রাজধানী

বাহারি ফুলের পসরায় রঙিন বঙ্গবন্ধু সম্মেলন কেন্দ্র

প্রকাশ : ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮

বাহারি ফুলের পসরায় রঙিন বঙ্গবন্ধু সম্মেলন কেন্দ্র

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) বৃহস্পতিবার বাহারি ফুলের পসরা দেখতে হাজির হন দর্শনার্থীরা- সমকাল

  সমকাল প্রতিবেদক

বাহারি রঙের ফুল ও সারি সারি ফুলগাছে সাজানো ছোট ছোট ঘর। যেন এক পরিকল্পিত বাগান। ইট-পাথরের এই নগরে অস্থায়ী ফুলের এ বাগান বসেছে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি)। 

রুক্ষ এ নগরীর ভবনগুলোতেও প্রকৃতির সাজে এমন সজীবতার সাজানো সম্ভব- তারই নমুনা তৈরি করেছেন এ খাতের উদ্যোক্তারা।

বৃহস্পতিবার ঢাকা চেম্বার অব কমার্সের আয়োজনে আন্তর্জাতিক ফুলের প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কাজী এম আমিনুল ইসলাম। তিন দিনের এ মেলা আগামী শনিবার শেষ হবে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত এ অস্থায়ী বাগান ঘুরে দেখার পাশাপাশি নানা প্রজাতির ফুল ও ফুলের গাছ কেনার সুযোগ আছে। 

ছোট ছোট ঘরে সাজানো বাহারি রকমের ফুল 

এসব ফুলের চারা ১০০ থেকে ১৫০ টাকা ও গাছ ৩০০ থেকে দেড় হাজার টাকায় পাওয়া যাচ্ছে।

ফুলের দেশে পরিণত হয়েছে বাংলাদেশ। সাম্প্রতিক সময়ে দেশের মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে নানা স্তরে ফুলের ব্যবহার বেড়েছে। এ কারণে ফুলের বাণিজ্যিক চাষাবাদ অর্থনীতিতে নতুন দিগন্ত উন্মোচিত করেছে বলে মনে করেন বিডার চেয়ারম্যান।

বর্তমান ১ হাজর ২০০ কোটি টাকার ফুলের বাজার বহুগুণ বাড়ানোর সুযোগ আছে। সম্ভাবনাময় এ খাত এগিয়ে নিতে স্বল্প হারে ঋণ সুবিধার পাশাপাশি সহজলভ্য আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবস্থা ও ব্যবহারের প্রশিক্ষণ দিতে হবে বলে মনে করেন ঢাকা চেম্বারের সভাপতি আবুল কাসেম খান।

কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. মো. আব্দুর রউফের মতে, ফুল খাতের সম্ভাবনা আরও কাজে লাগাতে সরকারি-বেসরকারি যৌথ উদ্যোগে এগিয়ে নিতে হবে।

কৃষি মন্ত্রণালয় ফুলের জন্য স্থায়ী পাইকারি বাজার স্থাপনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এর বাস্তবায়ন দ্রুত শেষ করা প্রয়োজন বলে মনে করেন বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটির সভাপতি আব্দুর রহিম।

ফুল চাষে দক্ষতা উন্নয়নে এ দেশের প্রায় ৩ হাজার কৃষককে প্রশিক্ষণ দেওয়ার কথা জানিয়েছেন ইউএসএইডের পরিচালক থমাস পোপ। আগামীতেও এ দেশে ইউএসএইড সহযোগিতা করবে বলে আশ্বাস দেন তিনি।

১৯৮৩ সালে যশোরের ঝিকরগাছায় বাণিজ্যিকভাবে ফুল চাষের যাত্রা শুরুর ইতিহাস তুলে ধরেন ইউএসএইডের পরামর্শক ও কৃষি মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব আনোয়ার ফারুক। তিনি মনে করেন, দেশে উপযোগী জমি ও সহায়ক জলবায়ুর কারণে ফুলের চাষ বাড়ছে।

উদ্যোক্তাদের মতে, এখন ফুলের ব্যবহার বাড়ছে। ফলে লাভজনক ব্যবসা ফুল চাষে এখন দেশের ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের মধ্যে আর সীমাবদ্ধ নেই।এ বছরে পঞ্চগড়ে দেড়শ' বিঘা জমিতে ফুল চাষ, চারা উৎপাদনের বাগান করেছে বলে জানান মেটাল বায়োটেক নার্সারির ব্যবস্থাপক মুহাম্মদ মাহবুব-ই-খোদা।

