আফ্রিকা

নাইজেরিয়ায় সাম্প্রদায়িক সহিংসতায় নিহত ৫৫

প্রকাশ : ২১ অক্টোবর ২০১৮

  অনলাইন ডেস্ক

নাইজেরিয়ায় সাম্প্রদায়িক সহিংসতায় গত তিনদিনে অন্তত ৫৫ জন নিহত হয়েছে।

দেশটির প্রেসিডেন্টের বরাত দিয়ে রোববার বার্তা সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, নাইজেরিয়ার দক্ষিণাঞ্চলে কাদুনা প্রদেশে কাসুয়ান মাগানি শহরে অল্পবয়সী খ্রিষ্টান ও মুসলমানদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে।

নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুহাম্মাদু বুহারি এক বিবৃতিতে এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বলেন, গত বৃহস্পতবিার একটি বাজারে ঝগড়া থেকে সূত্রপাত হওয়া সাম্প্রদায়িতক সহিংসতায় এখন পর্যন্ত অন্তত ৫৫ জন নিহত হয়েছে।

প্রাদেশিক পুলিশ কমিশনার জানিয়েছেন, অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি হওয়ার পর ২২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এছাড়া নতুন করে সহিংসতা এড়াতে কর্তৃপক্ষ শহরটিতে কারফিউ জারি করেছে বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

মুগাবের ব্রিফকেস থেকে ১০ লাখ ডলার চুরি


আরও খবর

আফ্রিকা

রবার্ট মুগাবে -সংগৃহীত

  অনলাইন ডেস্ক

জিম্বাবুয়ের সাবেক প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবের ব্রিফকেস থেকে প্রায় ১০ লাখ ডলার চুরি হয়েছে।

বিবিসি জানিয়েছে, চলতি মাসেই মুগাবের দেড় লাখ ডলার চুরির অভিযোগে আদালতে গিয়েছিলেন তিন ব্যক্তি। কিন্তু আদালতে যে তথ্য উপাত্ত উপস্থাপন করা হয়েছে তাতে মুগাবে বলছেন, হারানো অর্থের পরিমাণ আরও অনেক বেশি।

৯৪ বছর বয়সী মিস্টার মুগাবেকে ২০১৭ সালে অনেকটা জোর করেই ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দিয়েছিলো দেশটির সেনাবাহিনী। বর্তমানে তিনি গৃহবন্দী। এর আগে প্রথমে প্রধানমন্ত্রী ও পরে প্রেসিডেন্ট হিসেবে ৩৭ বছর দেশ শাসন করেছেন মুগাবে।

তবে মুগাবের লাখ লাখ ডলার হারানোর খবর এমন সময় এলো যখন দেশটির অর্থনৈতিক সংকটের কারণে খাদ্যের দাম দ্বিগুণ হয়ে গেছে।

জিম্বাবুয়ের রাষ্ট্রায়ত্ত হেরাল্ড নিউজ পেপারে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আদালতে দেয়া তথ্য উপাত্ত থেকে জানা গেছে ২০১৬ সালে এসব ডলার নিজের গ্রামের বাড়িতে নিয়েছিলেন তখনকার প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবে। সেখানে তিনি সুটকেসভর্তি ডলার এক আত্মীয়কে দিয়েছিলেন, যিনি তার বাড়ি দেখাশোনা করতেন। আর পুরো অর্থ চুরি হয়েছে গত পহেলা ডিসেম্বর থেকে এ বছর জানুয়ারির শুরুর সময়ের মধ্যে।

প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, মুগাবে তার আত্মীয়কে জিজ্ঞাসাবাদ করেও ডলারের বিষয়ে কোনো সদুত্তর পাননি, বরং ওই আত্মীয় বলেছেন তিনি কিছুই জানেন না। পরে মুগাবে আরেকজন কর্মীকে বিষয়টি দেখতে বলেন। এরপর যখন ব্রিফকেসটি পাওয়া যায়, তখন সেটিতে মাত্র ৭৮ হাজার ডলার ছিলো।

প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়েছে, আদালতে দুই ব্যক্তির নাম বলা হয়েছে। চুরি করা ডলার তারা গাড়ি, বাড়ি ও পশু ক্রয়ে ব্যয় করেছেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ক্ষমতায় থাকার সময় বিলাসবহুল জীবন যাপনের জন্য তীব্র সমালোচিত ছিলেন রবার্ট মুগাবেকে। এমনকি দেশটি যখন চরম অর্থনৈতিক দুরবস্থার মুখোমুখি হয়, তখনো তার জীবনযাপনের ধরণ নিয়ে ক্ষোভ ছিলো দেশটির বহু মানুষের মধ্যে। এখন আর তিনি ক্ষমতায় নেই। কিন্তু তাই বলে তাকে নিয়ে মানুষের আগ্রহের কমতি নেই। ফলে বারবার আলোচনায় আসছেন তিনি। এবার আলোচনায় এসেছেন ব্রিফকেস ভর্তি ডলারের খবর সঙ্গে নিয়ে।

পরের
খবর

সুদানে সরকার বিরোধী বিক্ষোভ-সহিংসতায় নিহত বেড়ে ২৪


আরও খবর

আফ্রিকা

রুটির দাম বাড়ানোর সরকারি সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে গত ১৯ ডিসেম্বর থেকে সুদানজুড়ে সরকার বিরোধী বিক্ষোভ শুরু হয়

  অনলাইন ডেস্ক

আফ্রিকার দেশ সুদানে গত ডিসেম্বরে শুরু হওয়া সরকারবিরোধী বিক্ষোভ ও সহিংসতায় এখন পর্যন্ত অন্তত ২৪ জন নিহত হয়েছে।

দেশটির এক কর্মকর্তার কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদনে একথা জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, রুটির দাম বাড়ানোর সরকারি সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে গত ১৯ ডিসেম্বর থেকে সুদানজুড়ে সরকার বিরোধী বিক্ষোভ শুরু হয়। বিক্ষোভকারীরা প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশিরের পদত্যাগের দাবি করছে।

বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে সৃষ্টি সহিংস ঘটনার তদন্তকারী প্রসিউিটর অফিস মনোনিত প্যানেলের প্রধান আমের ইবরাহীম বলেন, ‘১৯ ডিসেম্বর থেকে এ পর্যন্ত বিক্ষোভের ঘটনায় মোট ২৪ জন প্রাণ হারিয়েছে।’

এর আগে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল, চলমান বিক্ষোভে দুই নিরাপত্তাকর্মীসহ ২২ জন নিহত হয়েছে।

ইবরাহীম বলেন, গাদারাফ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও দুই জন বিক্ষোভকারীর মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বলছে, বিক্ষোভকালে সংঘর্ষে শিশু ও চিকিৎসা কর্মীসহ অন্তত ৪০ জন নিহত হয়েছে।

বিক্ষোভকারীরা দেশের বিভিন্ন শহরে কয়েকশ' বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে। কিন্তু দাঙ্গা পুলিশ ও নিরাপত্তা কর্মীরা কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

মানবাধিকার সংগঠনগুলো ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন বলছে, নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে গুলি চালায়।