বাংলাদেশ

 জনতা ব্যাংকের ঋণ জালিয়াতি

ক্রিসেন্ট গ্রুপের কাদেরসহ ২২ জনের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশ : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

ক্রিসেন্ট গ্রুপের কাদেরসহ ২২ জনের বিরুদ্ধে মামলা

  সমকাল প্রতিবেদক

জালিয়াতি করে জনতা ব্যাংকের ১ হাজার ৭৪৫ কোটি ৬৬ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ক্রিসেন্ট গ্রুপের কর্ণধার এমএ কাদেরসহ ২২ জনের বিরুদ্ধে পাঁচটি মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

দুদকের সহকারী পরিচালক গুলশান আনোয়ার প্রধান রোববার রাজধানীর চকবাজার থানায় মামলাগুলো করেন। মামলার ২২ আসামির মধ্যে ক্রিসেন্ট গ্রুপভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর মালিক সাত জন ও জনতা ব্যাংকের ১৫ কর্মকর্তা রয়েছেন।

মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ, প্রতারণা, জাল কাগজপত্র তৈরি করে জালিয়াতি, পরস্পর যোগসাজশ, প্রতারণায় সহায়তা, ক্ষমতার অপব্যবহার ও অর্থ পাচারের অভিযোগ আনা হয়েছে। ক্রিসেন্ট গ্রুপভুক্ত পাঁচটি কোম্পানিই ওই পরিমাণ অর্থ আত্মসাতের সঙ্গে জড়িত।

মামলার আসামি ক্রিসেন্ট গ্রুপের সাত মালিক হলেন- ক্রিসেন্ট লেদার প্রোডাক্টসের চেয়ারম্যান এমএ কাদের, পরিচালক সুলতানা বেগম, রেজিয়া বেগম, রূপালী কম্পোজিট লেদার ওয়্যারের পরিচালক সামিয়া কাদের নদী, রিমেপ ফুটওয়্যার লিমিটেডের চেয়ারম্যান আবদুল আজিজ, ব্যবস্থাপনা পরিচালক লিটুন জাহান মীরা এবং লেসকো লিমিটেডের পরিচালক হারুন-অর-রশীদ।

ব্যাংক কর্মকর্তাদের মধ্যে আসামি করা হয়েছে ১৫ জনকে। তারা হলেন- জনতা ব্যাংকের নোট প্রস্তুতকারী এসও আব্দুল্লাহ আল মামুন, পরীক্ষণকারী এসও মো. মনিরুজ্জামান, সুপারিশকারী এসও মে. সাইদুজ্জামান, পিও মোহাম্মদ রুহুল আমীন, এসপিও (এপপোর্ট) ও অফিসার ইনচার্জ মাগরেব আলী, এসপিও ও ব্যবস্থাপক (ফরেন এপচেঞ্জ) খায়রুল আমিন, এজিএম আতাউর রহমান সরকার, ঋণ অনুমোদনকারী ডিজিএম রেজাউল করিম (বর্তমানে সোনালী ব্যাংকের ডিএমডি), শাখা প্রধান ডিজিএম মুহাম্মদ ইকবাল, ডিজিএম একেএম আসুদুজ্জামান, ডিজিএম কাজী রইস উদ্দিন আহমেদ, জিএম জাকির হোসেন (বর্তমানে সোনালী ব্যাংকের ডিএমডি) জিএম ফখরুল আলম (বর্তমানে কৃষি ব্যাংকের ডিএমডি), প্রধান কার্যালয়ের এসপিও বাহারুল আলম এবং ব্যাংকের এজিএম এসএম শরীফুল ইসলাম।

দুদক সূত্র জানায়, ওই পাঁচ মামলায় আসামির সংখ্যা ৮৩ জন হলেও এ ক্ষেত্রে ব্যক্তির সংখ্যা ২২ জন। অনিয়ম, দুর্নীতির তথ্য-প্রমাণ সাপেক্ষে একই ব্যক্তিকে একাধিক মামলায় আসামি করা হয়েছে।

