বরিশাল

সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা

পটুয়াখালীতে প্রশ্ন ফাঁসে ১২ জনের কারাদণ্ড, আটক ৩৩

প্রকাশ : ৩১ মে ২০১৯ | আপডেট : ৩১ মে ২০১৯

পটুয়াখালীতে প্রশ্ন ফাঁসে ১২ জনের কারাদণ্ড, আটক ৩৩

প্রশ্নফাঁসের অভিযোগে পুলিশের হাতে আটকেরা- সমকাল

  পটুয়াখালী প্রতিনিধি

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগে দ্বিতীয় ধাপের লিখিত পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস ও অসদুপায় অবলম্বনের অভিযোগে পটুয়াখালীতে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ ১২ নারীসহ ৪৬ জনকে আটক করেছে। তাদের মধ্যে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের দুই কর্মচারী, দুই নারীসহ ১২ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ ছাড়া এক পরীক্ষার্থীকে জরিমানা করা হয়েছে।

শুক্রবার দুপুর ১২টায় দরবার হলে জেলা প্রশাসন এবং সাড়ে ১২টায় পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে পৃথক সংবাদ ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানানো হয়।

জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের দরবার হলে সংবাদ ব্রিফিংয়ে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. নুরুল হাফিজ জানান, বিভিন্ন পরীক্ষা কেন্দ্র ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে পরীক্ষা শুরু হওয়ার আগে এবং পরে ১৩ জনকে আটক করা হয়। তাদের মধ্যে দীপু সিকদার ও সাইফুল ইসলাম নামে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের দু'জন চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী রয়েছেন। আটকদের মধ্যে ১২ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলো- রবিউল ইসলাম, আবদুল কুদ্দুস, গোলাম সরোয়ার, মিজানুর রহমান, ফারুক হোসেন, সিদ্দিকুর রহমান, সাবিনা আক্তার, লিজা বেগম, দীপু সিকদার, সাইফুল ইসলাম, বাবুল হোসেন ও শহীদুল ইসলাম। এছাড়া অসদুপায় অবলম্বনের অভিযোগে রুবিনা আক্তার নামে একজনকে এক হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অন্যদিকে দুপুর সাড়ে ১২টায় নিজ কার্যালয়ে সংবাদ ব্রিফিয়ে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মঈনুল হাসান জানান, শহরের কালিকাপুর ছোট চৌরাস্তা, সরকারি কলেজ, আবদুর করিম মৃধা কলেজ, গার্লস স্কুল, পিটিআই, জুবিলী স্কুুল, চরপাড়া মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে ৯ নারীসহ ৩৩ জনকে আটক করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে ৪০টি মোবাইল ফোনসেটসহ প্রশ্ন ও উত্তরপত্র উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে পাবলিক পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হবে।

মন্তব্য


অন্যান্য