মন্তব্য

'ইভিএম নিয়ে ইসি আস্থা তৈরি করতে পারেনি'

প্রকাশ : ২৭ নভেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ২৭ নভেম্বর ২০১৮

'ইভিএম নিয়ে ইসি আস্থা তৈরি করতে পারেনি'

  অনলাইন ডেস্ক

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৬টি আসনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এর আগে এই পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণে আপত্তি জানায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টসহ কয়েকটি রাজনৈতিক দল। তবে ক্ষমতামীন দল আওয়ামী লীগ বলছে, ইভিএমে ভোট গ্রহণের ব্যাপারে নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত নিলে তাদের আপত্তি থাকবে না। এ অবস্থায় সোমবার দেশের ৬টি সংসদীয় আসনে সব কেন্দ্রে ইভিএমে ভোট গ্রহণ চূড়ান্ত করে ইসি। বিষয়টি নিয়ে সমকাল অনলাইনের সঙ্গে কথা বলেছেন নির্বাচন পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা ‘ব্রতী’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন মুরশিদ

এটা খুবই দুঃখজনক যে আমাদের ভাবনা ও কর্মের ভেতর দ্বন্দ্ব কাজ করে। সব যন্ত্রের কিছু ভাল এবং কিছু মন্দ দিক থাকে। যন্ত্রটা ভাল ফল দেবে কিনা তা নির্ভর করে সেটা কে পরিচালনা করছেন তার ওপর। যে ইভিএম নিয়ে এখন বিতর্ক হচ্ছে, ২০০৮ সালের নির্বাচনের সময় এর পক্ষেও অনেক কথা হয়েছে। 

নির্বাচন কমিশন কয়েকটি জায়গায় ইভিএমে ভোট নিতে চায়। সেটা তারা করতেই পারে; কিন্তু কথা হচ্ছে, এই পদ্ধতির ব্যবহার ইসি অনেক জায়গায় করতে পারত। এর আগে আমাদের কয়েকটি ভোট হয়ে গেল। সেখানে তারা পদ্ধতিটা যদি ভালোভাবে ব্যবহার করত; তাহলে রাজনৈতিক দল ও ভোটারের মধ্যে এ ব্যাপারে আস্থা তৈরি হতো। কিন্তু খুবই দুর্ভাগ্যজনক যে, ইভিএম নিয়ে নির্বাচন কমিশন ভোটার, সুশীলসমাজ ও রাজনৈতিক দলের মধ্যে আস্থা তৈরি করতে পারেনি। আর সে কারণেই ইভিএম নিয়ে সবাই বিভক্ত হয়ে পড়েছে, এতো কথা হচ্ছে। আরেকটা ব্যাপার হলো, বিশ্বের অনেক জায়গায় ইভিএমে ভোট গ্রহণ বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। আবার কিছু কিছু জায়গায় এখনও চালু আছে। যারা বন্ধ করছে, তারা মনে করছে, এ পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ নিরাপদ নয়। তাই তারা ম্যানুয়াল পদ্ধতির দিকে ঝুঁকছে। 

আমাদের দেশে ইভিএমে ভোট গ্রহণ পুরোপুরি নেতিবাচক বলা যাচ্ছে না। কারণ আগেই বলেছি, যন্ত্র ভাল কি মন্দ সেটা নির্ভর করে কিভাবে সেটা পরিচালনা করা হচ্ছে তার ওপর। তাই বলে, ইসি পরীক্ষামূলকভাবে ইভিএম ব্যবহার করতে পারবে না, সেটা বলছি না। তবে ইসি যদি এ ব্যাপারে আস্থা তৈরি করতে পারে, তাহলে কয়েকটা নয়, অনেক কেন্দ্রেই ইভিএমে ভোট নিতে পারবে। 


মন্তব্য


অন্যান্য