অন্যান্য

'আমার দারাজ আলোক'

প্রকাশ : ২৭ ডিসেম্বর ২০১৮

'আমার দারাজ আলোক'

  অনলাইন ডেস্ক

দেশের সেরা ই-কমার্স  প্ল্যাটফর্ম দারাজ বাংলাদেশ সম্প্রতি সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের জন্য 'আমার দারাজ আলোক' নামে একটি নতুন শিক্ষা প্রকল্প শুরু করেছে। আমার দারাজের মূল উদ্দেশ্য হল শিক্ষার মাধ্যমে ক্ষমতায়ন।

এই বিশেষ শিক্ষা প্রকল্পের আলোকে প্রধান নীতি গুলোর মধ্যে অন্যতম একটি হচ্ছে জীবন যাত্রার স্বাভাবিক মান এবং সামাজিক অধিকার থেকে বঞ্চিত শিশুদের জন্য মান-সম্মত শিক্ষা প্রদান নিশ্চিত করা। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আমার দারাজ বিভিন্ন এনজিওর সাথে কাজ করছে, যারা শিক্ষণ অক্ষমতায় আক্রান্ত শিশুদের বিনা মূল্যে শিক্ষাপ্রদান করে থাকে।

দারাজ বাংলাদেশ স্থানীয় এনজিও - ইটস হিউম্যানিটি ফাউন্ডেশন (আইএইচএফ) এর তত্ত্বাবধানে এই কর্মসূচি শুরু করেছে, যারা শিশুদের ভবিষ্যৎ আলোকিত করার লক্ষ্যে তাদেরকে বিনামূল্যে শিক্ষা, সাধারণ চিকিৎসা সেবা এবং দক্ষতা মূলক প্রশিক্ষণ সেবা সরবরাহ করে 'আমারদারাজ' বছরব্যাপী প্রকল্প হিসেবে ইটস হিউম্যানিটি ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে এডিডি,  এডিএইচডি এবং ডিসলেক্সিয়ায় আক্রান্ত শিশুদের জন্য অর্থায়ন করবে, যা তাদের মৌলিক প্রয়োজনীয়তার পাশাপাশি শিক্ষকের বেতন, এবং স্বাস্থ্যকর খাবারসহ স্কুলের সকল প্রয়োজনীয় সুযোগ-সুবিধানি শ্চিত করবে।

শিশুদের জন্যে কাজ করার পাশাপাশি আইএইচএফ সুবিধাবঞ্চিত মহিলাদের আর্থিক স্বচ্ছলতা নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে বিভিন্ন রকমের কারিগরি প্রশিক্ষণও প্রদান করে থাকে।সম্প্রতি দারাজ বাংলাদেশ লিমিটেডের বনানী সদরদপ্তরে আমার দারাজ আলোক ও আইএইচএফ-এর মধ্যেএ বিষয়ে চুক্তি সাক্ষরিত হয়। 

এ সময় দারাজের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন সৈয়দ মোস্তাহিদুল হক (ম্যানেজিং ডিরেক্টর), সৈয়দ আহমেদ আবরার হাসনাইন (হেড অব মার্কেটিং), তাঞ্জিলা রহমান (হেড অব সাস্টেনিবিলিটি ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড সিএসআর) এবং নুঝাত সেবা (এক্সিকিউটিভ,সাস্টেনিবিলিটি ভেলপমেন্ট অ্যান্ড সিএসআর)।

ইটস হিউম্যানিটি ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন মোহাম্মাদ আদনান হোসেন (ফাউন্ডার অ্যান্ড চেয়ারম্যান) এবং ফাতেমা তুজ জোহরা (এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর)।

এছাড়া প্রকল্পটি বাস্তবায়নে সাথে রয়েছে আকিজ প্ল্যাস্টিকস, ম্যাটাডর, অ্যালেক্স ফার্নিচার এবং কাদামাটি প্রোডাকশন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি 

মন্তব্য


অন্যান্য