বাংলাদেশ

১৮ দিন পর খুলল বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকাশ : ০৯ অক্টোবর ২০১৯

১৮ দিন পর খুলল বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

ফাইল ছবি

  গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

১৮ দিন বন্ধ থাকার পর বুধবার গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস শুরু হয়েছে। এদিন সকালে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে আসতে শুরু করেছেন। যথারীতি ক্লাস হয়েছে, তবে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি ছিল তুলনামূলক কম।

বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মাহাবুবুল আলম জানান, শিক্ষা মন্ত্রণালয় গত ৭ অক্টোবর রাতে অধ্যাপক ড. শাহজাহানকে ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে। তিনি বুধবার দায়িত্ব নিয়েই বিভাগীয় প্রধান ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে তার অফিসকক্ষে সভা করেছেন। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা তাকে স্বাগত জানান। এ ছাড়া বিকেলে ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা জানান। চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী বাংলা বিভাগের সোহেলী শারমিন বলেন, ১৮ দিন বন্ধ থাকার পর বিশ্ববিদ্যালয় খুলেছে। এখানে শিক্ষার্থীদের মধ্যে সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশ বিরাজ করছে। শিক্ষা ও গবেষণার মধ্যে থেকেই আমরা আমাদের শিক্ষাজীবন পার করতে চাই।

ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক মো. শাহজাহান বলেন, অচলাবস্থা কাটিয়ে ওঠার পর শিক্ষিক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে কর্মচাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে। প্রথম দিন শিক্ষার্থীর উপস্থিতি কম ছিল। আশা করছি, রোববারের মধ্যে সবাই ক্লাসে উপস্থিত হবে। গত ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে শিক্ষার্থীরা সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. খন্দকার নাসিরউদ্দিনের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতিসহ বিভিন্ন অভিযোগ এনে পদত্যাগের এক দফার আন্দোলন শুরু করেন। আন্দোলনের মুখে প্রশাসন ২১ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করে সকাল ১০টার মধ্যে শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেয়। কিন্তু হল ত্যাগ না করে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন চালিয়ে যান। সাবেক উপাচার্য খন্দকার নাসিরউদ্দিন সমর্থিত বহিরাগতরা আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায়। এতে অন্তত ২০ শিক্ষার্থী আহত হন। এর পর উপাচার্যের পদত্যাগ আন্দোলন আরও তীব্র হয়। আমরণ অনশনে যান শিক্ষার্থীরা। ২৫ ও ২৬ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) গঠিত পাঁচ সদস্যের তদন্ত টিম ক্যাম্পাসে এসে তদন্ত করে। 

২৯ সেপ্টেম্বর তদন্ত টিম উপাচার্য অধ্যাপক নাসিরউদ্দিনকে অপসারণের সুপারিশ করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে তদন্ত প্রতিবেদন পেশ করে। সেদিনই রাত ৯টায় নাসিরউদ্দিন পুলিশ পাহারায় ক্যাম্পাস ত্যাগ করেন। পরদিন তিনি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পদত্যাগপত্র জমা দেন।

মন্তব্য


অন্যান্য