মামলার এজাহারে ক্রিসেন্ট লেদারের বিরুদ্ধে ৫০০ কোটি ৬৯ লাখ ৪৪ হাজার ৮৯৯ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়েছে। ক্রিসেন্ট ট্যানারির বিরুদ্ধে ৬৮ কোটি ৩৪ লাখ ৯৫ হাজার ১২০ টাকা, লেসকো লিমিটেডের ৭৪ কোটি ৩৮ লাখ ৯৫ হাজার ৩৫৯ টাকা, রূপালী কম্পোজিট লেদারের ৪৫৪ কোটি ১০ লাখ ৮৭ হাজার ৩৮৪ টাকা এবং রিমেপ ফুটওয়্যারের বিরুদ্ধে ৬৪৮ কোটি ১২ লাখ ৫৬ হাজার ৭৪৭ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়।

মামলার এজাহারে আরও বলা হয়, রপ্তানি বিল কেনার ক্ষেত্রে প্রথম লেনদেনের আগে প্রধান কার্যালয়ের অনুমোদন নিতে হয়। এ ছাড়া বিক্রয় চুক্তির সঠিকতা নিশ্চিত হওয়া, তিন মাস অন্তর ক্রেতার ক্রেডিট রিপোর্ট সংগ্রহসহ কয়েকটি শর্ত পালন করতে হয়। কিন্তু জনতা ব্যাংকের ইমামগঞ্জ শাখায় এসব নির্দেশনা পালন করা হয়নি।

এর আগে ৯১৯ কোটি ৫৬ লাখ টাকা বিদেশে পাচারের অভিযোগে ক্রিসেন্ট গ্রুপের এমএ কাদেরসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে আলাদা তিনটি মামলা করেছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতর। গত ৩০ জানুয়ারি মানিলন্ডারিং আইনে মামলাগুলো দায়ের করা হয়। ওই দিনই কাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। বর্তমানে তিনি কারাগারে আছেন।


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

শপথ নিলেন সংরক্ষিত আসনের ৪৯ নারী এমপি


আরও খবর

বাংলাদেশ

ফাইল ছবি

  সমকাল প্রতিবেদক

একাদশ জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনের নবনির্বাচিত ৪৯ সংসদ সদস্য শপথ নিয়েছেন।

বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় জাতীয় সংসদের শপথ কক্ষে শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। 

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী তাদের শপথ পড়ান।

স্পিকার প্রথমে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নির্বাচিত সাংসদের এবং পরে জাতীয় পার্টির এমপিদের পৃথকভাবে শপথ বাক্য পাঠ করান।

সংরক্ষিত নারী আসনে ৪৯ প্রার্থীর নাম উল্লেখ করে গত রোববার গেজেট প্রকাশ করেছিল নির্বাচন কমিশন। গেজেট অনুযায়ী, নির্বাচিত ৪৯ সংসদ সদস্যের মধ্যে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ৪৩ জন, জাতীয় পার্টির চারজন, ওয়ার্কার্স পার্টির একজন ও স্বতন্ত্র একজন।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

রাজধানীতে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১


আরও খবর

বাংলাদেশ

  সমকাল প্রতিবেদক

রাজধানীর টেকনিক্যাল মোড় এলাকায় র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মেহেদি নামের এক ব্যক্তি মারা গেছেন। 

বুধবার ভোরে এই ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে। 

ঘটনাস্থল থেকে বিদেশি রিভলবার ও ৩০০ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় র‍্যাবের দুই সদস্য আহত হন।

র‍্যাবের দাবি, নিহত মেহেদি শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন। তার বিরুদ্ধে ১৭টি মামলা রয়েছে।

