ঢালিউড

সেপ্টেম্বরে সরব চলচ্চিত্র অঙ্গন

প্রকাশ : ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | আপডেট : ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

সেপ্টেম্বরে সরব চলচ্চিত্র অঙ্গন

  অনিন্দ্য মামুন

দেশের চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রিতে সাধারণত ঈদকে কেন্দ্র করেই চলচ্চিত্র মুক্তি দেওয়ার একটা রেওয়াজ চলে আসছে। ঈদের বাইরে বছরের শেষদিকেও বেশকিছু ছবি মুক্তি দেওয়া হয়। সে ধারাবাহিকতায় চলতি মাসে মুক্তির তালিকায় আছে বেশ কয়েকটি ছবি। যদিও মাসের শুরু হয়েছে আমদানি করা চলচ্চিত্র মুক্তি পাওয়ার মাধ্যমে। মাসের প্রথম শুক্রবার মুক্তি পেয়েছে কলকাতার ছবি 'প্যান্থার'। জিৎ অভিনীত এ ছবিটি গত ১৪ আগস্ট ভারতের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে কলকাতায় মুক্তি পেয়েছিল। বাংলাদেশের হলে দর্শক এটি তিন সপ্তাহ পর থেকে উপভোগ করতে পারছেন।

মাসের প্রথম সপ্তাহে হলগুলোতে দেশীয় ছবিশূন্য থাকলেও আগামী সপ্তাহ থেকে মাসের শেষ অবধি টানা বেশ কয়েকটি ছবি মুক্তি পাবে। মুক্তির অপেক্ষায় থাকা ছবিগুলোর মধ্যে রয়েছে অরুণ চৌধুরীর 'মায়াবতী', মাহমুদ হাসান শিকদারের 'অবতার', মুস্তাফিজুর রহমান বাবুর 'গার্মেন্টস শ্রমিক জিন্দাবাদ', কমল সরকারের 'পাগলামি' এবং গোলাম সোহরাব দোদুলের 'সাপলুডু'। এরই মধ্যে প্রতিটি ছবি সেন্সর কার্যক্রম শেষ করেছে। চূড়ান্ত হয়েছে ছবি মুক্তির তারিখও। আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর মুক্তি পাবে মায়াবতী ও অবতার। মায়াবতী ছবিতে অভিনয় করেছেন নুসরাত ইমরোজ তিশা ও ইয়াশ রোহান। অন্যদিকে অবতার ছবির মাধ্যমে দীর্ঘদিন পর পর্দায় ফিরছেন মাহিয়া মাহি। এ ছবিতে আমিন খানও অভিনয় করেছেন। ২০ সেপ্টেম্বর মুক্তি পাবে গার্মেন্টস শ্রমিক জিন্দাবাদ ও পাগলামি। গার্মেন্টস শ্রমিক জিন্দাবাদ ছবিতে অভিনয় করেছেন কাজী মারুফ ও অরিন। পাগলামি ছবিতে অভিনয় করেছেন বাপ্পি চৌধুরী ও কলকাতার শ্রাবণী। ২৭ সেপ্টেম্বর মুক্তি পাবে সাপলুডু। এ ছবিতে অভিনয় করেছেন বিদ্যা সিনহা মিম ও আরিফিন শুভ।

প্রতি সপ্তাহে দুটি দেশীয় ছবি মুক্তির খবরে কিছুটা স্বস্তির নিশ্বাস ফেলছেন হল মালিকরা। এ মাসে একাধিক ছবি মুক্তি পাওয়ার বিষয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন প্রযোজক-পরিবেশক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু। তিনি বলেন, 'চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রি ঘুরে দাঁড়াচ্ছে। এতটি ছবি মুক্তি সে ধরনেরই একটি বার্তা। আমরা সবাই যার যার অবস্থান থেকে চলচ্চিত্রের স্বার্থে কাজ করছি। সংগঠনগুলোও নানা উদ্যোগ নিয়ে হাজির হচ্ছে। এক মাসে পাঁচটি ছবি মুক্তি মানে হলগুলো দেশীয় ছবিতে সচল থাকা। আশা করি, আগামীতে এ ধারা অব্যাহত থাকবে।'

পাঁচটি ছবির মধ্যে কয়টি মানসম্মত? কিংবা এর মধ্যে কয়টি ছবিই বা দর্শকের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দু হতে পারে- এমন প্রশ্ন তুলেছেন কেউ কেউ। তাই পাঁচটি ছবি মুক্তি পেলেও সন্তোষ প্রকাশ করতে পারলেন না বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ। তিনি বলেন, 'শুধু ছবি মুক্তি দিলেই তো হবে না। ব্যবসায়িকভাবে লাভবানও হতে হবে। এর মধ্যে কয়টি ছবি দর্শক টানতে সক্ষম হবে, সেটি আগে দেখতে হবে।' বিভিন্ন মহলে নানা ধরনের আলোচনা থাকলেও সবাই এ বিষয়ে একমত, ঈদ উৎসব ছাড়া কোনো মাসে এতটি ছবি মুক্তি হয়তো ইন্ডাস্ট্রি ঘুরে দাঁড়ানোর বার্তা দিচ্ছে।

মন্তব্য


অন্যান্য