ঢাকা

শিমুলিয়া কাঁঠালবাড়ী নৌরুট

তীব্র স্রোতে ফেরি পারাপারে বিপর্যয়

প্রকাশ : ২০ জুলাই ২০১৯

তীব্র স্রোতে ফেরি পারাপারে বিপর্যয়

  মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি

পদ্মায় তীব্র স্রোতে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে ফেরি পারাপারে বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। এতে করে দুই পাড়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা পারের অপেক্ষায় রয়েছে হাজারো গাড়ি। লৌহজং টার্নিং পয়েন্টে ড্রেজিং পাইপ স্থাপনে নৌরুট সরু হওয়া এবং প্রচণ্ড গতিতে ঘূর্ণায়মান স্রোতের ফলে চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় শুক্রবার পর্যন্ত ১৬টি ফেরির মধ্যে কখনও দুটি আবার কখনও চারটি ফেরি চলছে।

বিআইডব্লিউটিসি সূত্র জানায়, পদ্মায় তীব্র স্রোতের কারণে চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। এরই মধ্যে লৌহজং টার্নিং পয়েন্টে ওয়ানওয়ে পদ্ধতিতে ফেরি চলছে। ফলে সেখানে একটি ফেরি এলে অন্যটিকে জায়গা করে দিতে হচ্ছে। এর ফলে মাঝে মধ্যেই নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলছে ফেরিগুলো। নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে বেশির ভাগ ফেরি বন্ধ রাখা হয়েছে।

বিআইডব্লিউটিসির শিমুলিয়া ঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ নাসির জানান, শুক্রবার সকালে রো রো ফেরি এনায়েতপুরী ও বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমানের সঙ্গে ক্যামেলিয়া ও ফরিদপুর নামের দুটি ছোট ফেরি ছাড়া হয়। মাঝপথে ফেরি ফরিদপুর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চরে আটকা পড়ে। ফলে আবারও সেটি শিমুলিয়া ঘাটে ফিরিয়ে আনা হয়।

বিআইডব্লিউটিসির একাধিক কর্মকর্তা জানান, লৌহজং টার্নিং পয়েন্ট অংশে একটি চর জেগেছে। ওই চরে দুটি মুখের সৃষ্টি হয়েছে। তবে মুখ বা চ্যানেল দুটি সচল নয়।

বিষয়টি বিআইডব্লিউটিএর ড্রেজিং বিভাগকে অবহিত করেও তাদের কার্যক্রম থেকে ইতিবাচক ফল পাওয়া যাচ্ছে না। এ বিষয়ে বিআইডব্লিউটিএর উপপরিচালক (নৌসংরক্ষণ ও পরিচালন) এস এম আজগর আলী জানান, মূল পদ্মায় তীব্র স্রোত থাকায় নাব্য সংকট নিরসনে ড্রেজিংয়েও বিঘ্ন হচ্ছে। এক সপ্তাহ আগে স্থাপন করা ড্রেজারের পাইপগুলোর জয়েন্ট খুলে গেছে।

মন্তব্য


অন্যান্য