চট্টগ্রাম

সেই ৯ ছাত্রীর সঙ্গে বৈঠক, অভিযোগ অস্বীকার শিক্ষকের

প্রকাশ : ০৮ নভেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ০৮ নভেম্বর ২০১৮

সেই ৯ ছাত্রীর সঙ্গে বৈঠক, অভিযোগ অস্বীকার শিক্ষকের

  চট্টগ্রাম ব্যুরো

চট্টগ্রামে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে নয় ছাত্রীকে অনৈতিক প্রস্তাব দেওয়ার ঘটনায় ভুক্তভোগী ছাত্রীদের সঙ্গে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

বৃহস্পবিতার বিকেলে টানা দেড় ঘণ্টা এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে অভিযোগকারী নয় ছাত্রীর কাছ থেকে বক্তব্য নেওয়া হয়েছে। 

এদিকে নিজের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত শিক্ষক।

চট্টগ্রাম নগরের কৃষ্ণকুমারী সিটি করপোরেশন স্কুলের শিক্ষক প্রশান্ত বড়ুয়ার বিরুদ্ধে অনৈতিক প্রস্তাব দেওয়াসহ উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে নয় ছাত্রীকে পরীক্ষার হলে দেড় ঘণ্টা খাতা আটকে রাখার অভিযোগ উঠে। অভিযোগ লিখিতভাবে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনে (চসিক) জমা দেন ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা।

ভুক্তভোগী ছাত্রীদের নিয়ে বৈঠক করা এনায়েত বাজার এলাকার কাউন্সিলর মোহাম্মদ সলিম উলতাহ সমকালকে বলেন, ছাত্রীদের কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়ার পর তাদের কাছ থেকে বক্তব্য নিতে বৈঠক আহ্বান করা হয়। বৈঠকে অভিযোগকারী ছাত্রী ও ঘটনার দিন পরীক্ষা কেন্দ্রে থাকা অন্যান্য ছাত্রীদের কাছ থেকেও বক্তব্য নেয়া হয়েছে। বক্তব্যে অভিযোগকারী ছাত্রীরা ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনৈতিক প্রস্তাব দেয়া, ফেসবুক আইডি ও ফোন নম্বর সংগ্রহ, দুই হাজার টাকা নিয়ে জোরপূর্বক প্রাইভেট পড়তে বাধ্য করাসহ আরও কিছু অভিযোগ মৌখিকভাবে আমাদের জানিয়েছে। প্রাপ্ত অভিযোগসহ যাবতীয় বিষয় আমরা খতিয়ে দেখছি। বিষয়টি মেয়রকে জানানোর পর তিনি যেভাবে সিদ্ধান্ত দেবেন সেভাবে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

তিনি জানান, হলে খাতা নেওয়ার কারণে অভিযোগ করা নয় ছাত্রী একটি বিষয়ে ফেল করেছে। তারা যাতে আগামী বছর এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারে তার ব্যবস্থা গ্রহণ করতে আমরা বোর্ডসহ সংশ্লিষ্টদের আহ্বান জানাবো।

অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে শিক্ষক প্রশান্ত বড়ুয়া সমকালকে বলেন, পরিকল্পিতভাবেই আমার বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অভিযোগ আনা হয়েছে। পরীক্ষার দিন দুই ছাত্রী একে অপরের খাতা দেখাদেখি করছিল। আমি কয়েকবার নিষেধ করা স্বত্ত্বেও তারা তা শুনেনি। যে কারণে এক পর্যায়ে তাদের খাতা নিয়ে নেই। তবে ১০ মিনিট পর খাতা ফেরত দিয়েছি। আমি নয়জন ছাত্রীর কাছ থেকে খাতা কেড়ে নেইনি। নির্বাচনী পরীক্ষায়  অকৃতকার্য হওয়ায় এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতেই অজুহাত হিসেবে আমার বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ করেছে ছাত্রীরা। এ বিষয়ে আমাকে শোকজ করা হয়েছে। তিনদিনের মধ্যে আমি শোকজের জবাব দেব।

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হওয়া এসএসসির নির্বাচনী পরীক্ষায় গণিত বিষয়ে পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে পরিদর্শকের দায়িত্ব পালনের সময় শিক্ষক প্রশান্ত বড়ুয়া পরীক্ষা শেষ হওয়ার প্রায় দেড় ঘণ্টা আগে নয় ছাত্রীর খাতা কেড়ে নেন বলে অভিযোগ উঠে। এছাড়াও অভিযোগে ভুক্তভোগী ছাত্রীরা উল্লেখ করেন, শিক্ষক প্রশান্ত বড়ুয়া দশম শ্রেণির নয় ছাত্রীকে বিভিন্ন সময় অনৈতিক প্রস্তাব দিয়েছেন। তার এমন প্রস্তবে রাজি না হওয়ায় এক পর্যায়ে তিনি ছাত্রীদের মোবাইল নম্বর ও ফেসবুকে নিজেকে সংযুক্ত করতে চাপ দেন। পরে বিষয়টি স্কুলের প্রধান শিক্ষককে জানানো হলে প্রশান্ত বড়ুয়াকে দশম শ্রেণির ক্লাস নেওয়া থেকে বিরত রাখা হয়। পরবর্তীতে তিনি ছাত্রীদের নানাভাবে হয়রানি করতে থাকেন। প্রায় সময় পরীক্ষায় ফেল করিয়ে দেওয়ারও ভয় দেখাতেন তিনি। 

এদিকে, এক বিষয়ে ফেল করার কারণে নয় ছাত্রীর আগামী বছরের এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। 

