বাংলাদেশ

মায়ের কোলে চড়ে ভর্তি পরীক্ষা

অবশেষে ঢাবিতে পড়ার স্বপ্নপূরণ প্রতিবন্ধী হৃদয়ের

প্রকাশ : ০৮ নভেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ০৮ নভেম্বর ২০১৮

অবশেষে ঢাবিতে পড়ার স্বপ্নপূরণ প্রতিবন্ধী হৃদয়ের

ফাইল ছবি

  বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

মায়ের কোলে চড়ে ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা শারীরিক প্রতিবন্ধী নেত্রকোনার হৃদয় সরকার অবশেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পাচ্ছেন। 

বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনস কমিটির এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভায় উপস্থিত থাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্থ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস অনুষদের ডিন অধ্যাপক মাকসুদ কামাল এ তথ্য জানান।

কলা অনুষদভুক্ত 'খ' ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা হয় ২১ সেপ্টেম্বর। মায়ের কোলে চড়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেন হৃদয় সরকার। মায়ের কোলে চড়ে পরীক্ষায় অংশ নিতে যাওয়ার একটি ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে বিষয়টি সবার নজরে আসে। সে সময় হৃদয় সরকার সম্পর্কে গণমাধ্যমে সংবাদও ছাপা হয়।

ভর্তি পরীক্ষায় হৃদয় সরকার তিন হাজার ৭৪০ মেধাক্রম অর্জন করেন। তবে এই অনুষদের আসন সংখ্যা ছিল দুই হাজার ৩৭৮টি। ফলে তার ভর্তির বিষয়টি অনিশ্চিত হয়ে পড়ে। মেধায় সুযোগ না পেলেও কোটায় সুযোগ পাবেন বলে ধারণা করেন অনেকে।

তবে ভর্তির জন্য কলা অনুষদের ডিন অফিসে যোগাযোগ করলে 'প্রতিবন্ধী কোটার নিয়ম' দেখিয়ে কোটায় আবেদনের ফর্মই দেওয়া হয়নি তাকে। ডিন অফিস থেকে বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তির জন্য প্রতিবন্ধী কোটার নিয়মে শুধু 'বাক, শ্রবণ ও দৃষ্টি' প্রতিবন্ধীরা সুযোগ পাবেন। তিনি এ ক্যাটাগরিতে পড়েন না। 

তবে এদিন ডিনস কমিটির সভায় 'বাক, শ্রবণ ও দৃষ্টি' প্রতিবন্ধীর সঙ্গে শারীরিক প্রতিবন্ধীর বিষয়টি যোগ করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ভর্তির সুযোগ পাবেন হৃদয় সরকার।

এ বিষয়ে উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন, মানবিক সমাজ নির্মাণের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিবন্ধী কোটার নীতিমালায় সংস্কার আনা হয়েছে। সমাজে শারীরিক বা মানসিক প্রতিকূলতা পেরিয়ে যারা ভর্তি হতে আসে তারা যাতে কোনো বঞ্ছনার শিকার না হয়, সেজন্য আমরা 'বাক, শ্রবণ ও দৃষ্টি' প্রতিবন্ধীর সঙ্গে 'শারীরিক প্রতিবন্ধীর' বিষয়টি সংযোজন করেছি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্থ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস অনুষদের ডিন অধ্যাপক এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, 'হৃদয়কে ভর্তি করানোর বিষয়ে ডিন কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

হৃদয় সরকার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, শারীরিকভাবে যারা অক্ষম এই সিদ্ধান্তের মাধ্যমে তারা পড়ালেখায় আরও উৎসাহ পাবে। তিনি বলেন, আমার এ পর্যন্ত আসার পেছনে সবচেয়ে বড় শক্তি মা। তার অক্লান্ত পরিশ্রমের কারণেই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পাচ্ছি।

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট নিখোঁজের খবর গুজব


আরও খবর

বাংলাদেশ

  সমকাল প্রতিবেদক

'বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ নিখোঁজ' শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি একটি গুজব।

