চট্টগ্রাম

সুবর্ণচরের গণধর্ষণের ঘটনায় আরও একজনের স্বীকারোক্তি

প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি ২০১৯

সুবর্ণচরের গণধর্ষণের ঘটনায় আরও একজনের স্বীকারোক্তি

  নোয়াখালী প্রতিনিধি

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে গৃহবধূকে গণধর্ষণের মামলায় গ্রেফতার আরও এক আসামি আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। ওই আসামির নাম জামাল ওরফে হেঞ্জু মাঝি। 

শনিবার সন্ধ্যায় নোয়াখালী জেলা জজ আদালতের ২নম্বর আমলী আদালতের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম শোয়েব উদ্দিন খাঁন এই জবানবন্দি রেকর্ড করেন। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে কুমিল্লার দাউদকান্দি থেকে হেঞ্জু মাঝিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ মামলায় গ্রেফতার ১১ আসামির সাতজন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিলো।

নোয়াখালী জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ওসি আবুল খায়ের জানান, গ্রেফতারের পর হেঞ্জু মাঝি শনিবার বিকেলে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে চাইলে পুলিশ তাকে আদালতে পাঠায়। সেখানে বিচারকের কাছে নিজের দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দেয় সে। রিমান্ডে থাকা বাকি আসামিদের ডিবি কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে বলে জানান মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবির পরিদর্শক জাকির হোসেন।

৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে ধানের শীষে ভোট দেওয়াকে কেন্দ্র করে উপজেলার চর জুবলি ইউনিয়নে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা (বহিষ্কৃত) রুহুল আমিনের নেতৃত্বে ১০-১২ জনের একদল সন্ত্রাসী স্বামী সন্তানদের বেঁধে রেখে ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করে। 

এ ঘটনায় নির্যাতিত ওই গৃহবধুর স্বামী বাদী হয়ে চরজব্বর থানায় নয়জনকে আসামি করে মামলা করেন।

নোয়াখালী পুলিশ সুপার ইলিয়াছ শরিফ বলেন, বাকি আসামিদের গ্রেফতার করতে পুলিশের একাধিক টিম মাঠে রয়েছে।

মন্তব্য


অন্যান্য