চট্টগ্রাম

হাটহাজারীতে ধর্ষণের শিকার মাদ্রাসাছাত্রী হাসপাতালে

প্রকাশ : ২৫ জুন ২০১৯ | আপডেট : ২৫ জুন ২০১৯

হাটহাজারীতে ধর্ষণের শিকার মাদ্রাসাছাত্রী হাসপাতালে

প্রতীকী ছবি

  হাটহাজারী(চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে নাশকতা ও ভাঙচুর মামলার এক আসামির বিরুদ্ধে ৬ষ্ঠ শ্রেণির এক মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

গত সোমবার দিবাগত রাত ১১টার দিকের এ ঘটনায় রক্তাক্ত অবস্থায় ওই শিশু চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত সুমন (৩০) পলাতক। তিনি মির্জাপুর ইউনিয়নের কালা বাদশা পাড়ার শফি মাস্টার বাড়ির শফি মাস্টারের ছেলে।

সূত্রে জানা যায়, ওই রাতে ১৩ বছর বয়সী মাদাসাছাত্রীকে বাড়ির পার্শ্ববর্তী একটি স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে সুমন। পরে রক্তাক্ত অবস্থায় শিশুটিকে উদ্ধার করে রাত সাড়ে ১১টার দিকে হাটহাজারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ায় আশংকজনক অবস্থায় সেখান থেকে ওই শিশুকে দ্রুত চমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়।

হাটহাজারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার ইমতিয়াজ সমকালকে বলেন, ‘রাত সাড়ে এগারটায় ওই শিশুকে রক্তাক্ত অবস্থায় জরুরি বিভাগে নিয়ে আসা হয়। পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য দ্রুত চমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়।’

নির্যাতনের শিকার ওই শিশুর বাবা বলেন, ‘ আমারা মেয়েকে জোর করে ধর্ষণ করেছে সুমন। এ ঘটনায় থানায় মামলা করবো। আমরা সুমনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’

হাটহাজারী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীর সমকালকে বলেন, ‘আমরা ঘটনাটি শুনেছি। অভিযুক্ত সুমনকে আটক করতে অভিযান অব্যাহত আছে।’ এ ছাড়া সুমন নাশকতা ও ভাঙচুর মামলার জেল খাটা আসামি বলেও জানান ওসি।

মন্তব্য


অন্যান্য