ফুলের পসরা দেখে সেলফি তুলছেন আগত দর্শনার্থীরা 

লাভজনক ফুল চাষের বর্ণনা দেন ডানকান অর্কিড কেমিলিয়া ফাউন্ডেশনের বাগান ব্যবস্থাপক অমল সাহা। তার মতে, অন্য ফসলের চেয়ে ফুল চাষ অনেক বেশি লাভজনক। আড়াই ফুট থেকে ৬০ ফুট জায়গায় ৫০০ ফুল গাছ চাষে বছরে গড়ে ৮০০ ফুল পাওয়া যায়। প্রতিটি ফুল ১২ টাকায় বিক্রি হলে ৯ হাজার ৬০০ টাকা আসে। এতে ব্যয় হয় বছরে গড়ে ৩ হাজার টাকা।

মাটি ছাড়া নারিকেলের ছোবড়ায় লাগানো ৪২ প্রজাতির অর্কিডের চারা মেলায় নিয়ে এসেছেন দ্বীপ্ত অর্কিডের বাগান ব্যবস্থাপক কেএস মাহমুদ। মেলায় ফুল চাষে লোকসানের ঝুঁকি এড়াতে বীমার অফার নিয়ে এসেছে গ্রীন ডেল্টা ইন্স্যুরেন্স।

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

'স্যরি' বললেন রাস্তায় রিকশাচালককে পেটানো সেই নারী


আরও খবর

রাজধানী

ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওর স্কিনশট

  অনলাইন ডেস্ক

রাস্তায় একজন রিকশাচালককে মারধর করার সময় সেই ঘটনার ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া সুইটি আক্তার শিনু দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

মঙ্গলবারের ওই ঘটনা নিয়ে বিবিসি বাংলাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বুধবার দুঃখ প্রকাশ করেন তিনি।

শিনু বলেন, 'মিরপুরের রূপনগর আবাসিক এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে। ওই ঘটনা নিয়ে আমি একদম স্যরি, যেহেতু আমার ভুল হয়ে গেছে। আমার এটা করা উচিত হয়নি। আমি স্যরি বলতেছি।'

এ ঘটনার পর তাকে দল থেকে বহিষ্কারের বিষয়ে তিনি বলেন, আমার ভুল হইছে। আমার দল ঠিক করেছে। দলের বাইরের কিছু লোক ভিডিও করে আমাকে অপব্যবহার করছে।

ভিডিও ভাইরাল হওয়া সম্পর্কে সুইটি আক্তার বলেন, এই ইলেকশনকে কেন্দ্র করে এইগুলা করতেছে। বেশি আমাদের বিপক্ষের লোকগুলা লেখালেখি করতেছে।

এই ঘটনার পরে ফেসবুকে বেশ কিছু ফেক আইডি তৈরি করা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। কোনটিতে তাকে 'বিএনপি নেত্রী' আবার কোনটিতে তাকে 'আওয়ামী লীগ নেত্রী' হিসেবে বর্ণনা করা হয়।

সামাজিক মাধ্যমে বিশেষ করে ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে যেটুকু দেখা গেছে তার আগে কিছু ঘটনা ঘটেছে তা লোকজনের নজরে আসেনি বলেও তিনি দাবি করেন।

শিনু বলেন, বাসায় আমার বাচ্চা আছে এবং চুলায় রান্না চাপানো আছে- এটা বলার পরও রিকশাচালক তার কথা না শুনে ধীরে ধীরে চালাচ্ছিলেন এবং ভাঙ্গা জায়গা দিয়ে রিকশা চালাচ্ছিলেন। এরপর তিনি রিকশা থেকে পড়ে যান।

এই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর এ নিয়ে পারিবারিক এবং সামাজিকভাবে লজ্জার মুখে পড়েছেন বলে জানান তিনি। শিনু বলেন, বলে বোঝাতে পারবো না মঙ্গলবার থেকে আমি কিসের মধ্যে আছি।

মঙ্গলবার বিকেলে ফেসবুকে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে দেখা যায় এক নারী, এক তরুণ রিকশাচালকের ওপর চড়াও হয়েছেন। তিনি নিজেই ওই রিকশার যাত্রী ছিলেন। রিকশাচালকের প্যাডেলের গতি পছন্দ নয় ওই নারীর। তাই আরও জোরে চালাতে নির্দেশ দেন।

কিন্তু রিকশাচালক জানান, এর চেয়ে বেশি জোরে চালাতে পারবেন না। এতেই বিপত্তি চালকের। ক্ষিপ্ত নারী চড়াও হন চালকের ওপর। সবার সামনে রিকশা থেকে নেমে চালকের গায়ে হাতও তোলেন তিনি। আবারো রিকশায় উঠে হাতের ব্যাগ দিয়ে চালককে মারতে উদ্যত হন। ক্ষুব্ধ হয়ে তাকে লাথি ছুঁড়তেও দেখা যায়। অকথ্য ভাষায় গালিগালাজও হয়।

ঘটনার ভিডিও দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, অনেক পথচারী ওই নারীর আচরণের প্রতিবাদ করছেন। তবে কোনো প্রতিবাদেই নিজের অবস্থান থেকে সরেননি তিনি। এক পর্যায়ে প্রবীণ এক পথচারীর ওপর হামলা চালান ওই নারী

