রাজধানী

গ্যাস সংকট দীর্ঘায়িত হতে পারে

প্রকাশ : ০৬ নভেম্বর ২০১৮

গ্যাস সংকট দীর্ঘায়িত হতে পারে

সিএনজি স্টেশনে গ্যাসের ঘাটতি বেড়ে গেছে। ফলে গ্যাস নিতে আসা সিএনজি অটোরিকশার লম্বা লাইন -সমকাল

  সমকাল প্রতিবেদক

বাসা-বাড়ি থেকে শুরু করে শিল্প কারখানা, সিএনজি স্টেশনসহ বিদ্যুৎ উৎপাদনে গ্যাসের ঘাটতি বেড়ে গেছে। ঢাকা ও চট্টগ্রামে সঙ্কট তীব্র আকার নিয়েছে। তরল প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) সরবরাহ বন্ধ থাকায় সৃষ্ট এই গ্যাস সঙ্কট কমপক্ষে আরও ১০ দিন থাকবে। তবে বিরুপ আবহাওয়ায় ভোগান্তি আরও দীর্ঘায়িত হতে পারে আশঙ্কা সংশ্নিষ্টদের।

কক্সবাজারের মহেশখালীর সমুদ্রে অবস্থিত ভাসমান এলএনজি টার্মিনাল থেকে গ্যাস সরবরাহ বিঘ্নিত হওয়ায় এই সমস্যার উদ্ভব হয়েছে। সাগরের গভীরে স্থাপিত পাইপলাইনের একটি ইমার্জেন্সি ভাল্ক্বে ত্রুটি দেখা দিয়েছে। যা দিয়ে গ্যাস লিকেজ হচ্ছিল। গত শনিবার রাতে এই সমস্যা ধরা পড়ে। এরপর গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করা হয়। এটি মেরামতের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মো. ফয়েজউল্লাহ। তিনি বলেন, ত্রুটি সারাতে বঙ্গোপসাগরে নির্মিতব্য আরেকটি এলএনজি টার্মিনালে কর্মরত বিদেশি বিশেষজ্ঞদের সহযোগিতা নেওয়া হচ্ছে। প্রয়োজনের বিদেশি বিশেষজ্ঞদের সহযোগিতা নেওয়া হবে।

এলএনএনজি খাতের তত্বাবধানকারী রুপান্তরিত গ্যাস কোম্পানি আরপিজিসিএলের একজন কর্মকর্তা জানান, সাবসি পাইপলাইনের জরুরি শাটডাউন ভাল্বটি মেরামতে কাজ প্রাথমিক শুরু করেছে এলএনজির সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান এপিলেটর এনাজি। তবে সাগরে জোয়ার-ভাটা দেখে কাজ করতে হচ্ছে। ভাল্বের ত্রুটি মেরামতে আগামী ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত সময় লাগতে পারে।

জ্বালানি বিভাগের একটি সূত্র বলছে, ভাল্বটি পানির ৪০ মিটার নিচে। বঙ্গপোসাগরে নিম্নচাপও রয়েছে। বৈরি আবহাওয়ায় কাজ চালানো সম্ভব হয় না। এতে দুর্ভোগ আরও দীর্ঘায়িত হতে পারে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

সূত্র জানিয়েছে, সামিটের এলএনজি টার্মিনালে কর্মরত বিদেশি বিশেষজ্ঞরা বুধবার ঘটনাস্থলে আসবেন। তারা কাজ শুরু পর পানির নিচে ডুবরী নামলে জানা যাবে সমস্যার সমাধানে কতদিন সময় লাগবে। এছাড়া সিঙ্গাপুর থেকে একটি বিশেষজ্ঞদল আসার বিষয়ে কথা হচ্ছে।

বাংলাদেশ গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানির (জিটিসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলী মো. আল মামুন বলেন, ভাসমান এলএনজি টার্মিনাল থেকে প্রতিদিন ৩০ কোটি ঘনফুট গ্যাস পাচ্ছিল জাতীয় গ্রিড। ফলে অনেক বিদ্যুৎকেন্দ্রসহ বড় বড় কারখানা চালু করা হয়েছিল। এখন এলএনজি সরবরাহ বন্ধ থাকায় সমস্যা দেখা দিয়েছে।

