বাংলাদেশ

উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে প্রতিবন্ধীদের অন্তর্ভুক্তির আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশ : ১৫ মে ২০১৮

উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে প্রতিবন্ধীদের অন্তর্ভুক্তির আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

প্রতিবন্ধিতা ও দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা শীর্ষক সম্মেলনের উদ্বোধনকালে বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী-ফোকাস বাংলা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড ও দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনায় অন্তর্ভুক্ত করতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রতিবন্ধিতা ও দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা শীর্ষক ২য় আন্তর্জাতিক সম্মেলনের উদ্বোধনকালে তিনি এ আহ্বান জানান। খবর বাসসের।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ এখন যে কোন ধরনের দুর্যোগ মোকাবেলার সক্ষমতা অর্জন করেছে এবং এজন্য দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় বিশ্বে বাংলাদেশ এখন রোল মডেল হিসেবে পরিচিত।

শেখ হাসিনা বলেন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় প্রতিবন্ধীদের অন্তর্ভুক্তকরণে এ সম্মেলন ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সাম্প্রতিক পদক্ষেপ খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি বলেন, বৈশ্বিক, আঞ্চলিক, জাতীয় এবং স্থানীয় পর্যায়ে এই লক্ষ্য বাস্তবায়নে বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সঙ্গে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে।

পারস্পরিক অর্জন ও অভিজ্ঞতা বিনিময়ের মাধ্যমে সেন্দাই ফ্রেমওয়ার্ক, আঞ্চলিক পরিকল্পনা এবং ‘ঢাকা ঘোষণা ২০১৫’-এর কর্মপন্থা অন্তর্ভুক্ত করে ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা তৈরি করা হচ্ছে এ সম্মেলনের মূল উদ্দেশ্য।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব শাহ কামাল স্বাগতিক বক্তৃতা করেন।

রয়্যাল থাই সংসদের সদস্য এবং ইউএন’র ইন্টারন্যাশনাল কমিটি অন রাইটস অব দ্যা পারসন্স উইথ ডিজ্যাবিলিটিজ’র সদস্য মনথিয়ান বুন্তান সম্মেলনে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন।

দুর্যোগের শিকার ও সেলফ হেল্প গ্রুপ অব দ্যা পারসন্স উইথ ডিজ্যাবিলিটিজ সভাপতি এবং গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার শ্রীপুর গ্রামের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য কাজল রেখাও অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।

বাংলাদেশে জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধি মইয়া সেপো জাতিসংঘ মহাসচিবের দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাস (ইউএনআইএসডিআর) বিষয়ক বিশেষ প্রতিনিধি মামি মিজোরির পাঠানো বিশেষ প্রশংসা পত্র অনুষ্ঠানে পাঠ করেন।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিষয়ে একটি ভিডিও উপস্থাপনা প্রদর্শিত হয়।

ইন্টারন্যাশনাল ফোকাল পয়েন্ট, অ্যাডভাইজরি গ্রুপ অন ডিআইডিআরএম, বাংলাদেশ এবং দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা’র (ডব্লিইএইচও) অটিজম বিষয়ক অ্যাম্বাসেডর সায়মা ওয়াজেদ হোসেন, প্রায় ৩৩টি দেশের ১শ’ জনের বেশি সদস্য, আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থার প্রতিনিধিবৃন্দ এবং উচ্চপদস্থ সরকারি কর্মকর্তাবৃন্দ সম্মেলনে যোগ দেন।

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

খালেদা জিয়ার সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাৎ


আরও খবর

বাংলাদেশ

ফাইল ছবি

  সমকাল প্রতিবেদক

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করেছেন তার পরিবারের সদস্যরা। শুক্রবার বিকেল পৌনে ৫টার দিকে নাজিমুদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে দেখা করতে যান তারা। প্রায় এক ঘণ্টা পর তারা কারাগার থেকে বের হয়ে আসেন।

কারাগারে দেখা করতে যাওয়া ছয় স্বজনদের মধ্যে ছিলেন- খালেদা জিয়ার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার, ভাবি কানিজ ফাতেমা, ভাতিজা অভিক ইস্কান্দার, অনিক ইস্কান্দার, বোন সেলিমা ইসলাম এবং ভাগ্নে ডা. মামুন আহমেদ।

এর আগে বুধবার খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে যান তার দুই আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার এবং সানাউল্লাহ মিয়া।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত। রায় ঘোষণার পরপরই তাকে কারাগারে নেওয়া হয়।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

নির্বাচনের আগে সিনহা অপপ্রচারে উসকানি না দিলেও পারতেন: কাদের


আরও খবর

বাংলাদেশ

ফাইল ছবি

  গাজীপুর প্রতিনিধি

সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা নির্বাচনের আগে বই প্রকাশ করে সরকারবিরোধী অপপ্রচারে উসকানি না দিলেও পারতেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক, পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শুক্রবার সকালে গাজীপুর মহানগরের ভোগড়া বাইপাস মোড় এলাকায় বাস র‌্যাপিড ট্রানজিটসহ (বিআরটি) কয়েকটি প্রকল্পের কাজ পরিদর্শনের সময় এ কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, তার (সুরেন্দ্র কুমার সিনহা) লেখা বই তিনি প্রকাশ করবেন- এটাই স্বাভাবিক। তবে আমার প্রশ্ন একটাই, তা বিদেশের মাটিতে বসে কেন? আর নির্বাচনকে সামনে রেখে কেন? বইটি আরও দুই-তিন মাস পরেও প্রকাশ করা যেত। বইটি এ সময়ে প্রকাশ করে সরকারবিরোধী অপপ্রচারের উসকানি না দিলেও পারতেন তিনি।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ডিজিটাল ক্রাইমকে মোকাবিলা করতেই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন প্রণয়ন করা হয়েছে। এতে স্বাধীন সাংবাদিকতা এবং মতপ্রকাশের স্বাধীনতা বাধাগ্রস্ত হবে না, ক্ষতিগ্রস্ত হবে না। সেভাবেই আইনটি প্রয়োগ করা হবে।

