বরিশাল

চাকরির প্রলোভনে অর্থ আত্মসাৎ

পটুয়াখালীতে দুই পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে পরোয়ানা

প্রকাশ : ১৫ জুলাই ২০১৯ | আপডেট : ১৫ জুলাই ২০১৯

পটুয়াখালীতে দুই পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে পরোয়ানা

প্রতীকী ছবি

  পটুয়াখালী প্রতিনিধি

পুলিশে চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে অর্থ আত্মসাত মামলায় দুই পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন পটুয়াখালীর আদালত। সোমবার পটুয়াখালীর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমিনুল ইসলাম এ আদেশ দেন।

পরোয়ানাভূক্ত দুই পুলিশ সদস্য হলো- রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানায় কর্মরত এস.আই মো. শামীম আকন এবং বরগুনা থানায় কর্মরত কনস্টেবল আল-আমিন আকন। অভিযুক্তরা আপন ভাই। তারা সদর উপজেলার জামুরা তেলিখালী গ্রামের প্রয়াত ইউসুব আকনের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, পটুয়াখালী সদর উপজেলার চৌদ্দভুরিয়া গ্রামের মো. মিলন ডাকুয়ার দুই ছেলেকে পুলিশে চাকরি দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন সময়ে নগদ ও ব্যাংকের মাধ্যমে ১৩ লাখ ৬৯ হাজার টাকা নেয় পুলিশের এস.আই মো. শামীম আকন ও তার ছোট ভাই কনেস্টবল আল-আমিন আকন। এরমধ্যে ডাচ বাংলা ব্যাংকের মাধ্যমে ৬ লাখ ১৪ হাজার টাকা, ব্র্যাক ব্যাংকের মাধ্যমে ৩ লাখ ৫৫ হাজার টাকা এবং নগদ ৪ লাখ টাকা দেওয়া হয়। তবে আসামিরা কোন চাকরি দিতে পারেনি। পরবর্তীতে টাকা ফেরত চাইলে নানা তালবাহানা শুরু করেন এবং এক পর্যায়ে টাকা দিবে না বলে জানিয়ে দেয় তারা। এমনকি এ টাকা নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করলে মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়া হুমকি দেয় সহোদর ওই দুই পুলিশ সদস্য।

এ নিয়ে গত বছরের ২৩ ডিসেম্বর অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে পটুয়াখালীর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট প্রথম আমলী আদালতে মামলা করেন মো. মিলন ডাকুয়া। পরে পটুয়াখালী পিবিআই জেলা প্রধানকে তদন্তের আদেশ দেন আদালত। চলতি মাসের ০৬ তারিখ তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেন পিবিআই পরিদর্শক মতিনুর রহমান। তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় সোমবার এ আদেশ দেন আদালত।

মন্তব্য


অন্যান্য