বরিশাল

বরিশালে ঘাতক বাবার স্বীকারোক্তি

প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে শিশুসন্তান হত্যা

প্রকাশ : ০৮ নভেম্বর ২০১৮ | প্রিন্ট সংস্করণ

প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে শিশুসন্তান হত্যা

  বরিশাল ব্যুরো

মিষ্টি চেহারার সাবিহা আক্তার অথৈ (১১)। দেখলে যে কারও আদর করতে ইচ্ছে করে। বাবা-মায়ের একমাত্র সন্তান সে। অথচ প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে ফুটফুটে মেয়েটিকে গলাটিপে হত্যা করেছে জন্মদাতা বাবা। হত্যাকাণ্ডের ১২ ঘণ্টা পর পুলিশ ঘাতক গোলাম মোস্তফাকে গ্রেফতার করেছে। জিজ্ঞাসাবাদে মেয়েকে হত্যার কথা স্বীকারও করেছে সে।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বাড়ির অদূরে সাপানিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সংলগ্ন লেবু বাগান থেকে অথৈর লাশ উদ্ধার করা হয়। সে ওই বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী ছিল। তাকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে- এমন কল্পকাহিনী সাজিয়ে প্রতিপক্ষ স্থানীয় রাব্বী নামক একজনকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছিল গোলাম মোস্তফা। তার কথাবার্তায় সন্দেহ হলে ওইদিন রাতে গোলাম মোস্তফাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে পুলিশের কাছে সে স্বীকার করে, তার কাছে আট লাখ টাকা পাবেন প্রতিবেশী রাব্বী। ওই টাকা না দেওয়ার উদ্দেশ্যেই মেয়েকে হত্যা করে দায় চাপাতে চেয়েছিল রাব্বীর ওপর।

গতকাল বুধবার নিজ দপ্তরে সংবাদ সম্মেলন করে এ ঘটনার বর্ণনা দেন পুলিশ কমিশনার মোশারফ হোসেন। তিনি বলেন, মানুষের নৈতিকতা কোন পর্যায়ে গিয়ে পৌঁছেছে। তিনি বলেন, শিশু অথৈকে যে তার বাবাই হত্যা করেছে, এ বিষয়টি পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে। তবে তদন্তের স্বার্থে এর বেশি কিছু এখনই বলা যাবে না।

স্থানীয় বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, উপবৃত্তির টাকা তোলার কথা বলে মঙ্গলবার সকালে মেয়ে অথৈকে বিদ্যালয়ের পৌঁছে দিতে বাসা থেকে বের হন গোলাম মোস্তফা। তিনি ভাড়ায়চালিত মোটরসাইকেলে মেয়েকে নিয়ে প্রথমে সদর রোড, পরে সেখান থেকে যান কর্মস্থল নথুল্লাবাদে সিটি করপোরেশনের পানির পাম্পে। সেখানে গলা টিপে হত্যার পর মেয়ের অসুস্থতার কথা বলে তাকে ইজিবাইকে তুলে বাড়ির দিকে রওনা হন। বিদ্যালয় সংলগ্ন লেবু বাগানে লাশ ফেলে রেখে আবার কর্মস্থলে ফেরেন তিনি। পরে স্ত্রীকে ফোন দিয়ে জানতে চান মেয়ে অথৈ বিদ্যালয় থেকে ফিরেছে কি-না। ফেরেনি জানতে পেরে মেয়েকে খুঁজতে স্ত্রীকে বিদ্যালয়ে যেতে বলেন। বিদ্যালয়ে খুঁজতে গিয়ে সংলগ্ন লেবু বাগানের মধ্যে অথৈর মৃতদেহ দেখতে পান তার মা।

স্থানীয়রা জানান, অথৈর মৃতদেহ উদ্ধারের পর গোলাম মোস্তফা ও তার স্ত্রী বলতে থাকেন- বিদ্যালয়ে উপবৃত্তির টাকা আনতে গিয়ে মেয়ে ধর্ষণের পর খুন হয়েছে। তবে ভাড়ায়চালিত যে মোটরসাইকেলে করে গোলাম মোস্তফা মেয়েকে নিয়ে গেছেন, সেই চালক জানান, তিনি সকালে বাবা-মেয়েকে সদর রোডে নামিয়ে দিয়েছিলেন। এর পরই সবার সন্দেহের তীর যায় বাবা গোলাম মোস্তফার দিকে। পরে তাকে গ্রেফতারের পর ঘটনার আসল রহস্য উদ্ঘাটিত হয়।


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

বরিশালে 'অপহৃত' দুই স্কুলছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার


আরও খবর

বরিশাল

   বরিশাল ব্যুরো

বরিশাল থেকে নিখোঁজ হওয়ার চার দিন পর দুই স্কুলছাত্রীকে শনিবার গভীর রাতে ঢাকার খিলগাঁও থানার মেরাদিয়ার একটি বাসা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় অপহরণের অভিযোগে ওই দুই স্কুলছাত্রীর কথিত প্রেমিক মিরাজ শেখ (৪২) ও রিপন হালদারকে (৩০) গ্রেফতার করা হয়। তারা দু'জনই বিবাহিত। তাদের বাড়ি পিরোজপুরে ইন্দুরকানী উপজেলার উমিতপুর গ্রামে।

