বাংলাদেশ

খালেদা জিয়া এখনই মুক্তি পাচ্ছেন না: মওদুদ

প্রকাশ : ১৬ মে ২০১৮

খালেদা জিয়া এখনই মুক্তি পাচ্ছেন না: মওদুদ

ফাইল ছবি

  সমকাল প্রতিবেদক

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট্র দুর্নীতি মামলায় কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন বহাল রেখেছেন সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ। তবে সর্বোচ্চ আদালত থেকে জামিন পেলেও খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে অন্য মামলা থাকায় তিনি এখনই মুক্তি পাচ্ছেন না বলে জানিয়েছেন তার অন্যতম আইনজীবী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

বুধবার সকালে রায় ঘোষণার পর আদালত প্রাঙ্গণে তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মওদুদ আহমদ।

তিনি বলেন, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় সর্বোচ্চ আদালত থেকে জামিন পেলেও খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে অন্য মামলা থাকায় তিনি এখনই মুক্তি পাচ্ছেন না। তার মুক্তির ক্ষেত্রে কিছুটা বাধা আছে। 

মওদুদ বলেন, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কুমিল্লায় তিনটি, ঢাকায় দুটি ও নড়াইলে একটি মামলা রয়েছে। যেহেতু সর্বোচ্চ আদালত তাকে জামিন দিয়েছেন তাই নিম্ন আদালতে খালেদা জিয়ার জামিন পেতে খুব একটা বেশি দেরি হবে না। আমরা আইনি প্রক্রিয়ায় তাকে জামিনে বের করে আনবো। খালেদা জিয়া শিগগিরই নেতাকর্মীদের মাঝে ফিরে আসবেন বলে আশা ব্যক্ত করেন তিনি।

এর আগে, বুধবার সকাল ৯টা পাঁচ মিনিটে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে চার সদস্যের বেঞ্চ দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষের করা আপিল খারিজ করে খালেদা জিয়ার জামিন বহাল রাখেন।

একই সঙ্গে আগামী ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে আপিল নিষ্পত্তি করতে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

এতিমদের জন্য বিদেশ থেকে আসা অর্থ আত্মসাতের দায়ে ঢাকার একটি বিশেষ জজ আদালত গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। ওই দিনই তাকে পুরানো ঢাকার সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। সে দিন থেকে তিনি কারাগারে আছেন। 

ওই সাজা স্থগিত চেয়ে উচ্চ আদালতে আবেদন করা হলে ১২ মার্চ খালেদা জিয়াকে চার মাসের অন্তবর্তীকালীন জামিন দেন হাইকোর্ট। পরদিন ওই জামিন স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদক। দ্রুত আপিল নিষ্পত্তি এবং খালেদার জামিন বাতিল চেয়ে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান এবং রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

তবে খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন বহাল রাখার আর্জি জানিয়ে শুনানি করেন তার আইনজীবী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, খন্দকার মাহবুব হোসেন, এ জে মোহম্মদ আলী ও জয়নুল আবেদীন। 

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

খালেদা জিয়ার সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাৎ


আরও খবর

বাংলাদেশ

ফাইল ছবি

  সমকাল প্রতিবেদক

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করেছেন তার পরিবারের সদস্যরা। শুক্রবার বিকেল পৌনে ৫টার দিকে নাজিমুদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে দেখা করতে যান তারা। প্রায় এক ঘণ্টা পর তারা কারাগার থেকে বের হয়ে আসেন।

কারাগারে দেখা করতে যাওয়া ছয় স্বজনদের মধ্যে ছিলেন- খালেদা জিয়ার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার, ভাবি কানিজ ফাতেমা, ভাতিজা অভিক ইস্কান্দার, অনিক ইস্কান্দার, বোন সেলিমা ইসলাম এবং ভাগ্নে ডা. মামুন আহমেদ।

এর আগে বুধবার খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে যান তার দুই আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার এবং সানাউল্লাহ মিয়া।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত। রায় ঘোষণার পরপরই তাকে কারাগারে নেওয়া হয়।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

নির্বাচনের আগে সিনহা অপপ্রচারে উসকানি না দিলেও পারতেন: কাদের


আরও খবর

বাংলাদেশ

ফাইল ছবি

  গাজীপুর প্রতিনিধি

সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা নির্বাচনের আগে বই প্রকাশ করে সরকারবিরোধী অপপ্রচারে উসকানি না দিলেও পারতেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক, পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শুক্রবার সকালে গাজীপুর মহানগরের ভোগড়া বাইপাস মোড় এলাকায় বাস র‌্যাপিড ট্রানজিটসহ (বিআরটি) কয়েকটি প্রকল্পের কাজ পরিদর্শনের সময় এ কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, তার (সুরেন্দ্র কুমার সিনহা) লেখা বই তিনি প্রকাশ করবেন- এটাই স্বাভাবিক। তবে আমার প্রশ্ন একটাই, তা বিদেশের মাটিতে বসে কেন? আর নির্বাচনকে সামনে রেখে কেন? বইটি আরও দুই-তিন মাস পরেও প্রকাশ করা যেত। বইটি এ সময়ে প্রকাশ করে সরকারবিরোধী অপপ্রচারের উসকানি না দিলেও পারতেন তিনি।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ডিজিটাল ক্রাইমকে মোকাবিলা করতেই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন প্রণয়ন করা হয়েছে। এতে স্বাধীন সাংবাদিকতা এবং মতপ্রকাশের স্বাধীনতা বাধাগ্রস্ত হবে না, ক্ষতিগ্রস্ত হবে না। সেভাবেই আইনটি প্রয়োগ করা হবে।

