শিক্ষা

বন্ধ ঘোষণার পরও উত্তাল পাবিপ্রবি

প্রকাশ : ০৬ নভেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ০৬ নভেম্বর ২০১৮

বন্ধ ঘোষণার পরও উত্তাল পাবিপ্রবি

ফাইল ছবি

  পাবনা অফিস

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (পাবিপ্রবি) অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণার পরও উত্তাল রয়েছে ক্যাম্পাস। তবে সাধারণ শিক্ষার্থীরা হল ছেড়েছেন।  মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুটি হল ছেড়ে যান আবাসিক ছাত্রছাত্রীরা।

এদিকে, ছয় দফা দাবি বাস্তবায়নের দাবিতে মঙ্গলবার দ্বিতীয় দিনের মতো বিক্ষোভ করেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। এ সময় অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

সোমবার সন্ধ্যায় রিজেন্ট বোর্ডের জরুরি সভায় ১০ ছাত্রকে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য চিহ্নিত করা হয় এবং তাদের বহিস্কারের সুপারিশ করা হয়। এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধের ঘোষণা দিয়ে নোটিশ জারি করে কর্তৃপক্ষ। 

নোটিশে বলা হয়, ৬ নভেম্বর থেকে পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকবে। তবে আগামী ১৬ নভেম্বর ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা যথারীতি অনুষ্ঠিত হবে।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানান, ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষসহ পরবর্তী সব ব্যাচকে পূর্ববর্তী ব্যাচগুলোর অর্ডিন্যান্সের আওতাভুক্ত করা, হলের ডাইনিংয়ের উন্নয়নের জন্য ভর্তুকি প্রদান, অধিকাংশ শ্রেণিকক্ষের বিদ্যমান চেয়ার সংকট দূর করা, পরিবহন সংকট সমাধানে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ, শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়নের স্বার্থে সম্পূর্ণ ক্যাম্পাস দ্রুত ওয়াইফাই ইন্টারনেটের আওতাভুক্ত করা এবং শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার স্বার্থে দ্রুত পুলিশ ফাঁড়ি স্থাপনের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে তারা আন্দোলন করে আসছেন। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কার্যকর পদক্ষেপ নেয়নি। 

এর জের ধরে সাধারণ শিক্ষার্থীরা সোমবার দুপুরে ক্লাস বর্জন করে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে দেন। এদিন এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ১০ ছাত্রের বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার দাবি করেন সাধারণ ছাত্রছাত্রীরা।


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

এসএসসির ফরম পূরণ ফির সঙ্গে কোচিং মডেল টেস্টের টাকা নেওয়া যাবে না


আরও খবর

শিক্ষা

   সমকাল প্রতিবেদক

আসন্ন এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণের নির্ধারিত ফির সঙ্গে বাধ্যতামূলকভাবে কোচিং, মডেল টেস্ট, র‌্যাগ-ডে উপলক্ষে অর্থ নেওয়া যাবে না। দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) রোববার রাজধানীর যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজে অভিযান চালিয়ে প্রতিষ্ঠানটির ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. মনিরুজ্জামানকে এই পরামর্শ দেয়।

দুদক সূত্র জানায়, ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ফরম পূরণের নির্ধারিত ফির সঙ্গে অতিরিক্ত টাকা নেওয়া হচ্ছে- এ অভিযোগ পেয়ে রোববার দুদকের সহকারী পরিচালক মো. মনিরুজ্জামানের নেতৃত্বে একটি টিম সেখানে অভিযান চালায়। টিমের সদস্যরা খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন, ফরম পূরণের ফির সঙ্গে কোচিং, মডেল টেস্ট, র‌্যাগ-ডে উপলক্ষে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর কাছ থেকে ছয় হাজার টাকা করে নেওয়া হচ্ছে।

ওই সব ক্ষেত্রে খরচের জন্য অতিরিক্ত অর্থ নেওয়ার কথা স্বীকার করেন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ। তখন দুদক টিমের সদস্যরা আপত্তি জানিয়ে বলেন, বাধ্যতামূলকভাবে অর্থ নেওয়া সরকারি বিধিবিধান পরিপন্থী। টিমের এই বক্তব্যের সঙ্গে একমত পোষণ করে তাৎক্ষণিক কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের কোনো অভিভাবক আপত্তি জানালে তার দেওয়া অতিরিক্ত টাকা ফেরত দেওয়া হবে উল্লেখ করে নোটিশ টানিয়ে দেয়।

পরে দুদক টিমের সদস্যরা টেস্ট পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ও অনুত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের তালিকা সংগ্রহ করেন। তারা উপস্থিত অভিভাবকদের সঙ্গে কথা বলেন।

এর আগে দুদক গত ৪ নভেম্বর রাজধানীর হাজারীবাগের সালেহা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণের নির্ধারিত ফির পরিবর্তে অতিরিক্ত টাকা নেওয়া বন্ধ করেছে। দুদক টিমের উপস্থিতিতে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ নোটিশ ইস্যু করে ব্যবসায় শিক্ষা, মানবিক শাখার শিক্ষার্থীদের ফরম পূরণ বাবদ নির্ধারিত এক হাজার ৮৪০ টাকা ও বিজ্ঞান শাখার জন্য নির্ধারিত এক হাজার ৯৫০ টাকা হারে ফরম পূরণের ফির হিসাব জানিয়ে দেয়।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