ঢাকাসহ আশেপাশের জেলাগুলোতে গ্যাস সরবারহকারী তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন ও ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (টিজিটিডিসিএল) স্বাভাবিকের চেয়ে ৯ শতাংশ গ্যাস কম পাচ্ছে। বিদ্যুৎকেন্দ্রে গ্যাসের সরবরাহ কমে গেছে। কল-কারখানার চাহিদা পূরণে জোর দেওয়ায় গত তিনদিন ধরে বাসা-বাড়িতে ভোগান্তি বেড়েছে। চট্টগ্রাম অঞ্চলে গ্যাস সরবরাহের দায়িত্বে থাকা কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (কেজিডিসিএল) এক কর্মকর্তা জানান, এলএনজি বন্ধ হওয়ায় গত শনিবার রাত থেকে চট্টগ্রামে গ্যাস সরবরাহ এখন ৪০ কোটি ঘনফুট থেকে ২০ কোটি ঘনফুটে নেমে এসেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রাজধানীর খিলক্ষেত, যাত্রাবাড়ী, এলিফ্যান্ট রোড, ইস্কাটন, মগবাজার, হাজারীবাগ, খিলক্ষেতখান, গ্রিনরোড, নিকুঞ্জ, মোহাম্মপুর, মিরপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় দিনের বেলায় চুলায় গ্যাস থাকছে না।

তিতাসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোস্তফা কামাল (চলতি দায়িত্ব) বলেন, গত রোববার থেকে গ্যাস সরবরাহ কমে গেছে। তিনি বলেন, তাদের ২২০ কোটি ঘনফুট চাহিদার বিপরীতে প্রতিদিন ১৭০ কোটি ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করা হতো। গত তিন দিন ধরে তা আরও ১৫ কোটি ঘনফুট কমেছে। ফলে সঙ্কট বেড়েছে। অনেক এলাকাতেই দিনের বেলায় গ্যাস দেওয়া যাচ্ছে না। তিনি বলেন, এখন সার কারখানা বন্ধ রাখা সম্ভব না। ফলে অন্য খাতে সরবরাহ কমানো হয়েছে। বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলোতে চাহিদা অনুযায়ী গ্যাস দেওয়া যাচ্ছে না। গাজীপুর, সাভার, নারায়ণগঞ্জ, ময়মনসিংহ, টঙ্গিসহ ঢাকার অধিকাংশ শিল্পকারাখানা কম গ্যাস পাচ্ছে।

আমাদের চট্টগ্রাম ব্যুরো জানিয়েছে, চাপ না থাকায় গ্যাসভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলোতে বন্ধ হয়ে গেছে। দুই শতাধিক শিল্পকারখানা উৎপাদন থেমে গেছে। আবাসিক গ্রাহকরাও সঙ্কটে পড়েছেন। গত ৩ দিন ধরে নগরীর অধিকাংশ এলাকায় রান্নার চুলা জ্বলছে না।

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

কুকুর খেতে গিয়ে ধরা ২ চীনা


আরও খবর

রাজধানী
কুকুর খেতে গিয়ে ধরা ২ চীনা

প্রকাশ : ১২ নভেম্বর ২০১৮

প্রতীকী ছবি

  সমকাল প্রতিবেদক

দুই চীনার সামনে পড়েছিল একটি কুকুর। কুকুরটি দেখে খাওয়ার লোভ সামলাতে না পেরে শেষমেষ সেটি ধরে গলা কেটে ফেলেন ওই দুই চীনা! কিন্তু স্থানীয়রা এ ঘটনা দেখে ফেলেন। 

পরে তাদের কাছ এ ঘটনা জানতে পারেন কুকুরের মালিক অভিনেতা প্রাণ রায়। 

সোমবার দুপুরে রাজধানীর পিংক সিটি আবাসিক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পরে এ বিষয়ে খিলক্ষেত থানায় একটি অভিযোগ দেন প্রাণ রায়। পুলিশ পরে অভিযুক্ত দুই চীনা হো চিমিং ও লিয়ানকে থানায় ডেকে পাঠায়। তারা রাজধানীর একটি ভিডিও গেমস সফটওয়্যার কোম্পানিতে কাজ করেন।

খিলক্ষেত থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাজিরুল রহমান জানান, কুকুরটির মালিক অভিনেতা প্রাণ রায়। কুকুর কাটার খবর পেয়ে তিনি থানায় অভিযোগ করেছেন। 

