রাজধানী

শ্যামাপূজা উদযাপিত

প্রকাশ : ০৬ নভেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ০৬ নভেম্বর ২০১৮

শ্যামাপূজা উদযাপিত

ফাইল ছবি

  সমকাল প্রতিবেদক

হিন্দু সম্প্রদায়ের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব শ্যামাপূজা  মঙ্গলবার সাড়ম্বরে উদযাপিত হয়েছে। কালীপূজা নামে পরিচিত এ উৎসবের সঙ্গে একই দিন উদযাপিত হয়েছে দীপাবলি উৎসবও।

এদিন রাতে মণ্ডপে মণ্ডপে শ্যামা দেবীর পূজা আয়োজিত হয়। পাশাপাশি প্রসাদ বিতরণ, আরতি, ধর্মীয় সঙ্গীত, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, আলোকসজ্জা করা হয়। দীপাবলি উদযাপনের জন্য সন্ধ্যায় মন্দির, মণ্ডপ ও হিন্দুদের ঘরে ঘরে প্রদীপ প্রজ্বালন করা হয়।

ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির মেলাঙ্গনে কেন্দ্রীয় শ্যামাপূজা উদযাপিত হয়েছে উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে। মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির উদ্যোগে সেখানে রাতে পূজা ছাড়াও সন্ধ্যায় দীপাবলি অনুষ্ঠানে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনা করে সহস্র প্রদীপ প্রজ্বালন করা হয়। সহস্র প্রদীপ প্রজ্বালন উদ্বোধন করেন সাবেক সচিব অশোক মাধব রায়। মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির সভাপতি শৈলেন্দ্র নাথ মজুমদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি মিলন কান্তি দত্ত, সাধারণ সম্পাদক নির্মল কুমার চ্যাটার্জী, মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির সাধারণ সম্পাদক কিশোর রঞ্জন মণ্ডল প্রমুখ।

রমনা কালীমন্দির ও মা আনন্দময়ী আশ্রমে শ্যামাপূজা ও দীপাবলি উৎসবের উদ্বোধন করেন জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের। মন্দির কমিটির সভাপতি উৎপল সাহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মুকুল বোস, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মোল্লা মো. আবু কাওছার, মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক সজীব বিশ্বাস প্রমুখ।

সবুজবাগের বরদেশ্বরী কালীমাতা মন্দির ও শ্মশানে শ্যামাপূজার তিন দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালা গতকাল শুরু হয়েছে। মধ্যরাতে পূজা, পাঠাবলি, অঞ্জলি প্রদান ও প্রসাদ বিতরণ ছাড়াও সন্ধ্যা ৬টা ১ মিনিটে মন্দিরের গঙ্গাসাগর দিঘির চারপাশে সহস্রাধিক প্রদীপ প্রজ্বালন, আলোকসজ্জা, ৭টা ১ মিনিটে আতশবাজি ও বেঙ্গল লাইটস্‌ প্রদর্শনী এবং রাত ৮টা ৩১ মিনিটে নাট্যোৎসবের উদ্বোধন করা হয়। এ নাট্যোৎসবে আগামীকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ছয়টি নাটক প্রদর্শন করা হবে। বৃহস্পতিবার শেষ দিনে সন্ধ্যা ৭টা ৩১ মিনিটে সন্ধ্যাপূজা আয়োজিত হবে।

এ ছাড়া রাজধানীর গোপীবাগের রামকৃষ্ণ মিশন ও মঠ মণ্ডপ, সিদ্ধেশ্বরী কালীমন্দির, বনগ্রাম রোডের রাধাগোবিন্দ জিও ঠাকুর মন্দির, জয়কালী মন্দির রোডের রামসীতা মন্দির, রায়েরবাজার শেরেবাংলা রোড কালীমন্দির, পোস্তগোলা শ্মশান, লালবাগ শ্মশান, ঠাঁটারীবাজার, শাঁখারীবাজার, তাঁতীবাজার, ফরাশগঞ্জ, লক্ষ্মীবাজার, বাংলাবাজার, সূত্রাপুর, দয়াগঞ্জ, শ্যামবাজার, কোতোয়ালি, উত্তর মৈশুণ্ডী, দক্ষিণ মৈশুণ্ডী, নারিন্দা, যোগীনগর, নবাবপুর, রাজারবাগ, বাড্ডা, পান্নিটোলা, মতিঝিল, রমনা, গুলশান, মোহাম্মদপুর, মিরপুর, শ্যামপুরসহ বিভিন্ন স্থানে শ্যামাপূজা উদযাপিত হয়েছে।

মন্তব্য


অন্যান্য