বলিউড

আমি আমার মতো চলছি, থামছি না: মনীষা

প্রকাশ : ০৯ নভেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ১১ নভেম্বর ২০১৮

আমি আমার মতো চলছি, থামছি না: মনীষা

মনীষা কৈরালা

  অনিন্দ্য মামুন

বলিউডের কিংবদন্তি অভিনেত্রী মনীষা কৈরালা। বলিউডের অন্যসব তারকাদের চেয়ে অনেক দিক দিয়েই আলাদা তিনি। নেপালের শীর্ষস্থানীয় এক রাজনৈতিক পরিবারে জন্ম। মিষ্টি হাসির অভিনয়ের জন্য নব্বই দশকের হাজার হাজার তরুণের স্বপ্নে নায়িকা ছিলেন তিনি। একসময় আক্রান্ত হন ক্যান্সারে। দীর্ঘ দিন ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করে বিজয়ী হয়ে ফিরেছেন আপন ঘরে। শুরু করেন জীবনের নতুন ইনিংস। পর্দার বাইরেও অন্য এক মনীষা কৈরালাকে জানেন সবাই। একজন সামাজিক কর্মী হিসেবে বিশ্ব দরবারে পরিচিত তিনি। পরিচিত লেখক হিসেবেও। নিজের জীবনের সংগ্রাম নিয়ে লিখেছেন প্রথম গ্রন্থ ‘দ্য বুক অব আনটোল্ড স্টোরিজ’।   ‌বিশ্বের অন্যতম সাহিত্য উৎসব ‘ঢাকা আন্তর্জাতিক লিট ফেস্টে’র অতিথি হয়ে এ তারকা এখন ঢাকায়। শুনালেন তার জীবনের নানা গল্প। 

সমকাল: বাংলাদেশে এসে কেমন লাগছে?

মনীষা কৈরালা: বাংলাদেশের এতো বড় একটা আয়োজনে আমাকে অতিথি করেছেন। এই জন্য সবাইকে ধন্যবাদ। সাহিত্যের এতো বড় আসরে উপস্থিত হওয়া যে কোন লেখকের জন্যই আনন্দের। এখানে এসে আমার বই নিয়ে কথা বলছি। এটা আমার জন্য অন্য রকম ভালো লাগার। 

মনীষা কৈরালা

সমকাল: ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করে জিতেছেন। এর সবচেয়ে কঠিন পর্ব কোনটা ছিল?

মনীষা কৈরালা: আমার পরিবার, বিশেষ করে মা প্রতি পদক্ষেপে আমাকে সাহায্য করেছেন। ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় যন্ত্রণায় কুঁকড়ে যেতাম, কান্নাকাটি করতাম। নিউ ইয়র্কে যখন চিকিৎসার জন্য ছিলাম, নিজের চোখে দেখেছি আমরা মানুষ কতটা একা!  হতাশ হয়ে বসে থাকত। মনে মনে ঠিক করেছিলাম, নিজেকে এ ভাবে শেষ করব না। যদি মরতেই হয়, সাহসের সঙ্গে লড়াই করব। আমার চুল যখন পুরো উঠে গিয়েছিল, তখন আমি খুব ভেঙে পড়েছিলাম। মা বোঝাতেন যে, আমি নিজেই পারব নিজের সঙ্গে লড়াই করতে। হাল ছাড়িনি। তাই হয়তো এই লড়াইয়ে জিততে পারলাম। 

সমকাল: ‘দ্য বুক অব আনটোল্ড স্টোরিজ’ তো সেই জয়েরই একটা দলিল? 

মনীষা কৈরালা: সেটা বলতে পারেন। তবে এটাতে আমি অনেক কিছু বলতে চেয়েছি। মানুষকে বলতে চেয়েছি হাল ছাড়া আমাদের কাজ নয়। আমাদের সংগ্রাম করতে হবে। চূড়ান্ত বিজয়ের জন্য। প্রতিটি কাজেই আমাদের লড়াই করে জিততে হয়। আমৃত্যু মানুষকে লড়াই করতেই হবে। আর এ জন্য আমাদের প্রাণবন্ত থাকাও বাঞ্চনীয়।

সমকাল:আপনার এই জয়ী হওয়াটা অনেকেই আপনার পূনজন্ম ভাবছেন?

মনীষা কৈরালা: পূনজন্ম শব্দটা আমার কাছে খুব একটা গুরুত্বের নয়। এটা নিয়ে ভাবিও না আমি। তবে কাছে সাহসী থাকা, প্রাণবন্ত থাকাটা জরুরী। জীবনের  দুই পিঠই আমার দেখা। ভালো খারাপ দুটির সঙ্গে থেকেছি বলতে পারেন। জীবনের কঠিন সময়টাকে আত্মবিশ্বাসের ঘাটতি রাখিনি। আমি আমার মতো চলছি। থামছি না। থামতে চাইও না। 

সমকাল:বলিউডে এখনও নারী শিল্পীরা তেমনভাবে সামনে আসতে পারছে না। নায়ক নির্ভরই থাকছে। বিষয়টি আপনি কীভাবে দেখছেন? 