বরিশাল মহানগর পুলিশের বিমানবন্দর থানার ওসি আবদুর রহমান মুকুল জানান, নিখোঁজ এক ছাত্রীর মায়ের করা সাধারণ ডায়েরির (জিডি) পর পুলিশ তাদের উদ্ধার অভিযানে নামে। শনিবার রাতে ঢাকার খিলগাঁও থানার মেরাদিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয় এলাকা থেকে দুই ছাত্রীকে উদ্ধার এবং তাদের কথিত প্রেমিকদের গ্রেফতার করা হয়। ওই দুই ছাত্রীকে কৌশলে অপহরণ করার পর মেরাদিয়া এলাকায় ভাড়া বাসায় উঠেছিল দুই বন্ধু।

রোববার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে মহানগর পুলিশ কমিশনার মোশারফ হোসেন জানান, দুই কিশোরীকে মিথ্যা প্রভোলন দেখিয়ে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ওই দুই যুবক। বুধবার দুই ছাত্রী স্কুলে যাওয়ার কথা বলে কথিত প্রেমিকদের সঙ্গে পালিয়ে গিয়েছিল। গ্রেফতার দু'জনের বিরুদ্ধে তাদের অপহরণ ও ধর্ষণ মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

গ্রেফতার রিপন হালদার জানায়, প্রথমে তার বন্ধু মিরাজের সঙ্গে এক ছাত্রীর মোবাইলে পরিচয় ও প্রেমের সম্পর্ক হয়। পরবর্তী সময়ে ওই ছাত্রী তার অপর বান্ধবীকে রিপনের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিলে তার সঙ্গেও প্রেম করে রিপন।

বরিশাল নগরীর চহঠা এলাকার ষষ্ঠ শ্রেণির দুই ছাত্রী স্কুলে যাওয়ার পর রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হওয়া নিয়ে শনিবার সমকালে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

গৌরনদীতে বিএনপির ৫ শতাধিক নেতাকর্মীর আ'লীগে যোগদান


আরও খবর

বরিশাল

পৌর মেয়র ও উপজেলা আ'লীগের সভাপতি হারিছুর রহমানের হাতে ফুল দিয়ে শুক্রবার রাতে আ'লীগে যোগদেন বিএনপির ৫ শতাধিক নেতাকর্মী- সমকাল

  বরিশাল ব্যুরো

বরিশালের গৌরনদী উপজেলায় বিএনপির ৫ শতাধিক নেতাকর্মী আওয়ামীলীগে যোগদান করেছেন। 

শুক্রবার রাতে তারা গৌরনদী বাসষ্টান্ডে আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে এসে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এইচএম জয়নাল আবেদীন ও সাধারন সম্পাদক পৌর মেয়র হারিছুর রহমানের হাতে ফুল দিয়ে আওয়ামীলীগে যোগদেন। 

যোগদানকারীদের মধ্যে গৌরনদী পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পদাক আব্দুস সালামের নেতৃত্বে তিন শতাধিক নেতাকর্মী এবং ২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর গাজী তৌফিক ইকবার সজল ও সাবেক কাউন্সিলর আব্দুল হাকিম খানের নেতৃত্বে দুইশতাধিক নেতাকর্মী রয়েছেন। 

যোগদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নলচিড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গোলাম হাফিজ মৃধা, উপজেলা আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক কামরুল ইসলাম দিলীপ, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জোবায়ের ইসলাম সান্টু ভুইয়া প্রমুখ।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

বরিশালে ৪ দিন ধরে নিখোঁজ ২ স্কুলছাত্রী


আরও খবর

বরিশাল

  বরিশাল ব্যুরো

বরিশাল নগরীর ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের চহঠা গ্রাম থেকে ষষ্ঠ শ্রেণির দুই কিশোরী রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়েছে। গত বুধবার সকালে বাড়ি থেকে স্কুলে রওনা হওয়ার পর তাদের আর খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। 

দুই কিশোরীকে অপহরণ করা হয়েছে বলে ধারণা করছেন তাদের অভিভাবকরা। নিখোঁজ হওয়ার পর অজ্ঞাত স্থান থেকে ফোন করে দুই কিশোরীর কান্না অভিভাবকদের শোনানোর কারণে তাদের অপহৃত হওয়ার ধারণা আরও দৃঢ় হয়েছে। 

এ ঘটনায় বিমানবন্দর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন নিখোঁজ একজনের মা। নিখোঁজ দুই কিশোরীর বাড়ি চহঠা গ্রামে। দুই কিশোরী কাশীপুর গার্লস হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী। চহঠা গ্রামে তাদের পাশাপাশি বাড়ি। উভয়ের বাবা দিনমজুরের কাজ করেন।

দুই কিশোরী বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে স্কুলের উদ্দেশে বাড়ি থেকে বের হয়। বিকেল ৩টার মধ্যে বাড়িতে না ফেরায় সম্ভাব্য সকল স্থানে খোঁজাখুঁজি করেন অভিভাবকরা। স্কুলে খুঁজতে গেলে সেখানকার শিক্ষকরা জানান, দুই ছাত্রী বুধবার স্কুলে আসেনি।

দুই ছাত্রী নিখোঁজ-সংক্রান্ত জিডির তদন্ত করছেন বিমানবন্দর থানার উপপরিদর্শক মো. খলিলুর রহমান। তিনি সমকালকে বলেন, দুই ছাত্রীর অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার জন্য সবরকম চেষ্টা চলছে। ছাত্রীরা প্রেম-সংক্রান্ত ঘটনায় পালিয়েছে কি-না এ বিষয়টিও তদন্তে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট খবর