যুক্তফ্রন্টকে স্বাগত জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিভিন্ন দল ও নেতাদের ঐক্য প্রক্রিয়া, যুক্তফ্রন্টকে সরকার স্বাগত জানায়। তারা সভা–সমাবেশেরও অনুমতি পাচ্ছে। ইতোমধ্যে এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ, পুলিশ কমিশনারকে। যারাই সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সভা করতে চান তাদের অনুমতি দেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। এখন যে কানো নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে পারবে।

এ সময় গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার মো. আরিফুল ইসলাম, বিআরটির প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী মো. সানাউল হক, সড়ক ও জনপথের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী (ঢাকা জোন) আবদুস সবুর প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

নদী বিষয়ক বইমেলা উদ্বোধন


আরও খবর

বাংলাদেশ
নদী বিষয়ক বইমেলা উদ্বোধন

প্রকাশ : ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

  অনলাইন ডেস্ক

বিশ্ব নদী দিবস উপলক্ষে শুক্রবার রাজধানীর শাহবাগে তিন দিনব্যাপী নদী বিষয়ক বইমেলা ও প্রদর্শনী শুরু হয়েছে। পাঠক সমাবেশ কেন্দ্রে আয়োজিত এই মেলার উদ্বোধন করেন অ্যাকশনএইডের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারাহ্ কবির।

মেলার উদ্বোধন করে ফারাহ্ কবির বলেন, নদী বিষয়ক প্রকাশনার পরিধি আরও বাড়ানো দরকার। আমাদের দেশে নদী বিষয়ক যেসব প্রকাশনা রয়েছে, তার বেশিরভাগই হয় পাঠ্যক্রমমূলক না হয় সাহিত্যমূলক। এই দুইয়ের মাঝখানে বিপুল পাঠক রয়েছেন যারা নদী নিয়ে সহজভাষায় তথ্য ও অভিজ্ঞতামূলক বই পড়তে চায়। প্রকাশকদের এগিয়ে আসতে হবে এ ধরনের বই প্রকাশে। 

তিনি বলেন, প্রযুক্তির এই যুগে শিশুদের জন্য ‘ইন্টারেকটিভ’ বই প্রকাশ করতে হবে। তাহলে তারা বই পড়তে আগ্রহী হবে ও নদী সম্পর্কে জানবে। তাদের মধ্য থেকে ভবিষ্যৎ নদীকর্মী তৈরি হবে।

শ্রাবণ প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী রবীন আহসান বলেন, দেশে নদী বিষয়ে মানসম্মত বইয়ের চাহিদা রয়েছে, প্রকাশকদেরও আগ্রহ রয়েছে। কিন্তু নদী বিষয়ক বইয়ের লেখকের অভাব রয়েছে। শ্রাবণ প্রকাশনী থেকে নদী বিষয়ে যেসব বই প্রকাশ করা হয়, তার কোনটিই অবিক্রিত থাকে না। নদী বিশেষজ্ঞরা সহজ ভাষায় সাধারণ পাঠকের উপযোগী বই লিখলে, বাজারে তা ব্যাপক চলবে।  

রিভারাইন পিপলের মহাসচিব শেখ রোকন বলেন, রিভারাইন পিপল নদী বিষয়ে যে জ্ঞানভিত্তিক আন্দোলন গড়ে তুলতে চায়, তারই অংশ হিসেবে যৌথভাবে তৃতীয়বারের মতো নদী বিষয়ক বইমেলা আয়োজন করেছে। প্রজন্মান্তরের মধ্যে নদী বিষয়ক জ্ঞান বিনিময় করতে প্রকাশনা খুবই কার্যকর মাধ্যম। বাংলাদেশের নদ-নদী যে বহুমাত্রিক সংকটের মধ্যে রয়েছে, তা মোকাবেলায়ও গড়ে তুলতে হবে বহুমাত্রিক আন্দোলন। 

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন রিভারাইন পিপলের পরিচালক নূসরাত খান। মেলা ও প্রদর্শনীতে বাজারে সুলভ বই বিক্রয় ছাড়াও দুষ্পাপ্য নদী বিষয়ক গ্রন্থাবলী প্রদর্শিত হচ্ছে। আগামী রোববার পর্যন্ত সকাল থেকে সন্ধ্যাবেলা এই মেলা চলবে বলে আয়োজকরা জানিয়েছেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিআইডব্লিউটিএ’র সাবেক প্রকৌশলী তোফায়েল আহমেদ, বুড়িগঙ্গা বাঁচাও আন্দোলনের সদস্য সচিব মিহির বিশ্বাস, হাওর অঞ্চলবাসীর সমন্বয়ক জাকিয়া শিশির, নোঙর’র চেয়ারম্যান সুমন শামস, রিভারাইন পিপলের পরিচালক মোহাম্মদ এজাজ, শরিফুল ইসলাম, নদীযাত্রীকের আহ্বায়ক ফারুখ আহমেদ প্রমুখ।

প্রকাশনা সংস্থা শ্রাবণ প্রকাশনী, নদী বিষয়ক উদ্যোগ রিভারাইন পিপল ও বইনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম যৌথভাবে এই মেলার আয়োজন করেছে।