পরের
খবর

ইভিএম থেকে পেছানোর সুযোগ নেই: সিইসি


আরও খবর

রাজধানী

কে. এম. নুরুল হুদা- ফাইল ছবি

  সমকাল প্রতিবেদক

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে. এম. নুরুল হুদা বলেছেন, একাদশ সংসদ নির্বাচনে সীমিত পরিসরে ইভিএমে ভোট নেওয়া হবে। এ থেকে পিছিয়ে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। এ প্রক্রিয়াকে সামনে এগিয়ে নিতে সবার সহযোগিতা চাই। 

সোমবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) প্রদর্শনীর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। প্রদর্শনীতে নগরের বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষের আশাব্যঞ্জক সাড়া মিলেছে। অনেকেই এদিন গিয়েছেন কীভাবে ইভিএমে ভোট দিতে হয় জানতে।

সিইসি বলেন, রাজনৈতিক নেতাদের প্রতি আহ্বান- আপনারা আসুন, আপনাদের মধ্যে যদি কোনো প্রযুক্তিসম্পন্ন ব্যক্তি থাকেন তাকে নিয়ে আসুন; পরীক্ষা করুন। আমাদের যদি কোনো ভুলভ্রান্তি থাকে তা শুধরে দিন। তবে ইভিএম থেকে পিছিয়ে যাওয়ার আর সুযোগ নেই।

তিনি বলেন, ইভিএম নিয়ে এখনই শুরু করতে হবে। ভুল হলে প্রশ্ন থাকবে, সেই প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে, আবার এগিয়ে যেতে হবে। আবার ভুল হবে, আবার সামনে যাব। প্রযুক্তি এক জায়গায় থেমে থাকে না, প্রতিনিয়ত পরিবর্তন হয়। সেই পরিবর্তনের ধারাবাহিকতায় ধীরে ধীরে ইভিএমকে মানুষের কাছে পৌঁছে দিয়ে ভোটের অধিকার দেওয়ার চেষ্টা করব।

সিইসি বলেন, ভোটাররা যদি খুশি থাকেন, আমরাও খুশি। ভোটাররা যদি নিশ্চিন্তে ভোট দিতে পারেন, আমরা নিশ্চিন্ত। ইভিএমের অনুকূলে আইন ও বিধি প্রণয়ন হয়েছে। ইভিএমে ভোট গ্রহণের ক্ষেত্রে সব ধরনের নিরাপত্তা ও স্বচ্ছতা বজায় রাখা হবে বলেও জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম বলেন, কোনো গোয়ালা তার দইকে খারাপ বলে না, একইভাবে (ইভিএম ব্যবহার) আমরাও খারাপ বলি না। আপনারা খেয়ে দেখেন, যদি খারাপ হয় তাহলে কেউ খাবেন না। তখন আমরা এমনিতেই ফেলে দেব।

আরেক নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম বলেন, নির্বাচন কমিশনে শপথ নিয়ে এসেছি সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন উপহার দেওয়ার জন্য। এখানে কারও কোনো সন্দেহের ক্ষেত্র আছে বলে মনে করি না। যদি আইনগুলো ঠিকমত প্রয়োগ করি এবং সবাই যদি আইন মেনে চলি তাহলে যে কোনো বিতর্কের ঊর্ধ্বে ওঠা সম্ভব।

মুক্ত আলোচনায় ইসির উদ্দেশে সাবেক নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এম সাখাওয়াত হোসেন বলেন, ইভিএম বিষয়ে আপনারা রাজনৈতিক দলগুলোকে আবার ডাকেন। প্রয়োজনে ধরে নিয়ে আসুন। তাদের দেখান। এই যন্ত্রে ভোট দিতে যাদের হাতের আঙুলের ছাপ মিলবে না, তাদের বিষয়টি ভোট গ্রহণের সময় বিবেচনা করতে হবে বলে মত দেন তিনি। 

এ বিষয়ে কমিশনার রফিকুল ইসলাম বলেন, ফিঙ্গার প্রিন্ট মেলাতে সময় লাগলে প্রয়োজনে ভোট গ্রহণ নির্ধারিত সময়ের পরও বাড়ানো হবে। কারণ ফলাফল পেতে সময় লাগবে মাত্র কয়েক মিনিট।

