বলিউড

নানাকে আটকাতে পারলেন না তনুশ্রী

প্রকাশ : ১৪ জুন ২০১৯

নানাকে আটকাতে পারলেন না তনুশ্রী

নানা পাটেকর ও তনুশ্রী দত্ত

  বিনোদন ডেস্ক

#মিটু ঝরে কেপে উঠেছিলো বলিউড। বড় বড় তারকাশিল্পীদের পিছনেও অভিযোগ দায়ের হয়েছিলো যৌণ হেনস্তার। জনপ্রিয় অভিনেতা ও পরিচালক নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্তর যৌন হেনস্তার অভিযোগ দিয়েই বলিউডে এই হ্যাশট্যাগ মিটু আন্দোলনের সূচনা হয়। 

তবে তনুশ্রীর করা সব অভিযোগ থেকে মুক্তি পেয়েছেন নানা পাটেকর। অভিযোগে তদন্তের পর মুম্বাই পুলিশ জানিয়ে দিলো, ওই ঘটনায় নানার বিরুদ্ধে কোনও তথ্যপ্রমাণ মেলেনি।

পুলিশেল এমন বলার পর তনুশ্রী দত্তের আইনজীবী নিতিন সতপুত ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে জানান, পুলিশ তাদের এখনও কিছু লিখিত জানায়নি। মামলা খারিজ করা হলে তারা আবারও আদালতের দ্বারস্থ হবেন।

এর আগে তনুশ্রীর অভিযোগ করেন,  ২০০৮ সালে ‘হর্ন ওকে প্লিজ’ ছবির একটি গানের শ্যুটিংয়ের সময় নানা পাটেকর তার গায়ে আপত্তিকরভাবে স্পর্শ করার চেষ্টা করেন। এরপর তিনি নানা পাটেকরের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ দৃশ্যে অভিনয় করতে অস্বীকার করেন এবং শুটিং সেট ছেড়ে বেরিয়ে যান। ঘটনার পর বিশেষ রাজনৈতিক দলের গুণ্ডাদের দিয়ে তার গাড়িতে নানা পাটেকর ভাঙচুর করান। 

গত ৭ মাস আগে নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে তনুশ্রীর দায়ের করা অভিযোগের ভিত্তিতেই নানার বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করে মুম্বাইয়ের ওশিওয়ারা থানা। মুম্বাই ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির কাছে তনুশ্রীর দাবি ছিল, নানাকে বয়কট করা হোক।

এবার পুলিশ জানিয়ে দিলো তনুশ্রীর অভিযোগ মিথ্যে। ফলে যৌন হেনস্থা-কাণ্ডে কিছুটা স্বস্তিতে অভিনেতা নানা পাটেকর।  পুলিশের ডেপুটি কমিশনার পরমজিৎ সিংহ দাহিয়া বুধবার জানান, অন্ধেরির মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে ‘বি সামারি’ রিপোর্ট পেশ করেছে ওশিওয়াড়া পুলিশ। চার্জশিট তৈরির জন্য অভিযুক্তের বিরুদ্ধে যখন যথেষ্ট প্রমাণ পাওয়া যায় না, তখন ‘বি সামারি’ রিপোর্ট জমা দেওয়া হয়।

তবে নানা পাটেকর নির্দোষ প্রমাণিত হওয়ার খবর শুনে তনুশ্রী বলেন, দুর্নীতিগ্রস্ত আমাদের পুলিশের বাহিনী। তারা কিছু ভুয়া লোককে সাক্ষী সাজিয়ে বয়ান নিয়েছে।  আমি এ ব্যাপারে স্তম্ভিত নই, চমকেও যাইনি। যদি ধর্ষণে অভিযুক্ত অলোক নাথ ক্লিন চিট পেয়ে অভিনয়ে ফিরতে পারেন, তা হলে নানা রেহাই পাবেন না কেন? ফের নিরীহ মেয়েদের হেনস্তা করবেন

মন্তব্য


অন্যান্য