বাংলাদেশ

রোকেয়া হলে ছাত্রী লাঞ্ছনার অভিযোগ

ব্যবস্থা চান নুর, কিছু 'জানেন না' প্রভোস্ট

প্রকাশ : ১৪ মার্চ ২০১৯ | আপডেট : ১৪ মার্চ ২০১৯

ব্যবস্থা চান নুর, কিছু 'জানেন না' প্রভোস্ট

  সমকাল প্রতিবেদক

অনিয়মের অভিযোগ তুলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) এবং হল সংসদে পুনর্নির্বাচনের দাবিতে আমরণ অনশনে বসেছেন রোকেয়া হলের পাঁচ ছাত্রী।

বুধবার দিবাগত রাতে ওই ছাত্রীদের হেনস্তা করা হয়েছে বলে যে অভিযোগ উঠেছে সে ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন ডাকসুর নবনির্বাচিত ভিপি (সহসভাপতি) নুরুল হক নুর। তবে এ ব্যাপারে কিছুই জানেন না বলে জানিয়েছেন হলটির প্রাধ্যক্ষ জিনাত হুদা।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিচার্স ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে আসেন জিনাত হুদা। তিনি এসময় বলেন, এ ঘটনার বিষয়ে আমি অবগত না। কোনো হাউস টিউটরও আমাকে অবগত করেননি।

বেলা দেড়টার দিকে ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের অন্য নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে রোকেয়া হলের ছাত্রীদের অনশনে সংহতি জানাতে আসেন নুরুল হক।

এসময় তিনি বলেন, যারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নারীর লাঞ্ছনা ও হেনস্তার অপসংস্কৃতি চালু করতে চায়, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন যেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়।

গত ১১মার্চ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) এবং হল সংসদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ডাকসুতে ভিপি ও একটি সম্পাদক পদে জয় পায় কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতাদের স্বতন্ত্র্য প্যানেল; অন্যগুলোতে জয়ী হয় ছাত্রলীগ। 

এরপর থেকেই আবারও ডাকসু নির্বাচনের দাবি জানিয়ে আসছে বিভিন্ন প্যানেল। ছাত্রলীগ বাদে পাঁচটি প্যানেল বুধবার এ নিয়ে উপাচার্যের কাছে স্মারকলিপি দিয়ে তিন দিনের মধ্যে ডাকসুর পুনঃতফসিলের দাবি জানিয়েছে।

এদিকে একই দাবিতে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে করা আন্দোলনকারীদের আমরণ অনশন গড়িয়েছে তৃতীয় দিনে। মঙ্গলবার রাতে অনশন শুরু করেন চার শিক্ষার্থী। পরে তাদের সঙ্গে যোগ দেন আরও দুজন।

অবশ্য পুনর্নির্বাচনের দাবি নাকচ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান বুধবার বলেন, সবার অক্লান্ত পরিশ্রমে যে নির্বাচন হয়েছে, তার ফলাফলকে ‘অশ্রদ্ধা দেখানোর’ এখতিয়ার তার নেই। এ নিয়ে আরও কোনও বক্তব্য এখনও পর্যন্ত আসেনি।

মন্তব্য


অন্যান্য