতে এত জনকে নেওয়া হয়নি। তারা মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলন করতে চেয়েছিল। সেখানে জুনিয়ররা ছিল। এক ধরণের উত্তেজনাকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছিল। কিন্তু শ্রাবণী দিশার মাথায় আঘাত লেগেছে। ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলেছি, দিশা ছাড়া আর কেউ আহত হয়নি।

মন্তব্য


অন্যান্য