নির্বাচন কমিশনের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ইভিএম নিয়ে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনা করেন জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাইদুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে আরেক নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার উপস্থিত ছিলেন না। তিনি শুরু থেকেই ইভিএম ব্যবহারের বিষয়ে ভিন্নমত দিয়ে আসছেন।

এদিকে, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সোমবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ইভিএম প্রদর্শনীতে ব্যাপক সাড়া মিলেছে উৎসুক ভোটারদের।

মাগুরার মহম্মদপুরের চরপাথুরিয়া গ্রামের বাসিন্দা মান্নান জানান, তিনি থাকেন পুরান ঢাকার বাংলাবাজারে। ইভিএম প্রদর্শনীর কথা শুনে এসেছেন। ভোট দেওয়ার পর তিনি জানান, প্রক্রিয়াটা খারাপ না। জালিয়াতির কোনো সুযোগ দেখছেন না। এভাবে ভোট দিতেও খুব মজা।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

জঙ্গি মেঘলার স্বামীসহ নব্য জেএমবির ৮ সদস্য গ্রেফতার


আরও খবর

রাজধানী

  সমকাল প্রতিবেদক

নরসিংদীর মাধবদীর জঙ্গি আস্তানা থেকে আত্মসমর্পণকারী খাদিজা আক্তার মেঘলার স্বামী জঙ্গি রাকিবুল হাসানকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের সদস্যরা। তার সঙ্গে গ্রেফতার হয়েছে গত অক্টোবরে ওই আস্তানায় বিয়ের আসরের বরযাত্রী হিসেবে উপস্থিত থাকা আরও সাত জঙ্গি। এই রাকিবুলই সেখানে দুই জঙ্গির বিয়ের আয়োজন করেছিল। 

রোববার রাতে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর কাজলা এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের কর্মকর্তারা বলেছেন, ঢাকায় হামলাস্থল নির্ধারণের জন্য রাকিবুলের নেতৃত্বে জঙ্গিরা কাজলা এলাকায় বৈঠক করার সময় ওই অভিযান চালানো হয়।

গ্রেফতার অপর সাত জঙ্গি হলো- আলামিন, হাফিজ ভূঁইয়া, সৈয়দ জাকারিয়া, জসিম উদ্দিন, মিজানুর রহমান ওরফে সুমন, শাহ আলম ওরফে সাইফুল্লাহ ওরফে সাকিব ওরফে আবদুস সালাম ও মিলন হোসেন ওরফে তপন।

গত ১৬ অক্টোবর নরসিংদীর জঙ্গি আস্তানায় 'গর্ডিয়ান নট' নামে অভিযান চালায় পুলিশ। এতে নিহত হয় নারী জঙ্গি আকলিমা আক্তার মনি ও তার স্বামী আবু আবদুল্লাহ আল বাঙালি ওরফে মোস্তফা। অভিযানের মুখে আত্মসমর্পণ করে খাদিজা আক্তার মেঘলা ও ইশরাত জাহান মৌ নামে দুই নারী জঙ্গি। গ্রেফতার রাকিবুল মেঘলার স্বামী।

কাউন্টার টেররিজম সূত্র জানায়, রাকিবুল গত ৯ সেপ্টেম্বর মাধবদীর জঙ্গি আস্তানায় মেঘলাকে বিয়ে করে। এরপর গত অক্টোবরে বিদেশে অবস্থানরত এক জঙ্গির সঙ্গে ইশরাতের বিয়ের আয়োজন করে রাকিবুল ও মেঘলা। ওই বিয়ের অনুষ্ঠানেই অভিযান চালায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।

কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের (সিটি) উপ-কমিশনার মুহিবুল ইসলাম খান সমকালকে বলেন, নরসিংদীতে অভিযানের পর থেকেই মেঘলার স্বামী রাকিবুলকে তারা খুঁজছিলেন। এই রাকিবুল নব্য জেএমবির নারায়ণগঞ্জ ও নরসিংদীসহ আশপাশের এলাকায় সমন্বয়কের দায়িত্ব পালন করে আসছিল।

তিনি আরও বলেন, কাজলা থেকে গ্রেফতার অপর সাত জঙ্গির বেশিরভাগই নরসিংদীর জঙ্গি আস্তানায় বিয়ের আসরে উপস্থিত ছিল। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে বিস্তারিত তথ্য নেওয়া হবে।

সংশ্লিষ্ট খবর