মনীষা কৈরালা: আপনি নারী-পুরুষের যে বিষয়টি জানতে চাইলেন এই বিভেধটা শুধু বলিউড নয়, সব ক্ষেত্রেই কিন্তু রয়েছে?  খেয়াল করবেন, বাণিজ্যিক ও ভিন্নধারার ছবির মধ্যে আমরা আমাদের সময়ে অনেকটা সমতা রাখতে পেরেছিলাম। এক সময়ে সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিকও পেয়েছি আমরা। এখনও বলিউডে নায়কদের চেয়ে অনেক নায়িকারাই পারিশ্রমিক বেশি নিচ্ছেন। যারা ভালো করছেন তারা প্রাপ্যটা অবশ্যই পাবেন। এ ক্ষেত্রে নারী-পুরুষ বিভেদ-দেখিনা আমি। 

সমকাল: আপনার কাজগুলোকো কীভাবে মূল্যায়ণ ও নির্বাচন করে থাকেন? 

মনীষা কৈরালা: আমি যা করি ভালোবেসে করি। আমার প্রতিটি কাজের মাঝেই আমার অন্যরকম ভালোবাসা। আর চলচ্চিত্রের কাজ নির্বাচনের ক্ষেত্রে আমি গল্পটা আগে দেখি। এরপর আমার চরিত্র। পথ চলার রাস্তাটাও পরিমাপ করার চেষ্টা করি। 


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

ব্যাট হাতে চড়াও ভাইজান


আরও খবর

বলিউড
ব্যাট হাতে চড়াও ভাইজান

প্রকাশ : ১৫ জানুয়ারি ২০১৯

সালমান খান- ফাইল ছবি

  অনলাইন ডেস্ক

বলিউডে সালমান খানকে বলা হয় 'হিট মেশিন'। সেই সালমান খান এবার ব্যাট হাতে ক্রিকেট মাঠেও চমক দেখালেন। বাঁ হাতে ব্যাট উঁচিয়ে অফ সাইড ও লেগ সাইড দু’দিক দিয়েই মাঠের বাইরে বল পাঠাচ্ছেন তিনি। 'ভাইজান' বলে কথা। তার ব্যাট যে ছক্কা হাঁকাবে, এটাই স্বাভাবিক।

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, এখন প্রযোজক আলি আব্বাস জাফরের সিনেমা 'ভারত' নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। সম্প্রতি 'ভারত'-এর শুটিংয়ের ইউনিটির লোকজনের সঙ্গে ক্রিকেট খেলতে দেখা যায় বলিউডের এই সুপারস্টারকে। সেই খেলার ভিডিও সোমবার ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেন সালমান খান নিজেই।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, প্রথম ডেলিভারিতেই বলকে বাউন্ডারির বাইরে পাঠালেন তিনি। তার পরের বলগুলিও গেল মাঠের বাইরে। তবে ভিডিয়োটি কিছুটা হলেও একপেশে। সেখানে শুধুই সালমানকে ব্যাট করতে দেখা যাচ্ছে। আসলে পুরো ঘটনায় তিনিই হিরো।

ছবি: ইনস্টাগ্রাম 

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে সালমান খান অভিনীত 'ভারত' ছবিটি এ বছরের ৫ জুন মুক্তি পাবে।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

প্রেমিকের শিক্ষক সুস্মিতা


আরও খবর

বলিউড
প্রেমিকের শিক্ষক সুস্মিতা

প্রকাশ : ১৫ জানুয়ারি ২০১৯

প্রেমিকের সঙ্গে সুস্মিতা সেন- ইনস্টাগ্রাম

  অনলাইন ডেস্ক

১৯৯৬ সালে 'দস্তক' ছবির মাধ্যমে বলিউডে পা রাখেন বাঙালি বংশোদ্ভূত বলিউড অভিনেত্রী সুস্মিতা সেন। ১৯৯৪ সালে ‘মিস ইউনিভার্স’ জেতা; এরপর একে একে সুপারহিট ছবিতে অভিনয় করে বলিউডে নিজেকে এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যান তিনি। 

সম্প্রতি ২৭ বছর বয়সের র‌্যাম্প মডেল রোহমান শলের সঙ্গে ৪৩ বছরের সুস্মিতা সেনের প্রেম-বিয়ে নিয়ে বি-টাউনে এখন চর্চিত বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। এবার জানা গেলে, কাশ্মীরি প্রেমিককে বাংলা শেখাচ্ছেন এই বলিউড তারকা।