বুধবার এক সরকারি তথ্য বিবরণীতে এ তথ্য জানানো হয়।

তথ্য মন্ত্রণালয়ের ‘গুজব প্রতিরোধ ও অবহিতকরণ সেল’ খবরটিকে ‘উদ্দেশ্যপ্রণোদিত গুজব’ জানিয়ে এতে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য সবাইকে অনুরোধ করেছে।

তথ্য বিবরণীতে বলা হয়, 'বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ নিখোঁজ' শিরোনামে সোশ্যাল মিডিয়া ও কয়েকটি অনলাইন পোর্টালে প্রচারিত সংবাদটি একটি গুজব।

এতে বলা হয়, ফ্রান্সের থ্যালাস এলেনিয়া স্পেস কোম্পানি স্যাটেলাইটটি নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব বাংলাদেশকে বুঝিয়ে দিয়েছে। এই স্যাটেলাইটের ফ্রিকোয়েন্সি ব্যবহার করে বাংলাদেশ টেলিভিশন প্রতিদিন সফলভাবে অনুষ্ঠান প্রচার করছে

তথ্য বিবরণীতে আরও বলা হয়, অতএব, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ নিখোঁজ শিরোনামে প্রচারিত সংবাদটি একটি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত গুজব।


পরের
খবর

সশস্ত্র বাহিনী দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা


আরও খবর

বাংলাদেশ

ফাইল ছবি

  সমকাল প্রতিবেদক

সশস্ত্র বাহিনী দিবসে ঢাকা সেনানিবাসের শিখা অনির্বাণে ফুল দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে শহীদ সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর সদস্যদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

বুধবার সকালে রাষ্ট্রপতি শিখা অনির্বাণে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর কিছু সময় নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন। রাষ্ট্রপতির পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিখা অনির্বাণে ফুল দিয়ে শহীদ সেনাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। 

রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর পর সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ, নৌবাহিনী প্রধান অ্যাডমিরাল নিজামউদ্দিন আহমেদ এবং বিমানবাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত নিজ নিজ বাহিনীর পক্ষ থেকে শিখা অনির্বাণে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

দিবসটি উপলক্ষে আজ তিন বাহিনী প্রধানরা বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি এবং সশস্ত্র বাহিনী বিভাগে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন। 

সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর সমন্বয়ে ১৯৭১ সালের ২১ নভেম্বর মুক্তিযুদ্ধের সময় গঠিত হয়েছিল বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে '৭১-এর এই দিনেই আত্মোৎসর্গের ব্রত নিয়ে দেশমাতৃকাকে শত্রুমুক্ত করতে সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর অকুতোভয় বীর সেনানীরা মুক্তিকামী আপামর জনতার সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে সম্মিলিতভাবে অপ্রতিরোধ্য আক্রমণের সূচনা করেছিলেন। এর পর থেকে প্রতি বছর ২১ নভেম্বর সশস্ত্র বাহিনী দিবস হিসেবে উদযাপিত হয়ে আসছে। 

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

কারওয়ান বাজারে কাঁচাবাজারের আড়তে অগ্নিকাণ্ড


আরও খবর

বাংলাদেশ

  সমকাল প্রতিবেদক

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে কাঁচাবাজারের আড়তে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। বুধবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে আগুন লাগে। 

ফায়ার সার্ভিস নিয়ন্ত্রণ কক্ষের ডিউটি অফিসার কামরুল হাসান বলেন, ফায়ার সার্ভিসের ৯টি ইউনিটের চেষ্টায় প্রায় দুই ঘণ্টা পর আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসে।

আগুনে দুটি দোকান পুড়ে গেছে। তবে ক্ষয়ক্ষতির আর্থিক পরিমাণ তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে পারেনি ফায়ার সার্ভিস। এছাড়া আগুন লাগার কারণ এখনও জানা যায়নি।