ঢাকা

রোগী সেজে চেম্বারে ম্যাজিস্ট্রেট, ভুয়া ডাক্তারের কারাদণ্ড

প্রকাশ : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯

রোগী সেজে চেম্বারে ম্যাজিস্ট্রেট, ভুয়া ডাক্তারের কারাদণ্ড

ছবি: গুগল

  গাজীপুর প্রতিনিধি

চিকিৎসা নেওয়ার জন্য ভুয়া ডাক্তারের কাছে রোগী সেজে গিয়েছিলেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। অন্য দশজন রোগীকে যেভাবে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে ওই ডাক্তার অর্থ আদায় করে আসছিলেন, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সঙ্গেও একই রকম প্রতারণা করেন। অবশেষে ধরা পড়লেন কামরুল হাসান নামের ওই ভুয়া ডাক্তার।

রোববার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে শ্রীপুর পৌর মুক্তমঞ্চের পাশে সেবা মেডিকেল হলে ভুয়া ডাক্তার কামরুল হাসানকে ১ বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন শ্রীপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এমডি শামসুল আরিফীনের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

জানা যায়, কামরুল হাসান গত ২২ বছর ধরে নিজেকে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার পরিচয় দিয়ে শ্রীপুর শহরে চেম্বার করে আসছেন। অসংখ্য মানুষ তার দ্বারা প্রতারিত হয়েছে- ওই ডাক্তারের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে রোববার রাতে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি ) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এমডি শামসুল আরিফীন নিজেই রোগী সেজে তার কাছে যান। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সঙ্গেও প্রতারণা করতে শুরু করেন কামরুল। এক পর্যায়ে কামরুল হাসানের কাছে ডাক্তারি পাশ করার সনদপত্র চাইলে তা দিতে ব্যর্থ হন তিনি। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে কামরুল হাসানকে ১ বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন ওই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

স্থানীয়রা জানান, মাদারীপুর সদর থেকে এসে প্রতারণার আশ্রয়ে গত ২২ বছরে বিপুল পরিমাণ ধন সম্পদের মালিক হয়েছেন কামরুল হাসান।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এম ডি শামসুল আরিফীন বলেন, 'ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ এর ৫২ ধারা লংঘনের দায়ে তাকে এ কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে।'

মন্তব্য


অন্যান্য