বাংলাদেশ

ব্যারিস্টার মইনুলের স্বাস্থ্য প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ

প্রকাশ : ০৮ নভেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ০৮ নভেম্বর ২০১৮

ব্যারিস্টার মইনুলের স্বাস্থ্য প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ

ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন- ফাইল ছবি

  সমকাল প্রতিবেদক

মানহানির মামলায় গ্রেফতার হওয়া ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। রংপুর কারা কর্তৃপক্ষ ও রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে আগামী ১১ নভেম্বরের মধ্যে এই প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবির সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন। এ ছাড়া অপর এক আদেশে মইনুলকে রংপুর থেকে অন্য কোনো জেলায় স্থানান্তরের সময় যথাযথ নিরাপত্তা দিতে সরকারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আদালতে মইনুল হোসেনের পক্ষে করা আবেদনের শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল কাজী জিনাত হক।

গত ১০ নভেম্বর বিশেষায়িত হাসপাতালে ব্যারিস্টার মইনুলের চিকিৎসা এবং রংপুর আদালতে লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনায় প্রশাসনের দায়িত্বে অবহেলা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে দুটি রিট করা হয়। মইনুলের স্ত্রী সাজু হোসেন রিটগুলো দায়ের করেন। এর পর বৃহস্পতিবার ওই দুটি রিটের শুনানি নিয়ে পৃথক আদেশ দেন হাইকোর্ট।

গত ১৬ অক্টোবর রাতে বেসরকারি একটি টেলিভিশন চ্যানেলের টকশোতে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন এক নারী সাংবাদিককে 'চরিত্রহীন' বলে মন্তব্য করেন। পরে ওই মন্তব্য নারী সমাজের জন্য অবমাননার অভিযোগ এনে দেশের বিভিন্ন জেলায় মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা হয়। এর মধ্যে রংপুরের একটি মামলায় গত ২২ অক্টোবর তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তিনি বর্তমানে রংপুর কারাগারে আছেন।


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

ডাকসুর প্রথম কার্যনির্বাহী সভা ২৩ মার্চ


আরও খবর

বাংলাদেশ

  বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদের নবনির্বাচিত প্রতিনিধিদের নিয়ে প্রথম কার্যনির্বাহী সভা অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৩ মার্চ শনিবার সকাল ১১টায়। ওই সভা থেকেই ডাকসু ও হল সংসদের কমিটিগুলো দায়িত্ব গ্রহণ করবে। 

সোমবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য কার্যালয় সংলগ্ন আব্দুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে অনুষ্ঠিত প্রভোস্ট কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভার সিদ্ধান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সূর্যসেন হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল।

তিনি সমকালকে বলেন, আগামী ২৩ মার্চ সকাল ১১টায় ডাকসু ও সব হল সংসদের প্রথম কার্যনির্বাহী সভা অনুষ্ঠিত হবে। ২৩ তারিখের সভার মধ্যদিয়ে তারা দায়িত্ব গ্রহণ করবেন। ওই সভা থেকেই পরবর্তী ৩৬৫ দিন গণনা করা হবে। উপাচার্য এর মধ্যেই ডাকসুর একজন কোষাধ্যক্ষ নিয়োগ দেবেন। এরপর হল সংসদগুলোতে হলের হাউজ টিউটরদের মধ্য থেকে একজন কোষাধ্যক্ষ নিয়োগের মাধ্যমে ডাকসু ও হল সংসদের কমিটি পূর্ণাঙ্গ করা হবে। 

সন্ধ্যায় সাড়ে সাতটায় প্রভোস্ট কমিটির সভা শুরু হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। সভায় বিভিন্ন হলের প্রাধ্যক্ষরা উপস্থিত ছিলেন। রাত নয়টার দিকে সভা শেষ হয়।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

জিয়া ভোটের রাজনীতি ধ্বংস করেছেন: প্রধানমন্ত্রী


আরও খবর

বাংলাদেশ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শততম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রী। ফোকাস বাংলা

  সমকাল প্রতিবেদক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানই নির্বাচন ব্যবস্থা ও ভোটের রাজনীতিকে সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস করেছেন। ১৯ দফা ও জাগো দল থেকে তিন-চার ধাপ পার করে তিনি বিএনপি নামের যে দল গঠন করলেন- সেই দল হাঁটাচলা শেখার আগেই দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে গেল! এই দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ার রহস্যটা হচ্ছে, জিয়াউর রহমান সংবিধান লঙ্ঘন করে অবৈধভাবে যে ক্ষমতা দখল করেছিলেন, তাকে বৈধতা দেওয়ার জন্যই সংবিধান সংশোধনের প্রয়োজন হয়েছিল। আর সংবিধান সংশোধনের জন্য দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতার প্রয়োজন ছিল।

তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ মানুষের ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য লড়াই-সংগ্রাম করেছে। কিন্তু অবাক লাগে, জিয়াউর রহমানের এই ভাঁওতাবাজি ও নির্বাচন নিয়ে কারচুপি-অনিয়মের পরও অনেকেই তাকে 'বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা' বলার চেষ্টা করেন। অনেক দল হলেই কি বহুদলীয় গণতন্ত্র হয়ে যায়? জিয়াউর রহমান যেখানে প্রতি রাতে কারফিউ দিয়ে দেশ চালাতেন, গণতন্ত্র ও মানুষের কথা বলার অধিকার ছিল না- সেখানে বহুদলীয় গণতন্ত্র কীভাবে হয়?

সোমবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শততম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

স্বাধীনতাবিরোধী, যুদ্ধাপরাধী ও খুনি-সন্ত্রাসীদের পুনর্বার ক্ষমতায় আসা ঠেকাতে সতর্ক থাকার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। 

তিনি বলেন, বাংলার মাটিতে যুদ্ধাপরাধী-স্বাধীনতাবিরোধী, খুনি-সন্ত্রাসী, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলাকারী এবং এতিমের অর্থ আত্মসাৎকারীরা আর যেন ক্ষমতায় আসতে না পারে। তারা যেন দেশের মানুষের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে না পারে।

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, এই বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ, মুজিবের বাংলাদেশ। এই বাংলাদেশে মানুষের অধিকার সমুন্নত থাকবে। আমরা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত সোনার বাংলা গড়ে তুলতে পারব- জাতির পিতার জন্মদিনে এটাই আমাদের দৃঢ়প্রত্যয়। ইনশাআল্লাহ আমরাই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণ করতে পারব।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের বিশাল বিজয়ের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিএনপি স্বাধীনতাবিরোধী ও যুদ্ধাপরাধীদের নিয়ে এ নির্বাচনে গেছে। এই নির্বাচনে স্বাধীনতাবিরোধী জামায়াত একটি আসনও পায়নি। বিএনপি অল্প কয়েকটিতে জিতেছে। নির্বাচনের আগে তারা জিতলে তাদের প্রধানমন্ত্রী কে হবেন, সেটা জনগণের সামনে বলতে পারেনি। এর পর তাদের মনোনয়ন-বাণিজ্য, সন্ত্রাস-দুর্নীতির কারণে মানুষ তাদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। আওয়ামী লীগ বিশাল বিজয় পেয়েছে।

আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, ইতিহাসবিদ অধ্যাপক ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, সাবেক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র আজমত উল্লাহ খান, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ এবং উত্তরের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান। পরিচালনা করেন আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ ও উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

যুক্তরাষ্ট্রের মানবাধিকার প্রতিবেদনের প্রতিবাদ জানাল বাংলাদেশ


আরও খবর

বাংলাদেশ

  সমকাল প্রতিবেদক

দেশের মানবাধিকার পরিস্থিতির ওপর যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদনের প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ। সোমবার সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, ওই প্রতিবেদনে সঠিক তথ্য প্রতিফলিত হয়নি। বাংলাদেশের চেয়ে বরং যুক্তরাষ্ট্রেই মানবাধিকার লঙ্ঘনের অসংখ্য উদাহরণ রয়েছে। এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরে অনানুষ্ঠানিক প্রতিবাদপত্র পাঠানো হয়েছে।

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের হামলার ঘটনায় সর্বশেষ পরিস্থিতি জানাতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এ সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব এম শহীদুল আলম।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশি নাগরিকদের জন্য ভ্রমণ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। দেশটি ভ্রমণে বাংলাদেশিদের অতিরিক্ত সতর্ক থাকতে হবে।

ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে নৃশংস হামলায় নিহত পাঁচ বাংলাদেশির পরিচয় তুলে ধরেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন। তারা হলেন- বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক ড. আব্দুস সামাদ, সিলেটের ফরিদ আহমেদের স্ত্রী হুসনে আরা আহমেদ, চাঁদপুরের মোজাম্মেল হক, নরসিংদীর জাকারিয়া ভূঁইয়া ও নারায়ণগঞ্জের মোহাম্মদ ওমর ফারুক। আহত হয়েছেন কিশোরগঞ্জের লিপি ও গাজীপুরের মুনতাসীম। তবে লিপির অবস্থা গুরুতর। এ ছাড়া শাওন নামে একজন নিখোঁজ রয়েছেন।

ড. মোমেন বলেন, নিউজিল্যান্ডের ঘটনার বিষয়ে খোঁজ-খবর ও যাবতীয় তথ্য সংগ্রহের জন্য সহকারী সচিব ওয়ালিদ বিন কাশেমকে ফোকাল পারসন হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া নিউজিল্যান্ডে নিহতদের শনাক্ত করার জন্য বাংলাদেশ থেকে পরিবারপ্রতি একজনকে খরচ দিয়ে নিয়ে যাবে নিউজিল্যান্ড সরকার।

মন্ত্রী আরও জানান, হামলার পর পরিস্থিতি মোকাবেলায় দেশটির ক্যানবেরায় থাকা বিদেশি মিশনের মধ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনই সবার আগে ক্রাইস্টাচার্চে পৌঁছায়। হতাহতের পরিবারের পাশে দাঁড়ান কর্মকর্তারা। তিনি আরও জানান, বিশ্বে স্বয়ংক্রিয় অস্ত্রের ব্যবহার বন্ধে জাতিসংঘের মাধ্যমে একটি উদ্যোগ নেবে বাংলাদেশ।

সংশ্লিষ্ট খবর