চট্টগ্রাম

স্বেচ্ছায় ভারতে গিয়েছিলেন মনিকা: পুলিশ

প্রকাশ : ০৮ নভেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ০৮ নভেম্বর ২০১৮

স্বেচ্ছায় ভারতে গিয়েছিলেন মনিকা: পুলিশ

সাতক্ষীরার ভোমরা সীমান্ত থেকে উদ্ধার করা হয় মনিকা বড়ুয়াকে— ফাইল ছবি

  চট্টগ্রাম ব্যুরো

চট্টগ্রাম থেকে ‘নিখোঁজ’ গানের শিক্ষিকা মনিকা বড়ুয়া রাধা নিজের ইচ্ছায় সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে গিয়েছিলেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের (সিএমপি) কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) আমেনা বেগম একথা জানান।

প্রায় সাত মাস আগে নিখোঁজ হওয়া মনিকাকে মঙ্গলবার সাতক্ষীরার ভোমরা সীমান্ত থেকে উদ্ধারের পর বুধবার রাতে চট্টগ্রামে নেওয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে আমেনা বেগম বলেন,  শুরুতে আমরা মনে করেছিলাম তাকে অপহরণ বা পাচার করা হয়েছে। পরে জানতে পারি তিনি নিজ ইচ্ছায় গেছেন। মনিকা স্বেচ্ছায় ভারতে গিয়েছিলেন।

গত ১২ এপ্রিল চট্টগ্রাম নগরীর লালখান বাজারের হাই লেভেল রোডের বাসা থেকে গানের টিউশনিতে যাওয়ার কথা বলে বের হন ৪৫ বছর বয়সী মনিকা।

পরে আর মনিকার স্বামী দেবাশীষ বড়ুয়া ১৩ এপ্রিল বিষয়টি নিয়ে নগরীর খুলশি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। ২৮ এপ্রিল তা অপহরণ মামলায় রূপান্তর হয়।

মনিকার সন্ধান চেয়ে তার বোন ও পরিবারের সদস্যরা চট্টগ্রাম ও ঢাকায় কয়েক দফা মানববন্ধন করেন।

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

পরীক্ষা কেন্দ্রে নয় সুমনা চলে গেল অনন্তলোকে


আরও খবর

চট্টগ্রাম

সুমনার প্রবেশপত্র নিয়ে মায়ের আহাজারি। ছবি: সমকাল

  চট্টগ্রাম ব্যুরো

সকালবেলা হাসিমুখে বাসা থেকে পরীক্ষা কেন্দ্রে যাওয়ার জন্য বের হয়েছিল সুমনা আক্তার। বাসার লোকজনও হাসিমুখে বিদায় দিয়েছিল সুমনাসহ তার পাঁচ সহপাঠীকে। কিন্তু সুমনার আর পরীক্ষা কেন্দ্রে যাওয়া হলো না; দ্বিতীয় দিনের প্রাথমিক সমাপনী (প্রাইমারি এডুকেশন সার্টিফিকেট-পিইসি) পরীক্ষা শুরুর আধঘণ্টা আগে আকস্মিক এক সড়ক দুর্ঘটনায় ফুটফুটে শিশুটি চলে গেল অনন্তলোকে- না ফেরার দেশে।

সোমবার সকালে চট্টগ্রাম মহানগরীর বন্দর থানার পুরাতন পোর্ট মার্কেটসংলগ্ন এলাকায় মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনা ঘটে। সুমনা ও তার সহপাঠী পিংকীকে বহন করা রিকশাটিকে পেছন থেকে একটি টমটম ধাক্কা দিলে পড়ে গিয়ে টমটমের চাকার নিচে চলে যায় সুমনা। এ ঘটনায় তার বন্ধু আরেক পরীক্ষার্থী পিংকীর একটি পা ভেঙে গেছে।

নিহত সুমনা ওই এলাকার ঘাসফুল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী ছিল। তাদের বাড়ি সন্দ্বীপের রহমতপুর এলাকায়। থাকত পোর্ট কলোনি ৩ নম্বর রোডের রেলওয়ে স্টাফ কোয়ার্টারে। তার বাবা বাবর উদ্দিন ট্রাকচালক।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আলাউদ্দিন তালুকদার জানান, সকালে বাসা থেকে বের হয়ে রিকশা করে নিমতলা মকবুলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে যাচ্ছিল সুমনা ও পিংকী। তাদের বহনকারী রিকশাকে একটি টমটম (ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা) পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে রিকশার অ্যাপেল ভেঙে তারা দু'জন রাস্তায় পড়ে যায়। এ সময় সুমনা টমটমটির চাকার নিচে চলে যায়। হাসপাতালে আনা হলে সুমনাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। অভ্যন্তরীণ রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। তার সহপাঠী পিংকীর পা ভেঙে গেছে।