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) সচিব আবুল হোসেন সমকালকে বলেন, মেয়র বর্তমানে চট্টগ্রামের বাইরে অবস্থান করছেন। তিনি আসার পরই অভিযোগ ও ছাত্রীদের পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

মিরসরাইয়ে অটোরিকশার ধাক্কায় পুলিশ সদস্য নিহত


আরও খবর

চট্টগ্রাম

  মিরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলায় বেপরোয়া গতির অটোরিকশার ধাক্কায় নুরুল আমিন (৫৮) নামে পুলিশের এক কনস্টেবল নিহত হয়েছে।

শনিবার সন্ধ্যায় ৭টার দিকে উপজেলার বারইয়ার পৌর বাজারের গাছ মার্কেট এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত নুরুল আমিন ফেনীর পরশুরাম উপজেলার রামপুর গ্রামের প্রয়াত হাসান আলীর ছেলে। তিনি জোরারগঞ্জ থানায় কর্মরত ছিলেন।

জেরারগঞ্জ থানার জ্যেষ্ঠ উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবিদ আলী জানান, শনিবার সন্ধ্যায় বারইয়ারহাট পৌর বাজারের গাছ মার্কেট এলাকায় কর্তব্যরত ছিলেন কনস্টেবল নুরুল আমিন। ওই সময় ফেনীর দিক থেকে আসা একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা তাকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় কনস্টেবল নুরুল আমিনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

পক্ষপাতহীনভাবে নির্বাচন পরিচালনা করবে ইসি: গণপূর্ত মন্ত্রী


আরও খবর

চট্টগ্রাম

গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন- ফাইল ছবি

  চট্টগ্রাম ব্যুরো

নির্বাচন কমিশন (ইসি) পক্ষপাতহীনভাবে নির্বাচন পরিচালনা করবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। 

শনিবার সকালে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের চতুর্থ ও পঞ্চম তলার কার্যক্রম চালু এবং তৎকালীন প্রাদেশিক পরিষদ সদস্য এস রহমান হলের উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই মন্তব্য করেন। 

অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষণ ও পাকিস্তানি বাহিনীর আত্মসমর্পণের স্থান সংরক্ষণ করে রমনা পার্কের আধুনিকায়নে ৩০০ কোটি টাকার প্রকল্প বাস্তবায়ন করছি। চট্টগ্রামে ২২ কোটি টাকায় জাম্বুরি পার্ক করে ২২ লাখ মানুষের উপকার করেছি। মামলার কারণে জাতিসংঘ পার্ক করতে না পারলেও হালিশহরে একটি পার্ক করছি। চট্টগ্রামের ডিসি হিলকে জাম্বুরি পার্কের চেয়েও সুন্দর করা হবে।' 

এ সময় চট্টগ্রামের উন্নয়নে টানেল নির্মাণ ও মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল করাসহ অনেক মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

চট্টগ্রামের হালিশহরে অত্যাধুনিক একটি সিনেপ্লেক্স তৈরি করা হচ্ছে বলে জানান তিনি। মন্ত্রী তার বক্তব্যে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের কাজের সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে আনন্দ প্রকাশ করেন এবং বিভিন্ন সময় সাংবাদিকদের কাছ থেকে সহযোগিতা পাওয়ার বিষয়টি স্মরণ করেন। 

সাংবাদিকদের আবাসন সমস্যা নিরসনে তিনি ন্যাশনাল হাউজিং অথরিটির মাধ্যমে এ সংকট নিরসন সম্ভব এবং এ ব্যাপারে সরকার অত্যন্ত আন্তরিক বলে উল্লেখ করেন।

চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব সভাপতি কলিম সরওয়ারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শুকলাল দাশের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সভাপতি নাজিমুদ্দীন শ্যামল, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সাবেক সহ-সভাপতি শহীদ উল আলম, প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজী আবুল মনসুর, কার্যকরী সদস্য মোয়াজ্জেমুল হক, অর্থ সম্পাদক দেব দুলাল ভৌমিক প্রমুখ।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সিলিন্ডার বিস্ফোরণে আহত ৯


আরও খবর

চট্টগ্রাম

ফাইল ছবি

  উখিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি

কক্সবাজারের উখিয়ার মধুরছড়া ৫ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গ্যাসের সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ৯ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। 

শনিবার সকাল ৭ টার দিকে জি-২ জোন, কিউ ব্লকে এই ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন ক্যাম্পের আবদুল গফুরের ছেলে হামিদ উল্লাহ (১৫), মোহাম্মদ শফির ছেলে মোহাম্মদ ইলিয়াছ (৪০), ইমাম শরীফের ছেলে সরওয়ার (২৫), আবদুল হাকিমের ছেলে নুরুল আলম (৩০), আবদুল মালেকের ছেলে আবদুল কাদের (১৮), মোঃ জাফরের ছেলে ফয়েজ উল্লাহ (৪), মোহাম্মদ জমিরের ছেলে আনোয়ার খালেদ (৫), মোঃ শরীফের ছেলে এজাজুল হক (১০) ও মোহাম্মদ হাশিমের মেয়ে তসলিম (১০)। তাদেরকে গুরুতর আহতাবস্থায় উখিয়ার শরণার্থী ক্যাম্প সংলগ্ন এমএসএফ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

ক্যাম্পের হেড মাঝি মোঃ ইউছুপ জানান, কুতুপালং জি-২ জোন কিউতে রোহিঙ্গা মোঃ ইলিয়াছ সিলিন্ডার থেকে বেলুনে গ্যাস ভরছিলেন। ওই সময় অন্যান্য রোহিঙ্গারা সেটি দেখছিলেন। এ সময় সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে ৯ জন আহত হয়।

উখিয়া থানার ওসি মোঃ আবুল খায়ের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। 

সংশ্লিষ্ট খবর