ঢাকা

এসপির ঘোষণায় হকারমুক্ত নারায়ণগঞ্জের ফুটপাত

প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি ২০১৯ | আপডেট : ১২ জানুয়ারি ২০১৯

এসপির ঘোষণায় হকারমুক্ত নারায়ণগঞ্জের ফুটপাত

এসপির কড়া নির্দেশের পর শনিবার সারাদিন হকারমুক্ত ছিল নগরীর বঙ্গবন্ধু সড়ক- সমকাল

  নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

নারায়ণগঞ্জ নগরীকে যানজট ও হকারমুক্ত করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে পুলিশ সুপার (এসপি) হারুন অর রশিদের ঘোষণার দুই দিনের মধ্যেই পাল্টে গেছে পুরো চিত্র। 

শুক্রবার হকারদের কারণে ফুটপাতে হাঁটা কঠিন হলেও শনিবারই তা ছিল হকারমুক্ত। পুলিশের এই ভূমিকাকে স্বাগত জানিয়েছে নগরবাসী।

গত বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ নগরীর চাষাঢ়া শহীদ মিনারে প্রেস ব্রিফিং করে বলেছিলেন, তিনি নারায়ণগঞ্জকে যানজট, হকার ও মাদকমুক্ত করবেন। ওই ঘোষণার পর গত দুই দিনে পুরো জেলায় বিভিন্ন অপরাধে ১১৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়। শনিবার সারাদিন নগরীর বঙ্গবন্ধু সড়কের ফুটপাতে হকারদের দেখা যায়নি। পথচারীরা স্বাচ্ছন্দ্যে চলাফেরা করেছে।

ফুটপাতে হকারদের বসাকে কেন্দ্র করে গত বছরের ১৬ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু সড়কে নাসিক মেয়র আইভী ও তার অনুসারীদের সঙ্গে হকারদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনার পর নগরের ফুটপাতগুলো ধীরে ধীরে আবারও হকারদের দখলে চলে যায়।

বৃহস্পতিবার পুলিশ সুপারের ঘোষণার পর নগরবাসীর মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। কারণ খোদ নাসিক মেয়র হকারদের বিরুদ্ধে সফল হননি। সেখানে পুলিশ সুপারের সফল হওয়াটা বড় চ্যালেঞ্জ। তবে শনিবার থেকে তাদের মধ্যে আস্থা ফিরতে শুরু করেছে। 

বিল্লাল হোসেন নামে এক পথচারী বলেন, ফুটপাত জনসাধারণের চলাচলের জন্য উন্মুক্ত থাকা উচিত। ফুটপাত হকারদের দখলে থাকায় অনেক সময় পথচারীরা বাধ্য হন রাস্তা দিয়ে হাঁটতে। নিম্ন-আয়ের মানুষের জন্য ফুটপাতে হকারদের পণ্যের প্রয়োজন আছে। কিন্তু ফুটপাতে হকারদের নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। ফুটপাতকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা চাঁদাবাজ চক্রকেও দমন করতে হবে।

গত বছর হকারদের ফুটপাতে বসার দাবিতে আন্দোলনে অগ্রণী ভূমিকা পালনকারী জেলা সিপিবি সভাপতি হাফিজুল ইসলাম বলেন, আমরা প্রথম থেকেই দাবি জানিয়েছিলাম, ফুটপাতে নিয়মতান্ত্রিকভাবে হকারদের বসতে দেওয়া হোক। বিকেল ৫টার পর থেকে ফুটপাতে বসে ব্যবসা করার দাবি জানিয়েছিলাম আমরা। কিন্তু একটি পক্ষ হকারদের ফুটপাতে বসতে দিতেই রাজি ছিল না। ওই পক্ষটির অনমনীয় মনোভাবের কারণেই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছিল।

সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের আহ্বায়ক রফিউর রাব্বি বলেন, পুলিশের বিরুদ্ধে শত অভিযোগ থাকলেও তারাই ফুটপাত থেকে হকার উচ্ছেদে কঠোর নীতির কথা জানিয়েছে। আমরা আশা করব, পুলিশ ফুটপাত হকারমুক্ত রাখতে কাজ করবে। কয়েক মাস পর্যবেক্ষণ করার পর এ বিষয়ে কিছু বলা সম্ভব হবে।

নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ বলেন, ফুটপাত দিয়ে পথচারীরা চলাচল করবে। এটি হকারদের দখলে থাকতে পারে না। আমরা এ বিষয়ে জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করব।

মন্তব্য


অন্যান্য