এনডিটিভি জানায়, কাশ্মিরী প্রেমিক  রোহমান শোল আর প্রেমিকা বঙ্গতনয়া সুস্মিতা সেন। সোমবার তার ইনস্টাগ্রামে একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন । ভিডিওতে দেখা গেছে, প্রেমিককে তিনি শেখাচ্ছেন, 'আমি তোমাকে ভালোবাসি।' 

কিন্তু রোহমান শল শুদ্ধ উচ্চারণ করতে না পেরে বললেন, 'আমি তুমাকে বালোবাসি।' এ সময় সুস্মিতা সেন বললেন, 'হচ্ছে না। খুব খারাপ।' এরপর বাধ্য ছাত্রের মতো দ্রুত শুদ্ধ করে রোহমান শল বললেন, ‘আমি তোমাকে ভালোবাসি।’ 

সুস্মিতার সঙ্গে খুনসুটি প্রেমিকের 

এদিকে প্রেমিকার কাছে ভালোবাসার পাঠ শেষে রোহমানও সুস্মিতাকে কাশ্মীরি ভাষায় ভালোবাসার পাঠ শিখিয়েছেন।

মাত্র ২৫ বছর বয়সে বিয়ে না করে ২০০০ সালে কন্যাসন্তান রেনিকে দত্তক নিয়ে শোরগোল ফেলে দেন।পরে ২০১০ সালে তিনি আলিশাকে দত্তক নেন। শুধু রোহমান শল নয়, এর আগে একাধিক প্রেমিকের সঙ্গে সুস্মিতার নাম উচ্চারিত হয়েছে । তার জীবনে ঋতিক ভাসিন, বিক্রম ভাট, রণদীপ হুদা, ওয়াসিম আকরাম, মুদাসসর আজিজ, ইমতিয়াজ খত্রী, মানব মেনন, সঞ্জয় নারঙ্গ, সাবির ভাটিয়াদের নাম জুড়েছিল। কিন্তু সেসব প্রেম বেশীদিন টেকেনি। 

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

পুরনো প্রেমিকেই ভরসা


আরও খবর

বলিউড
পুরনো প্রেমিকেই ভরসা

প্রকাশ : ১৪ জানুয়ারি ২০১৯

সালমান খান ও ক্যাটরিনা কাইফ

  অনলাইন ডেস্ক

বলিউড অভিনেত্রী ক্যাটরিনা কাইফের ফিল্মি ক্যারিয়ার মোটেও ভালো যাচ্ছে না। ক্যাটরিনার সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত দু দু'টি ছবি  'জিরো' ও 'থাগস অব হিন্দোস্তান' বক্স অফিসে খুব একটা সাড়া ফেলতে পারে নি। তবে এ থেকে বেরিয়ে আসার জন্য পুরনো প্রেমিক বলিউড সুপারস্টার সালমান খান অভয় দিয়েছেন তাকে।

ডেকান ক্রনিকেল জানায়, কোরিওগ্রাফার ও পরিচালক রেমো ডি সুজা পরিচালিত নাচ নিয়ে সিনেমা এবিসিডি- ৩ এ বরুণ ধাওয়ানের বিপরীতে কাজ করার কথা ছিল ক্যাটরিনা কাইফের। কিন্তু সালমান খান অভিনীত 'ভারত' ছবির কাজ চলছে জোর কদমে। সেখানে কাজ করছেন ক্যাটরিনা কাইফ।

এ কারণে তিনি সেই ছবি থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন। তখন অনেকেই বলাবলি করছিলেন, তবে কি ছবি 'ফ্লপের' ভয়েই ক্যাটরিনার এমন সিদ্ধান্ত।

তবে 'ভারত' থেকে যখন প্রিয়াঙ্কা বেরিয়ে যায়, তখন সালমান খান ক্যাটকে তার বিপরীতে অভিনয়ের জন্য প্রস্তাব দেন এবং অভিনয় করার জন্য রাজিও হয়ে যান। বলিউডে এও কথা শোনা যায়, ক্যাটরিনার যেকোন ছবিতে অভিনয় করার আগে 'ভাইজান' খ্যাত সালমান খানের পরামর্শ নেন তিনি।

এর আগে সালমানের এক ঘনিষ্ট বন্ধুর বরাতে জানা যায়, 'জিরো' ও ' থাগস অব হিন্দোস্তান' ছবিতে 'ভাইজানের' পরামর্শে কাজ করেন।

সালমান ও ক্যাটরিনা কাইফ 

ক্যাটরিনার এ থেকে উত্তরণের সমাধান প্রসঙ্গে সালমান বলেন, 'আমি চাই ক্যাটরিনা স্বাধীনভাবে কাজ করুক এবং সে যেটা সিদ্ধান্ত নিবে সেটাই যেনো ফলপ্রসু হয়।' 

এখন দেখার বিষয় 'ভারত' ছবিতে সালমানের হাত ধরে বক্স অফিসে নিজেকে কতদূর নিয়ে যান ক্যাটরিনা কাইফ।

সংশ্লিষ্ট খবর