সুমনার খালু মো. জসিম বলেন, আমার মেয়ে পিংকী, সুমনাসহ পাঁচজন পরীক্ষা দিতে যাচ্ছিল। তাদের দুটি রিকশা ঠিক করে দিয়েছিলাম। সুমনা আর পিংকী ছিল এক রিকশায়। টমটম ধাক্কা দেওয়ার পর ওরা রিকশা থেকে পড়ে যায়। অন্য রিকশার চালক এসে তাদের রাস্তা থেকে তুলে বন্দর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে আহত দু'জনকে চট্টগ্রাম মেডিকেলে নেওয়া হলে চিকিৎসক জানান, সুমনা আগেই মারা গেছে।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

প্রাইভেটকারে ৯৭ কেজি গাজা, আটক ২


আরও খবর

চট্টগ্রাম

  মুরাদনগর (কুমিল্লা) সংবাদদাতা

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায় প্রাইভেটকার থেকে ৯৭ কেজি গাজা উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে।

সোমবার সকালে উপজেলার মুরাদনগর-ইলিয়েটগঞ্জ সড়কের নেয়ামতকান্দি নামক স্থানে অভিযান চালিয়ে গাজা উদ্ধার ও দুজনকে আটক করা হয়।

আটকরা হলেন- নরসিংদী জেলার রায়পুর থানার কাচারিকান্দি গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে সিয়াম (২৫) ও ঠাকুরগাঁও জেলার সদর থানার ইসলামপুর গ্রামের আব্দুল কাইয়ূমের ছেলে (৩০)।

এ বিষয়ে মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মঞ্জুর আলম জানান, মুরাদনগর-ইলিয়েটগঞ্জ সড়ক হয়ে একটি মাদকের চালান যাচ্ছে, এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মুরাদনগর থানার পুলিশ নেয়ামতকান্দি ব্রিজের উপর চেকপোস্ট বসিয়ে যানবাহনে তল্লাশি চালাচ্ছিল। এ সময় একটি প্রাইভেটকার থেকে ৯৭ কেজি গাজা উদ্ধার ও দুইজনকে আটক করা হয়।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

মহেশখালীতে র‌্যাবের সঙ্গে 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত ১


আরও খবর

চট্টগ্রাম

  মহেশখালী (কক্সবাজার) প্রতিনিধি

মহেশখালীর প্যারাবণে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) সঙ্গে 'বন্দুকযুদ্ধে' একজন নিহত হয়েছেন। নিহত আবুল হাসান মানিক জলদস্যু বলে দাবি করেছে র‌্যাব।

কুতুবজোমের ঘটিভাঙ্গা-সোনাদিয়া সংযোগ সড়কের পাশে প্যারাবনে সোমবার ভোর ৪টার দিকে এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

নিহত ব্যক্তি কুতুবদিয়ার মধ্যম করলাপাড়াস্থ লেদুমিয়ার ছেলে। ঘটনাস্থল থেকে ২টি এলজি ও ৮ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে বলে দাবি র‌্যাবের।

র‌্যাব জানায়, সোমবার ভোরে একদল জলদস্যু দস্যুতার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে এমন খবর পেয়ে র‌্যাব-৭ এর একটি দল ওই এলাকায় অভিয়ান চালায়। র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে জলদস্যুরা গুলি ছুটতে ছুটতে বনের দিকে চলে যায়। এ সময় র‌্যাবও আত্মরক্ষার্তে পাল্টা গুলি করে। দস্যুরা পালালেও মানিক নামে এক জলদস্যু আহত অবস্থায় পড়ে থাকে।  আহত মানিককে উদ্ধার করে মহেশখালী হাসপাতালে নিয়ে আসলে সেখানে সকাল ৮টা ২০ মিনিটে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে মানিকের লাশ মহেশখালী থানায় হস্তান্তর করে র‌্যাব সদস্যরা।

মহেশখালীর এসআই পংকজ বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য লাশ সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান র‌্যাব-৭ এর কক্সবাজার ক্যাম্পের কমান্ডার মেহেদী হাসান।

সংশ্লিষ্ট খবর