জবিতে প্রথম বর্ষে ভর্তি শুরু রোববার


আরও খবর

শিক্ষা

  জবি প্রতিবেদক

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির প্রথম বর্ষের ভর্তি রোববার থেকে শুরু হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা যায়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ইউনিট-১ (বিজ্ঞান শাখা), ইউনিট-২ (মানবিক শাখা), ইউনিট-৩ (বাণিজ্য শাখা) ভুক্ত বিভাগ ও বিশেষায়িত ৪টি বিভাগে (সঙ্গীত, চারুকলা, নাট্যকলা, ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন বিভাগ) প্রকাশিত প্রথম ধাপে মেধা তালিকায় মনোনয়নপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের ১১ থেকে ১৫ নভেম্বরের মধ্যে ভর্তি হতে হবে। দ্বিতীয় ধাপে (আসন শূন্য থাকা সাপেক্ষে) মনোনয়নপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের আগামী ১৮ থেকে ২২ নভেম্বরের মধ্যে, তৃতীয় ধাপে (আসন শূন্য থাকা সাপেক্ষে) মনোনয়নপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের আগামী ২৫ থেকে ২৭ নভেম্বরের মধ্যে এবং চতুর্থ ধাপে (আসন শূন্য থাকা সাপেক্ষে) মনোনয়নপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের আগামী ২ থেকে ৪ ডিসেম্বরের মধ্যে ভর্তির জন্য আহ্বান জানানো হয়েছে।

এ ছাড়া কোটায় আবেদনকারীদের সাক্ষাৎকার (সব কোটা) ২ ডিসেম্বর সকাল ১০টা থেকে সংশ্নিষ্ট ডিন অফিসে শুরু হবে। কোটার ফলাফল ৩ ডিসেম্বর প্রকাশিত হবে। ৪ থেকে ৬ ডিসেম্বরের মধ্যে ভর্তি হতে হবে।

মনোনয়নপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার মূল নম্বরপত্র, রেজিস্ট্রেশন কার্ড ও প্রশংসাপত্র এবং প্রতিটির একটি করে সত্যায়িত ফটোকপি, সঙ্গে সত্যায়িত দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি এবং অনলাইন থেকে প্রিন্টকৃত অ্যাডমিট কার্ড ও পরীক্ষার হলে পর্যবেক্ষক কর্তৃক স্বাক্ষরিত অ্যাডমিট কার্ড সঙ্গে আনতে হবে।

ভর্তি-সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে (jnu.ac.bd) পাওয়া যাচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

চুয়েটে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ


আরও খবর

শিক্ষা

  চুয়েট প্রতিনিধি

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে।

শুক্রবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে চুয়েটের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্তি দায়িত্ব) ও ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সদস্য সচিব ড. ফারুক-উজ-জামান চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে ফল প্রকাশের বিষয়টি জানানো হয়। 

‘ক’ বিভাগে ৮০০ জনের মেধাতালিকা এবং দুই হাজার ৮২৯ জনের অপেক্ষমান তালিকা, ‘খ’ বিভাগে ৩০ জনের মেধা তালিকা এবং ১১৪ জনের অপেক্ষামান তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এছাড়াও উপজাতি ও রাখাইন সম্প্রদায়ের ৮ জনের তালিকা প্রকাশ করছে।

এবার ভর্তি পরীক্ষার জন্য যোগ্য বিবেচিত হয়েছিলেন আট হাজার ৩৪২ জন। ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন ৫ হাজার ৯২৬ জন শিক্ষার্থী। 

আগামী ২০ নভেম্বর সকাল-৯.৩০ থেকে ৪.৩০ পর্যন্ত মেধা তালিকার ভিত্তিতে ‘ক’ বিভাগের মেধাক্রমের প্রথম থেকে ৮০০তম পর্যন্ত , ‘খ’ বিভাগের  মেধাক্রম প্রথম থেকে ৩০তম পর্যন্ত এবং উপজাতি ও রাখাইন সম্প্রদায়ের মেধাতালিকায় থাকা শিক্ষার্থীরা ভর্তি হবেন। আসন খালি থাকা সাপেক্ষে ওইদিন বিকাল ৫.০০ টায় প্রথম অপেক্ষামান তালিকা প্রকাশিত হবে।

আসন খালি থাকা সাপেক্ষে ২৭ নভেম্বর উভয় বিভাগের প্রথম অপেক্ষমান তালিকা থেকে শিক্ষার্থীরা ভর্তি হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়। আসন খালি থাকা সাপেক্ষে ওইদিন দ্বিতীয় অপেক্ষামান অপেক্ষামান তালিকা প্রকাশিত হবে।  

পরবর্তীতে আসন খালি থাকা সাপেক্ষে অপেক্ষামান তালিকা থেকে মেধাক্রম অনুযায়ী পর্যায়ক্রমে ওরিয়েন্টেশনের দিন পর্যন্ত ভর্তি প্রক্রিয়া চলবে এবং তা বিশ্ববিদ্যালয়ের নোটিশবোর্ড ও ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানা হবে।   

সংশ্লিষ্ট খবর