বাংলাদেশ

রাবিতে দুই ছাত্রীকে আটকে রেখে মুক্তিপণ দাবি

প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি ২০১৯ | আপডেট : ১২ জানুয়ারি ২০১৯

রাবিতে দুই ছাত্রীকে আটকে রেখে মুক্তিপণ দাবি

  রাবি সংবাদদাতা

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বন্ধুর সঙ্গে দেখা করতে আসা দুই কলেজছাত্রীকে আটকে রেখে মুক্তিপণ দাবির ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে একজনকে উদ্ধার করে পুলিশ। 

তার আগেই আরেকজন টাকা দিয়ে সেখান থেকে চলে যায়। শুক্রবার সন্ধ্যার পরে এ ঘটনা ঘটে। জানা যায়, শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজশাহী নিউ গভ. ডিগ্রি কলেজের দুই ছাত্রী রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বেড়াতে আসেন। 

ওই সময় তিন যুবক তাদের আটক করে বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হলের পেছনে নিয়ে যায়। নিজেদের ছাত্রলীগ নেতাকর্মী পরিচয় দিয়ে তারা ছাত্রীদের কাছে তিন হাজার টাকা করে মুক্তিপণ দাবি করে। 

ওই সময় টাকার জন্য এক ছাত্রী তার এক বন্ধুকে ফোন দেন। বিষয়টি বুঝতে পেরে তার বন্ধু পুলিশে খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে এক ছাত্রীকে উদ্ধার করে। পুলিশ পৌঁছানোর আগেই আরেক ছাত্রী দুর্বৃত্তদের এক হাজার টাকা দিয়ে সেখান থেকে ছাড়া পান।

পুলিশে খবর প্রদানকারী বিভাষ জানান, তার দুই বান্ধবী শুক্রবার সন্ধ্যায় আরেক বন্ধুর সঙ্গে দেখা করতে ক্যাম্পাসে আসে। তবে তিন দুর্বৃত্ত নিজেদের ছাত্রলীগ পরিচয় দিয়ে তাদের আটক করে। পরে তাদের কাছ থেকে টাকা দাবি করে। তিনি অভিযোগ করেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তার বান্ধবীকে উদ্ধার করলেও ওই যুবকদের ছেড়ে দিয়েছে।

এদিকে, বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর রাতেই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কাজলা পুলিশ ফাঁড়িতে যান। তারা প্রায় ঘণ্টাব্যাপী ফাঁড়ির পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন। 

পরে তাদের আলোচনার বিষয়ে জানতে চাইলে ছাত্রলীগ সভাপতি গোলাম কিবরিয়া সাংবাদিকদের বলেন, 'আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক পরিবেশ নিয়ে আলোচনা করেছি।' ছাত্রলীগ পরিচয়ে টাকা দাবির বিষয়ে তিনি বলেন, 'এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি।'

মতিহার থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুব আলম বলেন, 'ঘটনাস্থলে গিয়ে আমরা মেয়েটিকে একাই দাঁড়িয়ে থাকতে দেখেছি। কারা তাকে আটকে রেখেছে জিজ্ঞাসা করলে ওই যুবকগুলো চলে গেছে বলে মেয়েটি জানান। পরে মেয়েটিকে আমরা ফাঁড়িতে নিয়ে এসে তার অভিভাবককে খবর দিই। অভিভাবক এসে তাকে নিয়ে গেছেন। এ ঘটনায় থানায় কোনো মামলা বা অভিযোগ করেনি কেউ।

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

স্কুটি ছিনতাই করা জনি দুই দিনের রিমান্ডে


আরও খবর

বাংলাদেশ

শাহনাজ আক্তারের স্কুটি চুরির মামলায় গ্রেফতার জোবাইদুল ইসলাম জনি। ফাইল ছবি

  সমকাল প্রতিবেদক

শাহনাজ আক্তারের স্কুটি চুরির মামলায় গ্রেফতার জোবাইদুল ইসলাম জনির দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বুধবার তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এসময় ঘটনার সাথে অন্য কেউ জড়িত কিনা ও মামলার মূল রহস্য উদঘাটনের জন্য ৭ দিনের পুলিশ রিমান্ড আবেদন করেন শেরেবাংলা নগর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শফিকুল ইসলাম খান।

অপরদিকে আসামির আইনজীবী জামিনের আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম শহিদুল ইসলাম জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে দুই দিনের রিমান্ড দেন।

বুধবার ভোরে অভিযান চালিয়ে নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকা থেকে শাহনাজের স্কুটি উদ্ধার করা হয়।

তেজগাঁও জোনের সহকারী কমিশনার আবু তৈয়ব মো. আরিফ হোসেন বলেন, রাতে অভিযান চালিয়ে নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকা থেকে স্কুটিটি উদ্ধার করা হয়। এ সময় প্রতারক জনিকে আটক করা হয়েছে।