র‍্যাব-২-এর কোম্পানি কমান্ডার মহিউদ্দিন ফারুকী বলেন, বুধবার ভোরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে মাদকের চালান নিয়ে একটি বাসে করে ঢাকায় নামেন মেহেদীসহ কয়েকজন। তারা বাস থেকে নামার পরপরই শ্যামলীর সড়ক ও জনপথ অফিসের সামনে প্রধান সড়কে তাকে চ্যালেঞ্জ করা হয়। সে র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি করলে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। মেহেদী সেখানে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যায়। বাকি তিনজন দৌড়ে পালিয়ে যান।

পরের
খবর

দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী


আরও খবর

বাংলাদেশ
দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশ : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

  অনলাইন ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জার্মানি এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতে তার ৬ দিনের সরকারি সফর শেষে বুধবার সকালে দেশে ফিরেছেন।

বাংলাদেশ বিমানের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইট প্রধানমন্ত্রী এবং তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে সকাল ৬টা ২৫ মিনিটে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। খবর বাসসের

এর আগে আরব আমিরাতের স্থানীয় সময় রাত ১২টা ১৫ মিনিটে (বাংলাদেশ সময় ২টা ১৫ মিনিট) বিমানটি প্রধানমন্ত্রী এবং তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে আবুধাবি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করে।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ইমরান প্রধানমন্ত্রীকে বিমানবন্দরে বিদায় জানান।

চতুর্থ বারের মতো এবং টানা তৃতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর এই দু’টি রাষ্ট্রে সরকারি সফর ছিল নতুন মেয়াদে তার প্রথম কোন বিদেশ সফর।

সফরের প্রথম পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী ১৪-১৬ ফেব্রুয়ারি মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে যোগদানের জন্য জার্মানি সফর করেন।

এবারের নিরাপত্তা সম্মেলনের ৫৫তম অধিবেশনের সাইড লাইনে প্রধানমন্ত্রী একটি স্বাস্থ্যসেবা সংক্রান্ত গোলটেবিল আলোচনায় ভাষণ দেন এবং জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সৃষ্ট নিরাপত্তা ঝুঁকি সম্পর্কিত একটি প্যানেল আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন।

ইন্টারন্যাশনাল ক্রিমিনাল কোর্ট (আইসিসি)-এর প্রধান আইনজীবী ড. ফাতু বেনসৌডা এবং ইন্টারন্যাশনাল ক্যাম্পেইন টু অ্যাবলিশ নিউক্লিয়ার উইপন এর নির্বাহী পরিচালক নোবেল বিজয়ী ব্যাট্রিস ফিন পৃথকভাবে শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

জার্মানিতে বাংলাদেশ মিশনের উদ্যোগে স্থানীয় হোটেল শেরাটনে আয়োজিত জার্মানিতে বসবাসকারী বাংলাদেশিদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানেও যোগদান করেন তিনি।

সফরের দ্বিতীয় পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী ১৭-১৯ ফেব্রুয়ারি আবুধাবির ন্যাশনাল এক্সিবিশন সেন্টারে সংযুক্ত আরব আমিরাতের উদ্যোগে আয়োজিত আন্তর্জাতিক প্রতিরক্ষা প্রদর্শনীর (আইডিইএক্স-২০১৯) উদ্বোধনী পর্বে যোগদান করেন।

১৮ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী আবুধাবির যুবরাজ শেখ মোহাম্মেদ বিন জায়েদ বিন সুলতান আল নাহিয়ানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। তিনি দুবাইয়ের শাসক এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী শেখ মোহাম্মেদ বিন রশিদ আল মকতুমের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন।

একই দিনে প্রধানমন্ত্রী দুবাইয়ের বাহার প্রাসাদে দুবাইয়ের স্থপতি প্রয়াত শেখ জায়েদ বিন সুলতান আল নাহিয়ানের স্ত্রী এবং দুবাই মাতা শেখ ফাতিমা বিনতে মুবারাক আল কেতবীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

সংশ্লিষ্ট খবর