যুক্তফ্রন্টকে স্বাগত জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিভিন্ন দল ও নেতাদের ঐক্য প্রক্রিয়া, যুক্তফ্রন্টকে সরকার স্বাগত জানায়। তারা সভা–সমাবেশেরও অনুমতি পাচ্ছে। ইতোমধ্যে এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ, পুলিশ কমিশনারকে। যারাই সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সভা করতে চান তাদের অনুমতি দেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। এখন যে কানো নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে পারবে।

এ সময় গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার মো. আরিফুল ইসলাম, বিআরটির প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী মো. সানাউল হক, সড়ক ও জনপথের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী (ঢাকা জোন) আবদুস সবুর প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

নদী বিষয়ক বইমেলা উদ্বোধন


আরও খবর

বাংলাদেশ
নদী বিষয়ক বইমেলা উদ্বোধন

প্রকাশ : ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

  অনলাইন ডেস্ক

বিশ্ব নদী দিবস উপলক্ষে শুক্রবার রাজধানীর শাহবাগে তিন দিনব্যাপী নদী বিষয়ক বইমেলা ও প্রদর্শনী শুরু হয়েছে। পাঠক সমাবেশ কেন্দ্রে আয়োজিত এই মেলার উদ্বোধন করেন অ্যাকশনএইডের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারাহ্ কবির।

মেলার উদ্বোধন করে ফারাহ্ কবির বলেন, নদী বিষয়ক প্রকাশনার পরিধি আরও বাড়ানো দরকার। আমাদের দেশে নদী বিষয়ক যেসব প্রকাশনা রয়েছে, তার বেশিরভাগই হয় পাঠ্যক্রমমূলক না হয় সাহিত্যমূলক। এই দুইয়ের মাঝখানে বিপুল পাঠক রয়েছেন যারা নদী নিয়ে সহজভাষায় তথ্য ও অভিজ্ঞতামূলক বই পড়তে চায়। প্রকাশকদের এগিয়ে আসতে হবে এ ধরনের বই প্রকাশে। 

তিনি বলেন, প্রযুক্তির এই যুগে শিশুদের জন্য ‘ইন্টারেকটিভ’ বই প্রকাশ করতে হবে। তাহলে তারা বই পড়তে আগ্রহী হবে ও নদী সম্পর্কে জানবে। তাদের মধ্য থেকে ভবিষ্যৎ নদীকর্মী তৈরি হবে।

শ্রাবণ প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী রবীন আহসান বলেন, দেশে নদী বিষয়ে মানসম্মত বইয়ের চাহিদা রয়েছে, প্রকাশকদেরও আগ্রহ রয়েছে। কিন্তু নদী বিষয়ক বইয়ের লেখকের অভাব রয়েছে। শ্রাবণ প্রকাশনী থেকে নদী বিষয়ে যেসব বই প্রকাশ করা হয়, তার কোনটিই অবিক্রিত থাকে না। নদী বিশেষজ্ঞরা সহজ ভাষায় সাধারণ পাঠকের উপযোগী বই লিখলে, বাজারে তা ব্যাপক চলবে।  

রিভারাইন পিপলের মহাসচিব শেখ রোকন বলেন, রিভারাইন পিপল নদী বিষয়ে যে জ্ঞানভিত্তিক আন্দোলন গড়ে তুলতে চায়, তারই অংশ হিসেবে যৌথভাবে তৃতীয়বারের মতো নদী বিষয়ক বইমেলা আয়োজন করেছে। প্রজন্মান্তরের মধ্যে নদী বিষয়ক জ্ঞান বিনিময় করতে প্রকাশনা খুবই কার্যকর মাধ্যম। বাংলাদেশের নদ-নদী যে বহুমাত্রিক সংকটের মধ্যে রয়েছে, তা মোকাবেলায়ও গড়ে তুলতে হবে বহুমাত্রিক আন্দোলন। 

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন রিভারাইন পিপলের পরিচালক নূসরাত খান। মেলা ও প্রদর্শনীতে বাজারে সুলভ বই বিক্রয় ছাড়াও দুষ্পাপ্য নদী বিষয়ক গ্রন্থাবলী প্রদর্শিত হচ্ছে। আগামী রোববার পর্যন্ত সকাল থেকে সন্ধ্যাবেলা এই মেলা চলবে বলে আয়োজকরা জানিয়েছেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিআইডব্লিউটিএ’র সাবেক প্রকৌশলী তোফায়েল আহমেদ, বুড়িগঙ্গা বাঁচাও আন্দোলনের সদস্য সচিব মিহির বিশ্বাস, হাওর অঞ্চলবাসীর সমন্বয়ক জাকিয়া শিশির, নোঙর’র চেয়ারম্যান সুমন শামস, রিভারাইন পিপলের পরিচালক মোহাম্মদ এজাজ, শরিফুল ইসলাম, নদীযাত্রীকের আহ্বায়ক ফারুখ আহমেদ প্রমুখ।

প্রকাশনা সংস্থা শ্রাবণ প্রকাশনী, নদী বিষয়ক উদ্যোগ রিভারাইন পিপল ও বইনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম যৌথভাবে এই মেলার আয়োজন করেছে।