রাজধানীর খামারবাড়ি এলাকা থেকে মঙ্গলবার দুপুরে প্রতারণার মাধ্যমে বাইকটি চুরি করে নিয়ে যান ওই যুবক। এ ঘটনায় শাহনাজ আক্তার শেরেবাংলা নগর থানায় অভিযোগ করেন।

স্মার্টফোনের অ্যাপভিত্তিক সেবা উবারের মাধ্যমে প্রায় এক মাস ধরে মোটরবাইক চালাচ্ছেন শাহনাজ আক্তার।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এরই মধ্যে ব্যাপক পরিচিত হয়ে উঠেছেন তিনি। শাহনাজের বাইকটি চুরির পর ফেসবুকে অনেককেই ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়ে স্ট্যাটাস দেন।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

শিগগিরই ডাকসু নির্বাচনের তফসিল চায় ছাত্রলীগ


আরও খবর

বাংলাদেশ

ফাইল ছবি

  বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

শিগগিরই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনের তফসিল চায় দেশের প্রাচীনতম ও ঐতিহ্যবাহী সংগঠন ছাত্রলীগ। 

বুধবার বিকেলে মিছিল শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে এক সমাবেশে এ বিষয়ে ১৪ দফা দাবি জানায় সংগঠনটি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ আয়োজিত এ কর্মসূচিতে সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতারা অংশ নেন।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাসের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসাইনের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন, সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী প্রমুখ। 

সমাবেশে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগসহ বিশ্ববিদ্যালয় ও বিভিন্ন হল শাখার নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

রেজওয়ানুল হক বলেন, আগামী দিনে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিতে হলে ডাকসুর মাধ্যমে মেধাবী নেতৃত্ব সৃষ্টি করতে হবে। মার্চ মাসের মধ্যে আমরা ডাকসু নির্বাচন চাই। তিনি বলেন, গায়ের জোর দিয়ে নয়, রাজনীতি হবে ভালোবাসা দিয়ে।

গোলাম রাব্বানী বলেন, সাধারণ শিক্ষার্থীরা তাদের কথা বলার জন্য একটি প্ল্যাটফর্ম খুঁজছে, যেটি গত ২৮ বছরে হয়নি। এই দীর্ঘসময়ে প্রশাসনের যে গড়িমসি, তা থেকে মুক্তি চাই। শিগগিরই ডাকসু নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করতে হবে। ডাকসু নির্বাচনের পরে দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজে ছাত্র সংসদ নির্বাচন চাই।

সনজিত চন্দ্র দাস বলেন, শিক্ষার্থীরা যাতে রাজনীতি চর্চা করতে পারেন, সে জন্য প্রশাসনকে অনতিবিলম্বে ডাকসু নির্বাচন দিতে অনুরোধ করছি। হাইকোর্ট যে রায় দিয়েছেন, তার প্রতি আমরা শ্রদ্ধাশীল।

সাদ্দাম হোসাইন বলেন, এই নির্বাচন নিয়ে ছিনিমিনি খেলা সহ্য করা হবে না। অনেক স্বপ্ন নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হলেও শিক্ষার্থীদের সিটের নিশ্চয়তা দেওয়া হয় না। এ অবস্থা চলতে পারে না। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে পূর্ণাঙ্গ আবাসিক বিশ্ববিদ্যালয় ঘোষণা করতে হবে।

ছাত্রলীগের ১৪ দফা দাবির মধ্যে রয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে পূর্ণাঙ্গ আবাসিক বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত করা, গবেষণা খাতে সর্বোচ্চ বরাদ্দ দেওয়া, আবাসন সংকটের আপদকালীন সমাধান, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক-একাডেমিক, পরীক্ষা ও ভর্তি সংক্রান্ত সব কার্যক্রম অটোমেশনের আওতায় আনা।

এর আগে 'স্বপ্নের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য' লেখা ব্যানার নিয়ে মিছিল করে ছাত্রলীগ। মিছিলটি মধুর ক্যান্টিন থেকে শুরু হয়ে অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে গিয়ে শেষ হয়।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

দ্বিতীয় দিনে আ'লীগের ফরম নিলেন ৪৩৩ জন


আরও খবর

বাংলাদেশ

সংরক্ষিত নারী আসন

দ্বিতীয় দিনে আ'লীগের ফরম নিলেন ৪৩৩ জন

প্রকাশ : ১৬ জানুয়ারি ২০১৯

  সমকাল প্রতিবেদক

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের মধ্যে দলীয় মনোনয়নপত্রের ফরম বিতরণ অব্যাহত রয়েছে। বুধবার এ কার্যক্রমের দ্বিতীয় দিনে আরও ৪৩৩ জন ফরম সংগ্রহ করেছেন।

সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া সাংবাদিকদের জানান, দু'দিনে মোট ১ হাজার ৫৭ জন মনোয়নপ্রত্যাশী ফরম সংগ্রহ করেছেন। ফরম পূরণ করে জমা দিয়েছেন ২৫০ জন। প্রথম দিন মঙ্গলবার ফরম সংগ্রহ করেছিলেন ৬২৪ জন।

গত মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ফরম বিক্রি শুরু হয়। প্রথম দিনের মতো বুধবার দ্বিতীয় দিনেও সকাল থেকে মনোনয়নপ্রত্যাশী দল ও সহযোগী-ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নারীনেত্রী এবং শিল্পী-অভিনেত্রী, সংস্কৃতিকর্মী ও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার অনেক নারীকে ফরম ক্রয়ের জন্য নির্ধারিত বুথের সামনে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে দেখা গেছে। ধানমণ্ডি কার্যালয় ও পাশের ভবনে আটটি বিভাগের জন্য স্থাপিত দু'টি বুথ থেকে জেলাওয়ারি মনোনয়ন ফরম কিনেছেন তারা। দলীয় মনোনয়নপ্রত্যাশীদের ফরম কিনতে হচ্ছে ৩০ হাজার টাকায়।

সকালে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সংরক্ষিত নারী আসনে দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রয় কার্যক্রম পরিদর্শনে আসেন। পরে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়নের ক্ষেত্রে ত্যাগী ও রাজপথে অগ্রণী ভূমিকা পালনকারীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। তিনি বলেন, সাংস্কৃতিক অঙ্গনের ব্যক্তিরাও নির্বাচন উপলক্ষে কাজ করেছেন, সারাদেশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। তাদেরও মূল্যায়ন করতে হবে।

কতদিন পর্যন্ত ফরম বিক্রি চলবে, তা এখনও সুনির্দিষ্টভাবে জানানো হয়নি। তবে আগামী ২০ জানুয়ারি রোববার পর্যন্ত মনোনয়ন ফরম বিতরণের পাশাপাশি জমা নেওয়ার কার্যক্রম চলবে বলে একটি সূত্র জানিয়েছে।

বিদ্যমান আইন অনুযায়ী, প্রতি ৬টি আসনে একজন সংরক্ষিত নারী এমপি নির্বাচিত করার বিধান রয়েছে। একাদশ সংসদ নির্বাচনে ২৯৯ আসনের মধ্যে ২৫৭ আসনে বিজয় পায় আওয়ামী লীগ। তবে শপথ গ্রহণের আগেই কিশোরগঞ্জ-১ আসনের নির্বাচিত এমপি মারা যাওয়ায় ক্ষমতাসীন দলের প্রাপ্ত আসন সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৫৬। এ হিসাবে ৫০টি সংরক্ষিত নারী আসনের ৪৩টিতে আওয়ামী লীগ মনোনীত নারীরা এমপি নির্বাচিত হবেন। 

জাতীয় পার্টি ২২ জন বিজয়ী এমপির বিপরীতে আসন পাবে চারটি। মহাজোটের অন্য দলগুলোর কোনোটিই ছয়টি বা তার বেশি আসন না পাওয়ায় এককভাবে সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন দিতে পারবে না। অন্যদিকে বিএনপি ও তার জোট আটটি নির্বাচিত আসনের বিপরীতে দু'টি আসন পাবে। 

সংরক্ষিত নারী আসনে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার জন্য আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি তারিখ নির্ধারণ করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

বুধবার যারা ফরম সংগ্রহ করেছেন: চিত্রনায়িকা অরুণা বিশ্বাস (মানিকগঞ্জ জেলা), মৌসুমী (খুলনা), অপু বিশ্বাস (বগুড়া), অভিনেত্রী সুবর্ণা মুস্তাফা (বরিশাল), মহিলা আওয়ামী লীগের সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক ও অভিনেত্রী রোকেয়া প্রাচী (নোয়াখালী) এবং তারিন জাহান (লক্ষ্মীপুর)। মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তাদের সবাই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

স্বেচ্ছাসেবক লীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের মানবাধিকারবিষয়ক সম্পাদক ও কথাসাহিত্যিক রুবামা ইয়াসমিন নূর মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান রুবামা সমকালকে বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তরুণদের সামনে নিয়ে আসছেন। একজন তরুণ হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর এই অগ্রযাত্রায় সহযাত্রী হতেই সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি পদে দলের মনোনয়ন চাইছেন তিনি।

সুনামগঞ্জ থেকে সংরক্ষিত নারী আসনের প্রার্থী হতে ফরম কিনেছেন সুনামগঞ্জ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুসনা হুদা। জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নূরুল হুদা মুকুটের স্ত্রী হুসনা দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী। নেত্রী (শেখ হাসিনা) তাকে মূল্যায়ন করবেন বলে তার বিশ্বাস।

সংশ্লিষ্ট খবর