বাংলাদেশ

এক টাকাও খেলাপি ঋণ বাড়বে না: অর্থমন্ত্রী

প্রকাশ : ১০ জানুয়ারি ২০১৯ | আপডেট : ১০ জানুয়ারি ২০১৯

এক টাকাও খেলাপি ঋণ বাড়বে না: অর্থমন্ত্রী

  অনলাইন ডেস্ক

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, আজ থেকে আর এক টাকাও খেলাপি ঋণ বাড়বে না। বৃহস্পতিবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে অর্থমন্ত্রীর দফতরে ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে এ কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বৈঠকে বসার আগেই আমার শর্ত ছিল একটা। কোনো কিছু আলাপ করার আগে আমার এক দফা। আজকের পর থেকে খেলাপি ঋণ এক টাকাও বাড়তে পারবে না। এখন পর্যন্ত যে পরিমান খেলাপি ঋণ রয়েছে তাও ধীরে ধীরে কমিয়ে আনা হবে। খবর ইউএনবির

বৈঠকে উপস্থিত ব্যাংক মালিকদের অর্থমন্ত্রী বলেছেন, আপনারা কিভাবে বন্ধ করবেন, কিভাবে টেককেয়ার করবেন, কিভাবে ম্যানেজ করবেন আপনাদের ব্যাপার। তারা আমাকে আশ্বস্ত করেছেন। তাই বলেছি আজকের পর থেকে খেলাপি ঋণ বাড়বে না ইনশাল্লাহ।

বৈঠকে অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি নজরুল ইসলাম মজুমদার, আইএফআইসি ব্যাংকের চেয়ারম্যান সালমান এফ রহমান, প্রিমিয়ার ব্যাংকের চেয়ারম্যান এইচ বি এম ইকবালসহ ব্যাংক মালিকরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে আলোচনার বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ব্যাংকিং খাত নিয়ে আলোচনা করেছি। তারাই ব্যাংকের মালিক। সবাই প্রায় এসেছেন। তাদের সঙ্গে যেসব আলোচনা হয়েছে তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে, ব্যাংকিং খাতের যেসব তথ্য পাওয়া গেছে সেগুলো ভেরিভফাই করবো, এভালুয়েট করবো, মূল্যায়ন করবো। এ জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগকে। এই মূল্যায়ন শেষ হলে আমরা একটি ব্যবস্থায় যাব।

আ হ ম মুস্তফা কামাল আরও বলেন, আমরা একটি জায়গায় ঐক্যমতে পৌঁছেছি, মূল যে এলাকা  মূল যে চিন্তা সেটি হচ্ছে ননপারফরমিং (খেলাপি) লোন। এটি আপনাদের উৎকণ্ঠা, জাতির উৎকণ্ঠা, আমাদের উৎকণ্ঠা এবং আমার উৎকণ্ঠা, তবে আমার উৎকণ্ঠা কিছুটা কম। কেননা এরই মাঝে আমি দেখেছি, যেভাবে যে পরিমান পত্রপত্রিকায় লেখা হয়, সে পরিমান ননপারফরমিং লোন না। দেশে ননপারফরমিং লোনের হার ১১ থেকে ১২ শতাংশ। এর চেয়ে অন্যান্য দেশে আরও বেশি। আমাদের পাশের দেশ ভারতেও আরও বেশি। ননপারফরমিং লোন কমলে ব্যাংক সুদের হার কমে যাবে, সুতরাং এটা কোনোভাবেই বাড়তে দেয়া হবে না।’

তিনি বলেন, ননপারফরমিং লোন এখনো ম্যানেজেবল। আর এই ম্যানেজেবল লোন আর বাড়তে পারবে না। এখানে যারা এসেছেন তারা নিশ্চিত করেছেন খেলাপি ঋণ আর বাড়বে না বরং যা আছে সেটিও ধীরে ধীরে কমাবেন। কিভাবে কমাবেন সেটি পরবর্তী মিটিংয়ে বসে সিদ্ধান্ত নেব। এটিই আলোচনার মূল বিষয় ছিল। যেহেতু খেলাপি ঋণ হয়েই গেছে, সে বিষয়ে তারাই আমাকে তথ্য দেবেন কি পরিমান, কোন ব্যাংকের কতটা খেলাপি ঋণ আছে। কার কাছে কতটা পাওয়া যাবে, এর মধ্যে কতটা আসল কতটা সুদ। তাদের তথ্য আমাদের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ এবং কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সঙ্গে মিলিয়ে দেখে সঠিক কাজটি যথাযথভাবে করতে পারবো।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে নতুন অর্থমন্ত্রী বলেন, যারা বাংলাদেশে ব্যবসা করে তারা সবাই প্রভাবশালী। পৃথিবীতে যারা ব্যবসা-বাণিজ্য করেন সবাই প্রভাবশালী। ব্যবসায়ীরা যদি প্রভাবশালী না হয় তাহলে বিনিযোগ কিভাবে আসবে। কোথা থেকে কর্মসংস্থান হবে, কিভাবে হবে, দারিদ্র্য কিভাবে কমবে। 


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

শপথ নিলেন সংরক্ষিত আসনের ৪৯ নারী এমপি


আরও খবর

বাংলাদেশ

সংরক্ষিত নারী আসনের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যদের শপথবাক্য পাঠ করান স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী-ফোকাস বাংলা

  সমকাল প্রতিবেদক

একাদশ জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনের নবনির্বাচিত ৪৯ সংসদ সদস্য শপথ নিয়েছেন।

বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় জাতীয় সংসদের শপথ কক্ষে শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। 

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী তাদের শপথ পড়ান।

স্পিকার প্রথমে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নির্বাচিত সাংসদের এবং পরে জাতীয় পার্টির এমপিদের পৃথকভাবে শপথ বাক্য পাঠ করান।

সংরক্ষিত নারী আসনে ৪৯ প্রার্থীর নাম উল্লেখ করে গত রোববার গেজেট প্রকাশ করেছিল নির্বাচন কমিশন। গেজেট অনুযায়ী, নির্বাচিত ৪৯ সংসদ সদস্যের মধ্যে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ৪৩ জন, জাতীয় পার্টির চারজন, ওয়ার্কার্স পার্টির একজন ও স্বতন্ত্র একজন।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

রাজধানীতে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১


আরও খবর

বাংলাদেশ

  সমকাল প্রতিবেদক

রাজধানীর টেকনিক্যাল মোড় এলাকায় র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মেহেদি নামের এক ব্যক্তি মারা গেছেন। 

বুধবার ভোরে এই ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে। 

ঘটনাস্থল থেকে বিদেশি রিভলবার ও ৩০০ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় র‍্যাবের দুই সদস্য আহত হন।

র‍্যাবের দাবি, নিহত মেহেদি শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন। তার বিরুদ্ধে ১৭টি মামলা রয়েছে।

র‍্যাব-২-এর কোম্পানি কমান্ডার মহিউদ্দিন ফারুকী বলেন, বুধবার ভোরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে মাদকের চালান নিয়ে একটি বাসে করে ঢাকায় নামেন মেহেদীসহ কয়েকজন। তারা বাস থেকে নামার পরপরই শ্যামলীর সড়ক ও জনপথ অফিসের সামনে প্রধান সড়কে তাকে চ্যালেঞ্জ করা হয়। সে র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি করলে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। মেহেদী সেখানে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যায়। বাকি তিনজন দৌড়ে পালিয়ে যান।

পরের
খবর

দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী


আরও খবর

বাংলাদেশ
দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশ : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

  অনলাইন ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জার্মানি এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতে তার ৬ দিনের সরকারি সফর শেষে বুধবার সকালে দেশে ফিরেছেন।

বাংলাদেশ বিমানের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইট প্রধানমন্ত্রী এবং তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে সকাল ৬টা ২৫ মিনিটে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। খবর বাসসের

এর আগে আরব আমিরাতের স্থানীয় সময় রাত ১২টা ১৫ মিনিটে (বাংলাদেশ সময় ২টা ১৫ মিনিট) বিমানটি প্রধানমন্ত্রী এবং তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে আবুধাবি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করে।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ইমরান প্রধানমন্ত্রীকে বিমানবন্দরে বিদায় জানান।

চতুর্থ বারের মতো এবং টানা তৃতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর এই দু’টি রাষ্ট্রে সরকারি সফর ছিল নতুন মেয়াদে তার প্রথম কোন বিদেশ সফর।

সফরের প্রথম পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী ১৪-১৬ ফেব্রুয়ারি মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে যোগদানের জন্য জার্মানি সফর করেন।

এবারের নিরাপত্তা সম্মেলনের ৫৫তম অধিবেশনের সাইড লাইনে প্রধানমন্ত্রী একটি স্বাস্থ্যসেবা সংক্রান্ত গোলটেবিল আলোচনায় ভাষণ দেন এবং জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সৃষ্ট নিরাপত্তা ঝুঁকি সম্পর্কিত একটি প্যানেল আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন।

ইন্টারন্যাশনাল ক্রিমিনাল কোর্ট (আইসিসি)-এর প্রধান আইনজীবী ড. ফাতু বেনসৌডা এবং ইন্টারন্যাশনাল ক্যাম্পেইন টু অ্যাবলিশ নিউক্লিয়ার উইপন এর নির্বাহী পরিচালক নোবেল বিজয়ী ব্যাট্রিস ফিন পৃথকভাবে শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

জার্মানিতে বাংলাদেশ মিশনের উদ্যোগে স্থানীয় হোটেল শেরাটনে আয়োজিত জার্মানিতে বসবাসকারী বাংলাদেশিদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানেও যোগদান করেন তিনি।

সফরের দ্বিতীয় পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী ১৭-১৯ ফেব্রুয়ারি আবুধাবির ন্যাশনাল এক্সিবিশন সেন্টারে সংযুক্ত আরব আমিরাতের উদ্যোগে আয়োজিত আন্তর্জাতিক প্রতিরক্ষা প্রদর্শনীর (আইডিইএক্স-২০১৯) উদ্বোধনী পর্বে যোগদান করেন।

১৮ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী আবুধাবির যুবরাজ শেখ মোহাম্মেদ বিন জায়েদ বিন সুলতান আল নাহিয়ানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। তিনি দুবাইয়ের শাসক এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী শেখ মোহাম্মেদ বিন রশিদ আল মকতুমের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন।

একই দিনে প্রধানমন্ত্রী দুবাইয়ের বাহার প্রাসাদে দুবাইয়ের স্থপতি প্রয়াত শেখ জায়েদ বিন সুলতান আল নাহিয়ানের স্ত্রী এবং দুবাই মাতা শেখ ফাতিমা বিনতে মুবারাক আল কেতবীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

সংশ্লিষ্ট খবর