বুধবার সকালে ঢাকা মহানগর উত্তরের ৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী আব্দুল হারুন ও সাধারণ সম্পাদক মো. মকবুল হোসেন তালুকদার স্বাক্ষরিত শিনুকে বহিষ্কারের একটি চিঠি গণমাধ্যমে পাঠানো হয়।

পরের
খবর

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে যান চলাচলে ডিএমপির নির্দেশনা


আরও খবর

রাজধানী

  সমকাল প্রতিবেদক

আগামী ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী এবং বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে যাবেন। এ কারণে ওইদিনটিতে এ এলাকা ঘিরে যানবাহন চলাচলে বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)।

বুধবার ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে শুক্রবার সকাল ৬টা থেকে সাড়ে ৯টা পর্যন্ত মিরপুর মাজার রোড ক্রসিং থেকে মিরপুর ১ নম্বর সড়কে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে।

উল্লেখিত সময়ে অর্থাৎ শুক্রবার সকাল ৬টা থেকে সাড়ে ৯টা পর্যন্ত রিকশা ভ্যানসহ এই সড়কের সব যানবাহনকে বিকল্প সড়কে চলাচল করতে বলা হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে।

বিকল্প সড়ক সম্পর্কে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, যেসব যানবাহন আশুলিয়ার দিক থেকে বেড়িবাঁধ দিয়ে মিরপুরের দিকে আসবে, সেগুলো নবাবেরবাগ ক্রসিং থেকে বামে মোড় নিয়ে শাহআলী থানা রোড ব্যবহার করবে। মাজার রোড ক্রসিং হয়ে শাহআলী মাজার অভিমুখের গাড়িগুলো টেকনিক্যাল মোড় হয়ে দারুসসালাম রোড ব্যবহার করবে। মিরপুর-১০ নম্বর থেকে মাজার রোড বন্ধ থাকায় এ রুটের গাড়িগুলো মিরপুর-১ নম্বর থেকে বামে দারুসসালাম রোড ও টেকনিক্যাল মোড় হয়ে যাবে।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

রিকশাচালককে পিটিয়ে আ'লীগ থেকে বহিষ্কার হলেন সেই নারী


আরও খবর

রাজধানী

  সমকাল প্রতিবেদক

রিকশাচালককে মারধরের ঘটনায় ঢাকা মহানগর উত্তরের ৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের মহিলা সম্পাদিকার পদ থেকে সুইটি আক্তার শিনুকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

বুধবার সকালে ঢাকা মহানগর উত্তরের ৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী আব্দুল হারুন ও সাধারণ সম্পাদক মো. মকবুল হোসেন তালুকদার স্বাক্ষরিত বহিষ্কারের একটি চিঠি গণমাধ্যমে পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে বলা হয়, ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ ও দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে ঢাকার ৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের মহিলা সম্পাদিকার পদ থেকে সুইটি আক্তার শিনুকে বহিষ্কার করা হয়েছে। তার আচরণে দলের সুনাম নষ্ট হয়েছে। বার বার সংশোধন করার পরও তার আচরণ সংশোধন হয়নি বরং উচ্ছৃঙ্খলতা বেড়েছে। জরুরি বৈঠকে তাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মো. মকবুল হোসেন তালুকদার সমকালকে বলেন, ১১ ডিসেম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নির্বাহী কমিটির বৈঠকের সিদ্ধান্তে সুইটিকে মহিলা সম্পাদিকা ও প্রাথমিক সদস্যপদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকেলে ফেসবুকে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে দেখা যায় এক নারী, এক তরুণ রিকশাচালকের ওপর চড়াও হয়েছেন। তিনি নিজেই ওই রিকশার যাত্রী ছিলেন। রিকশাচালকের প্যাডেলের গতি পছন্দ নয় ওই নারীর। তাই আরও জোরে চালাতে নির্দেশ দেন। কিন্তু রিকশাচালক জানান, এর চেয়ে বেশি জোরে চালাতে পারবেন না। এতেই বিপত্তি চালকের। ক্ষিপ্ত নারী চড়াও হন চালকের ওপর। সবার সামনে রিকশা থেকে নেমে চালকের গায়ে হাতও তোলেন তিনি। আবারো রিকশায় উঠে হাতের ব্যাগ দিয়ে চালককে মারতে উদ্যত হন। ক্ষুব্ধ হয়ে তাকে লাথি ছুঁড়তেও দেখা যায়। অকথ্য ভাষায় গালিগালাজও হয়। ঘটনার ভিডিও দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, অনেক পথচারী ওই নারীর আচরণের প্রতিবাদ করছেন। তবে কোনো প্রতিবাদেই নিজের অবস্থান থেকে সরেননি তিনি। এক পর্যায়ে প্রবীণ এক পথচারীর ওপর হামলা চালান ওই নারী।

সংশ্লিষ্ট খবর